আশাশুনিতে বোনদের বঞ্চিত করে মস্তিস্ক বিকৃত পিতার জমি রেজিস্ট্রী


125 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিতে বোনদের বঞ্চিত করে মস্তিস্ক বিকৃত পিতার জমি রেজিস্ট্রী
মে ২৭, ২০১৯ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::

আশাশুনিতে মস্তিস্ক বিকৃত পিতার কাছ থেকে তঞ্চকিকতার সাথে মেয়েদের বঞ্চিত করে ভাইয়েরা সমুদয় জমি রেজিস্ট্রী করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এব্যাপারে মেয়ে ও জামাইরা প্রতিকার প্রার্থনা করে সাব রেজিস্ট্রারসহ সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সোমবার দুপুরে আশাশুনি প্রেসক্লাবে এসংবাদ সম্মেলন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে শ্রীকলস গ্রামের আব্দুল গফুর সরদারের (৭৫) কন্যা পাপিয়া খাতুন, আম্বিয়া খাতুন, রোজিনা খাতুনের স্বামী সাইদুল ইসলাম জানান, তাদের পিতা/শ^শুর দীর্ঘ ৯ বছর যাবৎ শারিরীক ও মানসিক ভাবে অসুস্থ। তার মস্তিস্ক বিকৃতি ঘটেছে। কখন কি বলেন, কি করেন, তার কোন হিসেব থাকেনা। গফুর সরদারের ৫ কন্যা ও ২ পুত্র সন্তান রয়েছে। তার নামে ১৬ বিঘা জমি ছিল। তাদের দু’ভাই আঃ রাজ্জাক ও আবু হাসান পিতার অসুস্থতার সুযোগে ৫ বোনকে সম্পূর্ণভাবে বঞ্চিত করে গোপনে তঞ্চকী ও বেআইনী দলীলের ব্যবস্থা করেন। দলিল লেখক আহসান হাবিবের সেরেস্তায় দলিল লিখে সাব-রেজিস্ট্রারকে দিয়ে সম্পূর্ণ জমি হেবা দলিল করে নেওয়া হয়। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ তারিখে দলিল রেজিস্ট্রী করান হয়, যার নং ২৬২৭/২০১৮। বঞ্চিত মেয়েরা জানতে পেরে বিভিন্ন স্থানে প্রতিকারের চেষ্টা করেও কোন কুল কিনারা করতে পারেনি। সাব রেজিস্ট্রী অফিসে গেলেও তাদেরকে পাত্তা দেওয়া হয়নি। বাধ্য হয়ে তারা উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আসমাউল হুসাইনকে জানালে তিনি দলিল দেখে ও শুনে ২৬/০৫/১৯ তাং তাদরেকে সাথে নিয়ে, সাব রেজিস্ট্রিী অফিসে গিয়ে মস্তিস্ক বিকৃত পিতার সমুদয় সম্পত্তি ভাইয়েরা লিখে নিয়েছে বিষয়টি কি করা যায়, তা জানতে চান। সাব রেজিস্ট্রার কোন সদুত্তর না দিয়ে, তিনি কোন কৈফিয়ত দিতে পারবেননা বলে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এনিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সাব রেজিস্ট্রার মোবাইলে কয়েকজন দলিল লেখককে ডেকে নিয়ে খাস কামরায় গোপনে কথা বলে উল্টো ছাত্রলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ করেন। তারা তাদের ন্যায্য পৈত্রিক সম্পত্তি হতে তঞ্চকতা করে বঞ্চিত করার প্রতিকার প্রার্থনার পাশাপাশি দুর্নীতিবাজ সাব রেজিস্ট্রার এবং দুর্নীতি পরায়ন দলিল লেখকদের বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন।