‘আন্তর্জাতিক ব্যাংকিং ব্যবস্থায়ও যুক্তরাষ্ট্রের নজরদারি’


310 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
‘আন্তর্জাতিক ব্যাংকিং ব্যবস্থায়ও যুক্তরাষ্ট্রের নজরদারি’
এপ্রিল ১৫, ২০১৭ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
বিশ্ব অনলাইন ব্যাংকিং ব্যবস্থার মধ্যে ভয়াবহ নিরাপত্তা ত্রুটি প্রকাশ করে দিয়েছে একটি হ্যাকার গ্রুপ। তারা দাবি করছে, এই ত্রুটির তথ্যটি কালোবাজারে ২০ লাখ ডলারে বিক্রি হয়ে থাকতে পারে।

দাবি করা হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল সিকিউরিটি এজেন্সি (এনএসএ) এই টুলটি বানিয়েছিল। তারা মূলত বিশ্বব্যাপী সুইফট কোডের মাধ্যমে লেনদেনগুলো পর্যবেক্ষণের জন্যই এটি তৈরি করে।

এই তথ্য ফাঁস করেছে শ্যাডো ব্রোকার নামে একটি হ্যাকার গ্রুপ। এর আগে তারা আরো একটি ভয়ঙ্কর ম্যালওয়ার প্রকাশ করেছিল। হ্যাকারদের এই তথ্য যদি সঠিক হয় তাহলে ২০১৩ সালে এডওয়ার্ড স্নোডেনের পর এনএসএ এর বিষয়ে সবচে বড় নথি ফাঁসের ঘটনা হবে এটি।

নতুন এই ফাঁস বিষয়ে স্নোডেন টুইটারে মন্তব্যও করেছেন। তিনি এই ঘটনাকে ‘মাদার অব অল এক্সপ্লোইট’ বলে বর্ণনা করেছেন। বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) আফগানিস্তানে আইএসের ঘাঁটিতে যুক্তরাষ্ট্রে ‘মাদার অব অল বম্বস’ ফেলেছে। ওই ঘটনার দিকে ইঙ্গিত করেই এনএসএ এর তথ্য ফাঁসের ঘটনাটিকে তুলনা করেন তিনি।

একাধিক বিশেষজ্ঞ বলছেন, এসব নথি বিশ্বাসযোগ্য। যদিও এনএসএ এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে এবং এ ব্যাপারে আর কোনো কথা বলতে রাজি হয়নি।
এদিকে অনলাইনে অর্থ লেনদেনের নিরাপত্তা দানকারী সংস্থা সুইফটের সদর দফতর থেকে বলা হয়েছে, আমাদের নেটওয়ার্ক অথবা মেসেজিং সার্ভিসে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত অনুপ্রবেশ ঘটেছে বলে প্রমাণ নেই।

সুইফট প্রায়ই হ্যাকারদের সাইবার আক্রমণের লক্ষ্য হয়। তারা একাধিকবার সফলও হয়েছে। গত বছর হ্যাকাররা বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে ৮১০ কোটি ডলার চুরি করে।