অস্ট্রেলিয়ায় বড় হার বাংলাদেশের


463 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
অস্ট্রেলিয়ায় বড় হার বাংলাদেশের
সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৫ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকম ডেস্ক :
প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতাটা বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের জন্য মোটেই সুখের হয়নি। বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাই পর্বে এশিয়ান কাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের কাছে ৫-০ গোলে হেরেছে মামুনুল ইসলামরা।

পার্থের নিব স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার প্রথমার্ধে অস্ট্রেলিয়ার আক্রমণের বিপক্ষে ন্যূনতম প্রতিরোধও গড়তে পারেনি বাংলাদেশের রক্ষণভাগ। রক্ষণাত্মক কৌশল নিয়েই পুরো ম্যাচটি খেলে বাংলাদেশ। তবে চার ডিফেন্ডার নাসিরুল ইসলাম, তপু বর্মন, ইয়াসিন খান ও লিংকন রক্ষণভাগ আগলে রাখতে ব্যর্থ হন। ৪-০ স্কোরলাইন নিয়ে প্রথমার্ধ শেষ করে তারা।

বলের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখে দুই মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল করে বাংলাদেশকে কোণঠাসা করে ফেলে অস্ট্রেলিয়া। তপু-ইয়াসিনদের ঢিলেমির সুযোগ নিয়ে ষষ্ঠ মিনিটে ডান দিক থেকে কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন ম্যাথু লেকি।

দুই মিনিট পর ব্যবধান দ্বিগুণ করে অস্ট্রেলিয়া। বক্সের মাঝামাঝি থেকে টম রোজিচের নেওয়া শট বাংলাদেশের এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে ঠিকানা খুঁজে নেয়।

২০তম মিনিটে স্কোরলাইন ৩-০ করে স্বাগতিকরা। রোজিচের শট পোস্টের বাইরে দিয়েই যাচ্ছিল। কিন্তু দলকে বিপদমুক্ত করতে যাওয়া তপু বর্মনের গায়ে লেগে বাংলাদেশ গোলরক্ষক শহিদুল আলম সোহেলকে ফাঁকি দিয়ে বল জালে জড়ায়।

২৯তম মিনিটে আবার গোল পায় অস্ট্রেলিয়া। স্বাগতিক দলের এক খেলোয়াড়ের হেড পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেননি সোহেল; ফিরতি শটে বাংলাদেশ গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন নাথান বার্নস।

৩৭তম মিনিটে হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাসকে তুলে নিয়ে মোনায়েম খান রাজুকে মাঠে নামান বাংলাদেশ কোচ। এর তিন মিনিট পরই অস্ট্রেলিয়ার দারুণ একটি আক্রমণ রুখে দেন সোহেল। অস্ট্রেলিয়ার অ্যারন মুইয়ের বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া ফ্রি-কিক ঝাঁপিয়ে পড়ে ঠেকিয়ে দেন তিনি।

প্রথমার্ধের শেষ দিকে নাসিরুল আর দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে অধিনায়ক মামুনুল চোট পান। নাসিরুল আর মাঠে ফিরতে পারেননি; তার বদলে মাঠে নামেন ইয়ামিন আহমেদ চৌধুরী। মামুনুল খেলা চালিয়ে গেলেও মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারেননি।

৬১তম মিনিটে অস্ট্রেলিয়া আরেকটি গোল পেলে বাংলাদেশের বড় ব্যবধানের হার অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। ম্যাথু স্প্রিনাভিচের বাড়ানো বলে বক্সের বাইরে থেকে নিখুঁত শটে গোল করেন মুইয়ের।

এরপরই রোজিচের জায়গায় অধিনায়ক টিম ক্যাহিল আর ম্যাথু লেকির বদলি হিসেবে ইকোনোমিডিস মাঠে নামেন। সাত মিনিট পর ইকোনোমিডিসের হেড ক্রসবারে লেগে প্রতিহত হয়।

৮৫তম মিনিটে আরেকটি অসাধারণ সেভ করেন সোহেল। সতীর্থের ক্রসে জ্যাকস ইরভাইন দারুণ হেড নিয়েছিলেন। ঝাঁপিয়ে পড়ে বলে হাত ছুঁইয়ে দেন সোহেল। এরপর বল পোস্টে লেগে ফিরে আসে।

শেষ দিকে এনামুল হককে তুলে নিয়ে বাতেন মজুমদার কমলকে নামান ‘নিষিদ্ধ’ কোচ লোডভিক ডি ক্রুইফের জায়গায় বাংলাদেশের ডাগ-আউটে দাঁড়ানো সাইফুল বারী টিটো।

গোলবারের নিচে সোহেল অসাধারণ কিছু সেভ না করলে হারটি বাংলাদেশর হারটি আরও বড় ব্যবধানে হতে পারত।

২০১৮ সালের রাশিয়া বিশ্বকাপের এশিয়া অঞ্চলের বাছাইয়ে এখন পর্যন্ত জয়ের মুখ দেখেনি বাংলাদেশ। ‘বি’ গ্রুপে আগের দুই ম্যাচে কিরগিজস্তানের কাছে ৩-১ ব্যবধানে হারের পর তাজিকিস্তানের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছিলেন মামুনুলরা।

অন্যদিকে বাছাই পর্বে অস্ট্রেলিয়ার এটি দ্বিতীয় জয়। কিরগিজস্তানকে ২-১ গোলে হারিয়ে বাছাই পর্ব শুরু করেছিল চারটি বিশ্বকাপে খেলার অভিজ্ঞতাপুষ্ট দলটি।—-সূত্র: সমকাল