আশাশুনিতে আইন-শৃংখলা রক্ষা করে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন ওসি


285 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিতে আইন-শৃংখলা রক্ষা করে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন ওসি
অক্টোবর ৪, ২০২০ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::

আশাশুনিতে অল্প কিছুদিন হলো অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করেছেন ওসি মোঃ গোলাম কবির। তিনি ওসি হিসেবে আশাশুনিতে যোগদানের কিছু দিনের মধ্যে পাল্টে ফেলেন থানার সার্বিক চিত্র। পুলিশিং সেবা মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে তিনি প্রত্যেকটা ইউনিয়নে বিট পুলিশিং কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। গত (৭ই জুন) অফিসার ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করার পর মাদক,জুয়া,ইভটিজিং সহ সকল অপরাধ দমন করে থানার আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সাহসী ভূমিকা পালন করেছেন। আশাশুনি থানার বিভিন্ন এলেকায় ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালানো হয় যে থানায় মামলা রেকর্ড , জিডি, অভিযোগ সহ কোন কিছতে টাকা লাগে না। ইতি মধ্যে তিনি সেগুলাকে বাস্তবায়ন করে মানুষের মনে জায়গা করে নিয়েছেন। আশাশুনি থানায় শত্রুতামূলক ক্ষুদ্রতম এবং জায়গা জমির সংক্রান্ত অভিযোগ দিলে তিনি অফিসার পাঠিয়ে তদন্ত করেন প্রয়োজনে সরোজমিনে নিজেই যেয়ে তদন্ত পূর্বক সত্য মিথ্যা যাচাই করে ব্যবস্থ গ্রহন করেন। তিনি মিথ্যা অভিযোগের ভিত্তিতে অহেতুক মানুকে হয়রানি থেকে বিরত থাকেন বলে জানিয়েছেন ভুক্তভুগিরা। বুধহাটা গ্রামের ভ্যান চালক আরিফুল ইসলাম জানান, আমি পারিবারিক একটা সমস্যা নিয়ে আশাশুনি থানায় একটা অভিযোগ গেলে ওসি স্যার আমার সব কথা শুনে তাদের সাথে আমার মিমাংসা করে দেন এবং থানা থেকে আমাকে কিছু ত্রান সমগ্রী দেয়। কুল্যা গ্রামের হতদরিদ্র রজিনা খাতুন জানায় আমার স্বামী আমার ভরনপোষন দেয়না,আমি ওসি স্যারকে জানালে তিনি নিজ খরজে আমার অভিযোগ লেখার ব্যবস্থা করে দেন এবং আমার স্বামীর সাথে আমার মিমাংসা করে দেন । আশাশুনি থানা এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান বর্তমান ওসি সাহেব অতান্ত সৎ মানুষ, কোন ব্যক্তি থানায় আসলে ওসির রুম থেকে দেখা না করে যেতে পারেন না ।
তিনি আশাশুনিতে যোগদান করার পর মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ, জুয়া ও চোর-ডাকাতিসহ বিভিন্ন অপকর্ম নির্মূল হয়েছে। তারা আরো জানান প্রতিদিন ওসি সাহেব বাসার ফেরার সময় থানায় সামনে থেকে দেখে যায় কের তার জন্য অপেক্ষা করছে কিনা। এখন আর কেউ থানায় আসতে ভয় পায়না ।