আবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিন আর নেই


154 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিন আর নেই
সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

আবু ছালেক ::

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ফিংড়ী ইউনিয়নের দৈনিক দৃষ্টিপাত পএিকার ফিংড়ী প্রতিনিধি মোঃ মনিরুল ইসলাম মিল্টন এর পিতা, জোড়দিয়া শেখপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিন (৭৮)সোমবার ভোর ৩ . ৪৫ মিনিটে স্টকজনিত কারনে তিনি নিজবাড়ী গোবরদাড়ী গ্রামে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্নাইলাহী রজিউন), মৃত্যু কালে তিনি স্ত্রী,২ পুএ, ৩ কন্যা,নাতি নাতনি সহ অসংখ্য গণাগ্রাহী রেখে গেছেন। সোমবার বাদ যোহর তার নিজ বাড়ীতে যানাজা নামাজ শেষে মরহুমকে পারিবারিক কবরস্হানে দাফন করা হয়েছে। যানাজা নামাজে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শেখ মোনায়েম হোসেন, ফিংড়ী ইউনিয়ান আওয়ামী লীগ সভাপতি মোঃ লুৎফর রহমান, সাধারন সম্পাদক সামছুর রহমান, শামিম রেজা সহ স্হানিয় মুসল্লীগন। এ দিকে সাংবাদিকের পিতা, আবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক রুহুল আমিনের মৃত্যুতে গভির শোক ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন সুজন ( সু শাষনের জন্য নাগরিক) সাতক্ষীরা জেলা শাখার সাধারন সম্পাদক প্রভাষক শেখ হেদায়েতুল ইসলাম, সাংবাদিক মো: আবু ছালেক,সিহাব উদ্দীন,শেখ খাবিরুল্লাহ,সেকেন্দার আবু জাফর, শেখ হাসানুর রহমান সহ বিভিন্ন ক্লাবের কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নের্তৃবৃন্দ। শিক্ষক রুহুল আমিন ছিলেন একজন আদর্শ শিক্ষক। চিরকালের জন্য স্বরণ রাখবে তার হাতে গড়া সকল ছাত্র/ ছাত্রীরা, ছাত্র-ছাত্রীর মধ্যে মহিমা তৈরি ও একজন আদর্শ মানুষ হতে তাদের অনুপ্রাণিত করতেন তিনি। তিনি শুধু অভিবাবকই ছিলেন না তিনি ছিলেন তার চেয়েও বেশি, শিক্ষার্থীদের পড়ানোর পাশাপাশি তাদের সাথে তাঁর ছিল এক অন্যরকম সখ্যতা। নিজের জীবন ও পরিবারের চেয়ে শিক্ষার্থীদের প্রতি তাঁর গুরুত্ব ছিল অসীম। শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রেরণা যোগানোই ছিল তাঁর কাজ শিক্ষা ছাড়া যে সমাজ পরিবর্তন করা যায়না তা ভালোভাবে বুঝে ছিলেন রুহুল আমিন স্যার। তাঁর কাছে শিক্ষার্থীরা ছিল শুকনো কাঠের মতো, আর শুকনো কাঠ হচ্ছে আগুন কিন্তু শুকনো কাঠ নিজে নিজে জ¦লেনা কেউ না কেউ তাতে আগুন জ্বালিয়ে দিতে হয়। আর একবার আগুন জ্বালালে তা জ্বলতে থাকে, নেভেনা। রুহুল আমিন স্যার শিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব কালে অসংখ্য শুকনো কাঠে আগুন জ্বালিয়েছেন, তার ছাত্র-ছাত্রীরা জ্বলে ওঠেছে। তার হাতে গড়া শিক্ষার্থীরা এখন অনেকে সরকারি বে সরকারি চাকরি করছে, তিনি ছিলেন একজন আদর্শবান শিক্ষক,তার স্বৃতি চিরস্বরনিয় হয়ে থাকবে এমন প্রত্যাশা করেন সর্বস্তর জনগন।