অচেতন করে লুট, প্রাণ গেল দম্পতির


288 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
অচেতন করে লুট, প্রাণ গেল দম্পতির
আগস্ট ২৬, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

রাজধানীর ডেমরার সারুলিয়ার পূর্ব বপনগরে ভাড়াটে সেজে বাসায় ঢুকে এক দম্পতিকে অচেতন করে মালপত্র লুট করেছে দুর্বৃত্তরা। পরে ওই দম্পতি আবদুস সাত্তার (৭০) ও সাহেরা খাতুনকে (৬০) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। রোববার এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আবদুস সাত্তারের বাড়ি সারুলিয়ার পূর্ব বপনগরে। তাদের টিনের বাড়ির কয়েকটি ঘর ভাড়া দেওয়ার জন্য ‘টু-লেট’ টাঙানো আছে কয়েক দিন ধরে। শনিবার কয়েকজন নারী বাসা ভাড়া নেওয়ার কথা বলে বাড়িতে ঢোকে। বাসাটি দেখে তারা চলে যায়। রোববার আবারও কয়েকজন নারী ভাড়াটে সেজে ওই বাড়িতে যায়। এ সময় বাড়িতে ছিলেন আবদুস সাত্তার ও তার স্ত্রী সাহেরা খাতুন। তাদের অচেতন করে বাড়ির মালপত্র লুট করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। সন্ধ্যায় স্বামী-স্ত্রীকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে ৭টার দিকে সাহেরাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। পরে রাত ৮টার দিকে আবদুস সাত্তারও মারা যান।

আবদুস সাত্তারের ছেলে আমিনুল ইসলাম জানান, তিনি একটি বেসরকারি কোম্পানিতে কর্মরত। তার স্ত্রী-সন্তান ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্রামের বাড়ি ঈদ করতে গেছেন। তিনি সকালে অফিসের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হন। বাসায় ছিলেন তার বাবা-মা। বিকেলে তিনি খবর পান, তার বাবা-মা অচেতন অবস্থায় ঘরের মধ্যে পড়ে আছেন। পরে তিনি বাসায় ফিরে প্রতিবেশীদের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে নেওয়ার এক ঘণ্টার মধ্যে তার বাবা-মা মারা যান। তিনি বলেন, কয়েকজন নারী ভাড়াটে সেজে বাসায় ঢুকে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে তার বাবা-মাকে হত্যা করেছে।

ডেমরা থানার ওসি সিদ্দিকুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গেছে। কারা পরিচয় গোপন করে ওই বাসায় ঢুকেছে, তা জানার চেষ্টা করা হচ্ছে।