আশাশুনিকে ভিক্ষুকমুক্ত উপজেলায় পরিণত করতে সবকিছু করা হবে….. জেলা প্রশাসক


329 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিকে ভিক্ষুকমুক্ত উপজেলায় পরিণত করতে সবকিছু করা হবে….. জেলা প্রশাসক
ডিসেম্বর ১২, ২০১৬ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস.কে হাসান :

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মোঃ মহিউদ্দিন বলেছেন, সরকার অসহায় মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। নারীর ক্ষমতায়ন, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়া, সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ সকল ক্ষেত্রে সরকার সফলভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

১০ টাকা কেজি চাউলের মূল্য করার ঘোষণাকে ব্যাঙ্গ করা হলেও আজকে সেই ওয়াদা বাস্তবায়ন করা হয়েছে। সাতক্ষীরার মধ্যে সবচেয়ে বেশী অবহেলিত উপজেলা আশাশুনি। এখানে প্রতিবছর ওয়াপদার বাঁধ ভাঙ্গে, সড়কগুলো চলাচল অনুপযোগি হয়ে পড়েছে।

আশাশুনির উন্নয়নে আমরা অগ্রাধিকার দিতে চাই। গৃহহীন, দুরাবস্থাগ্রস্থ মানুষের গৃহ নির্মান করে দেওয়ার মাষ্টার প্লান আছে আমাদের।

সরকারের ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে অনেক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। আশা করা যায় ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে ধনী রাষ্ট্রে পরিণত হবে আমাদের বাংলাদেশ। আশাশুনিতে ভিক্ষুকমুক্ত করার জন্য ব্যাপক কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে। কোন সামর্থবান মানুষ ভিক্ষা করলে তাকে জেলে পাঠানো হবে।

দেশকে ভিক্ষুখমুক্ত করতে আমরা সবকিছু করতে চাই। সোমবার আশাশুনিকে ভিক্ষুকমুক্তকরণ, ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থান ও পুনর্বাসন কর্মসূচি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উপরকরণ বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সুষমা সুলতানার সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ’লীগ সভাপতি এবিএম মোস্তাকিম, জেলা তথ্য অফিসার শেখ শাহনেওয়াজ করিম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আঃ

হান্নান, আশাশুনি প্রেসক্লাব উপদেষ্টা একেএম এমদাদুল হক, সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, ইউপি এসএম রফিকুল ইসলাম, আলমগীর আলম লিটন, প্রভাষক মোনায়েম হোসেন, স ম সেলিম রেজা মিলন, আবু হেনা সাকিল, ইঞ্জিঃ আ ব ম মোসাদ্দেক ও আঃ আলিম মোল্যা। জেলা তথ্য অফিসের ঘোষক মনিরুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে

চারজন ভিক্ষুককে ৪টি ভ্যান, ১১ জনকে ১১টি ছাগল ও ৬৪ জন ভিক্ষুককে ৪টি করে ২৫৬টি মুরগী প্রদান করা হয়। বুধহাটার ৪৯ জন, আশাশুনি সদরের ২৪ ও শোভনালী ইউনিয়নের ৬ জন ভিক্ষুককে তাদের চাহিদা মোতাবেক এই উপকরণ প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য আশাশুনি উপজেলায় ৫৭৬ জন ভিক্ষুক রয়েছে।

ভিক্ষাবৃত্তি থেকে ফিরিয়ে আনতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকলের সাথে কথা বলে তাদের চাহিদা মোতাবেক উপকরন বিতরণ করা হচ্ছে।
##