আবেগঘন পরিবেশে বিদায় নিলেন শিক্ষার দুই মন্ত্রী


259 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আবেগঘন পরিবেশে বিদায় নিলেন শিক্ষার দুই মন্ত্রী
জানুয়ারি ৭, ২০১৯ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

আবেগঘন পরিবেশে নিজ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কাছ থেকে বিদায় নিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। সোমবার সকালে সচিবালয়ে নিজ নিজ মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত বিদায়ী সভায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যেতে আহ্বান জানান তারা। দুই মন্ত্রীই তাদের দপ্তরের নতুন মন্ত্রীদের শুভেচ্ছা জানান।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ তার বক্তৃতায় বলেন, আগামীতে শেখ হাসিনার একজন কর্মী হিসেবে কাজ করে যাব। মন্ত্রিসভার নতুন সদস্যদের স্বাগত জানিয়ে তিনি বলেন, পুরনোরা না সরলে নতুনদের জায়গা হবে কিভাবে। অন্যদিকে, প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশে বলেন, আমাকে আপনারা যেভাবে সহযোগিতা করেছেন, নতুন মন্ত্রীকেও সেভাবেই সহযোগিতা করবেন, যাতে মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সকাল সাড়ে ১১টায় শিক্ষামন্ত্রীকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়া হয়। বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও মন্ত্রণালয়ের অধীন সব দপ্তরের কর্মকর্তারাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বিদায়ী শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এ সভায় সবার সহযোগিতা ও ভালোবাসা পাওয়ায় মন্ত্রণালয়, দপ্তর, অধিদপ্তর ও সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। মন্ত্রণালয়ে উন্নয়ন অগ্রগতির ধারাবাহিকতা রক্ষায় তাদের অবদান রাখার আহ্বান জানান তিনি।

নাহিদ বলেন, আমার যে কৃতিত্ব, তা আপনাদের সবার। আমি যা নই, তার চেয়ে প্রধানমন্ত্রী আমাকে বেশি দায়িত্ব দিয়েছেন। তিনি দায়িত্ব দিয়েছেন বলেই আমার এ কৃতিত্ব। তবে এ কৃতিত্ব সবার। আমি আমার দায়িত্ব নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করার চেষ্টা করেছি। শিক্ষা পরিবারের সবার সহযোগিতায় আমরা একটি পর্যায়ে পৌঁছেছি। এটা সবার অবদান।

তিনি আরও বলেন, নতুন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি একজন অভিজ্ঞ বিচক্ষণ মানুষ। শিক্ষা পরিবারের যে অগ্রগতি, তা তিনি এগিয়ে নিয়ে যাবেন। আপনারা সবাই তাকে সহযোগিতা করবেন। গত ১০ বছরের সফলতার ধারাবাহিকতা রক্ষা করবেন বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি।

মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, কেউ আবদার নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর কাছে গেলে তিনি বলতেন, আপনারা কেউ সচিবের কাছে যাবেন না। শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে কখনও দ্বিমত হয়নি আমার। শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অবদান তুলে ধরে মো. সোহরাব হোসাইন বলেন, বাংলাদেশ চার বিষয়ে শ্রেষ্ঠ হয়েছে। এর মধ্যে দুটিই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের।

নতুন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির বিষয়ে সোহরাব হোসাইন বলেন, তিনি জ্ঞান ও প্রজ্ঞাসম্পন্ন ভালো মানুষ। তার অনেক সফলতা রয়েছে। শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে যে উচ্চতায় নেওয়া প্রয়োজন, তা তিনি পূরণ করতে পারবেন।

নতুন মন্ত্রীকে সহযোগিতার আহ্বান ফিজারের: নতুন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে তার মতো করেই সহযোগিতা করার আহ্বান জানিয়েছেন সদ্য বিদায়ী প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার। সোমবার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বিদায় অনুষ্ঠানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশে তিনি এ আহ্বান জানান। দুপুরে মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে মোস্তাফিজুর রহমানকে আনুষ্ঠানিক বিদায় জানাতে সংবর্ধনা জানানো হয়। মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার বলেন, আমাকে আপনারা যেভাবে সহযোগিতা করেছেন, নতুন মন্ত্রীকে সেভাবেই সহযোগিতা করবেন, যাতে মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন অগ্রগতির ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকে। তিনি অনেক অভিজ্ঞ।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ও এর অধীন অধিদপ্তর ও সংস্থার প্রধানরা মোস্তাফিজুর রহমানকে ফুলের তোড়া দিয়ে বিদায়ী সংবর্ধনা জানান।