আদিলুরকে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া


359 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আদিলুরকে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া
জুলাই ২১, ২০১৭ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
মানবাধিকার সংগঠন অধিকারের সম্পাদক আদিলুর রহমান খান শুভ্রকে মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করতে দেয়নি দেশটির কর্তৃপক্ষ। তাকে বিমানবন্দর থেকেই ফেরত পাঠানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার ভোরে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে আটক করে ইমিগ্রেশন পুলিশ। তবে তাকে আটকের বিষয়ে স্পষ্ট কোনো বক্তব্য দেয়নি কর্তৃপক্ষ। মানবাধিকার বিষয়ক একটি সেমিনারে মালয়েশিয়া গিয়েছিলেন আদিলুর।

অধিকারের পরিচালক নাসির উদ্দিন এলান জানিয়েছেন, বিমানবন্দরে আটকের পর বৃহস্পতিবার রাতের ফ্লাইটেই তিনি ঢাকায় ফেরেন। রাত সাড়ে ১০টায় মালয়েশিয়ান এয়ার লাইন্সের একটি ফ্লাইটে তিনি ঢাকা ফেরেন।

মালয়েশিয়ার নাগরিক সংগঠনগুলো আদিলুর রহমান খানকে আটক করাতে মানবাধিকার রক্ষাকারীদের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়া সরকারের ‘হয়রানি’ বলে আখ্যা দিয়েছে। মালয়েশিয়ার মানবাধিকার কর্মীদের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এতে বলা হয়, অ্যান্টি ডেথ পেনাল্টি এশিয়া নেটওয়ার্ক আয়োজিত দুই দিনব্যাপী একটি সম্মেলনে তার বক্তব্য দেয়ার কথা ছিল।

ভয়েস অব মালয়েশিয়ান পিপল (সুয়ারাম) নামের একটি মানবাধিকার সংগঠন বলেছে, আদিলুরকে বিমানবন্দরের অভিবাসন লক-আপে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় রাখা হয়। সংগঠনটি তার মুক্তির আবেদন জানিয়েছে।

এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, সুয়ারাম আদিলুর রহমান খানকে অবিলম্বে মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছে। একইসঙ্গে এও দাবি জানাচ্ছে যে, অভিবাসন বিভাগ মালয়েশিয়ায় সফররত মানবাধিকার কর্মীদের বিরুদ্ধে তাদের অব্যাহত হয়রানি বন্ধ করুক। এ নিয়ে অভিবাসন কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তাৎক্ষণিকভাবে মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

এএফপি’র খবরে বলা হয়, মালয়েশিয়া প্রায়ই বিদেশি গণতন্ত্রপন্থী কর্মীদের দেশে প্রবেশে বাধা দেয়। এজন্য কোনো কারণ দর্শানো হয় না। এশিয়ান হিউম্যান রাইটস কমিশন আদিলুরের আটকের ঘটনায় হস্তক্ষেপ করতে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে। স্বেচ্ছাচারী আটকাবস্থা থেকে আদিলুর রহমান খানের মুক্তি নিশ্চিত করতে আহ্বান জানিয়েছে সংগঠনটি।

কমিশন আরও বলেছে, বাংলাদেশের সাবেক ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল খানকে আটক করার ঘটনায় তারা উদ্বিগ্ন। এ ঘটনাকে ‘বাংলাদেশ ও মালয়েশিয়ার সরকারের যোগসাজশের ফল’ বলে আখ্যা দেয় কমিশন।

মানবাধিকার সংস্থাটি বলেছে, মালয়েশিয়া আদিলুর রহমান খানকে আইনজীবীর সহায়তা প্রত্যাখ্যান করেছে। অন্য কারো সঙ্গে কথা বলার অধিকার থেকেও তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য যে, গত মাসে সিঙ্গাপুরের মানবাধিকার কর্মী হ্যান হুই হুইকে মালয়েশিয়ায় প্রবেশ করতে দেয়া হয়নি বলে স্থানীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে।