আমার বর্তমানকে উৎসর্গ করেছি তরুণদের ভবিষ্যতের জন্য : প্রধানমন্ত্রী


340 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আমার বর্তমানকে উৎসর্গ করেছি তরুণদের ভবিষ্যতের জন্য : প্রধানমন্ত্রী
অক্টোবর ২১, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::
তরুণ প্রজন্মের সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য নিজের বর্তমানকে উৎসর্গ করেছেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তার সরকার বর্তমান পরিবর্তনশীল বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার জন্য সম্ভাব্য সবধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

মোবাইল ফোন নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর বদলের সেবা ‘মোবাইল নাম্বার পোর্টেবিলিটি’ (এমএনপি)’ উদ্বোধন উপলক্ষে রোববার সকালে গণভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমার বর্তমানকে আমি উৎসর্গ করেছি তরুণ প্রজন্মের সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য, তারাই ভবিষ্যতের বাংলাদেশ গড়বে। যতক্ষণ ক্ষমতায় আছি পরিবর্তিত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের পদক্ষেপই গ্রহণ করবো।’

তিনি বলেন, ‘আমি আমার বর্তমানকে উৎসর্গ করছি তরুণদের ভবিষ্যতের জন্য। আমাদের বর্তমান, আমরা তো চলেই যাচ্ছি। আমাদের বর্তমানে যতটুকু কাজ আমরা এগুতে পারি সেটা আমরা উৎসর্গ করেছি তরুণ প্রজন্মের জন্য। তারা আমাদের ভবিষ্যতকে গড়ে তুলবে, এগিয়ে নিয়ে যাবে। এই চলার গতিটা যেনো কখনো থেমে না যায়।’

তরুণদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের ছেলে-মেয়েদের এটাই বলবো যে, মনযোগ দিয়ে লেখাপড়া শিখতে হবে। আর প্রযুক্তি ব্যবহারে আরো অভ্যস্ত হতে হবে। প্রযুক্তির ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হচ্ছে। যতদিন যায় প্রতিনিয়ত আধুনিক প্রযুক্তি বের হয়।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা যতদিন ক্ষমতায় আছি এই পরিবর্তনশীল বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলার জন্য যা যা পদক্ষেপ নেয়া দরকার সেই পদক্ষেপগুলো আমরা নেবো।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যাম সুন্দর সিকদার অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

বিটিআরসি চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন এবং প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ, নাহিন রাজ্জাক এমপি এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও গণভবনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং মোবাইল অপারেটর সার্ভিসের কর্মকর্তাবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে এমএনপি সার্ভিসের ওপর একটি ভিডিও চিত্র প্রদর্শিত হয়।

বহুল প্রতীক্ষিত এই এমএনপি সার্ভিসের রোববার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলেও পরীক্ষামূলকভাবে ১ অক্টোবর থেকে দেশে এর বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরু হয়। বিশ্বে ৭২তম দেশ হিসেবে বাংলাদেশে এই সেবা চালু হয়।