আশাশুনিতে বিভিন্ন মোবাই কোম্পানির নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে, বেড়েছে ভোগান্তি


628 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিতে বিভিন্ন মোবাই কোম্পানির নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে, বেড়েছে ভোগান্তি
জুলাই ৬, ২০১৫ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি :
আশাশুনিতে  বিবিন্ন মোবাইল কোম্পানির নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে। আপলোড এবং ডাউনলোড স্পিট দীর্ঘ দিন যাবৎ একেবারেই সর্ব নি¤œ পর্যায়ে চলে এসেছে। এমনকি ফোনে কথা বলার সময়ও কল ড্রফ হয়ে যাচ্ছে বেশিভাগ সময়। বাংলাদেশের সকল প্রান্তে নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা আশানুূরুপ পরিবর্তন হলেও কোন অবস্থাতেই অবহেলিত আশাশুনিতে নেট ওয়ার্ক ব্যবস্থা উন্নতি হচ্ছেনা। বরং দিন দিন আরও দুর্বল হয়ে পড়ছে।
বর্তমান যুগ আধুনিক প্রযুক্তির। যুগের সাথে তাল মিলিয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ ঘোষনার পর তথ্যপ্রযুক্তি উপর নির্ভশীল হয়ে পড়ছে দেশ। টু-জি থেকে থ্রি-জি নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা উন্নীর্ত হলেও আশাশুনির কোন পরিবর্তন হয়নি। বরং পূর্বের চেয়ে আরও খারাপ অবস্থা বিরাজ করছে। উপজেলার সদরের গ্রামীণ ফোন, বাংলালিক, রবি ও সিটিসেল এবং টেলিটক এর একটি করে টাওয়ার থাকলেও এ সকলের কেহউ একখন পর্যন্ত থ্রি-জি নেট ওয়ার্ককে উন্নিত করতে পারেনি। তবে গ্রামীণফোন, সিটিসেল হেলপ লাইনে যোগাযোগ করলে তারা দীর্ঘদিন ধরে শুধু আশার বাণী শুনিয়ে যাচ্ছেন। ‘স্যার একটু সময় লাগবে থ্রি-জি অবশ্যই পাবেন……….’।
ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের সাথে কথাবলে জানাযায়, তারা ১টি ই-মেইল করতে যেয়ে সর্বনি¤œ আধা ঘন্টা থেকে  ঘন্টা পর্যন্ত সময় লেগে যাচ্ছে। ইন্টারনেট নির্ভলশীল বেকার যুবক যুবতীরাও আশাশুনিতে তাদের চাকুরীর ফরম পুরণের জন্য বাজারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ঘুরে ঘুরে না পেরে চলে যাচ্ছে সাতক্ষীরা জেলা সদরে। ভোগান্তি তে পড়েছে ই-মেইল, ফেসবুক, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, গ্রাহকরা। বিভিন্ন স্কুল-ম্রাদাসা ও কলেজ শিক্ষকদের সাথে কথা বলে জানাগেছে, অনলাইন কার্যক্রম ও একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি করতে যেয়ে হিমশিম খেতে হচ্ছে। আশাশুনিতে বিগত ডিজিটাল মেলায় উপস্থিত হয়েছিলের সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক। এ সময় সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান ও ইনটারনেটকাজে সংশ্লিষ্টরা বিষয়টি জেলা প্রশাসককে অবহিত করলে তিনি সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দিলেও তা একনও বাস্তবায়ন হয়নি। দ্রুত থ্রি-জি নেটওয়ার্ক চালু এবং নেটওয়ার্ক সমস্যা সমধাণের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তেক্ষেপ কামনা করেছেনর এলাকাবাসী।