আশাশুনিতে মুক্তিযোদ্ধার ভোগ দখলীয় ২৯ একর জমি জবরদখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন


396 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিতে মুক্তিযোদ্ধার ভোগ দখলীয় ২৯ একর জমি জবরদখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন
আগস্ট ১৪, ২০১৬ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

মনজুর কাদীর পলাশ :
সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় এক মুক্তিযোদ্ধার ভোগ দখলীয় ২৯ একর জমি জবরদখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে উপজেলার তুয়ারডাঙ্গা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা রজব আলী মোল্ল্যা এই অভিযোগ করেন।

এ সময় লিখিত বক্তব্যে বলা হয়,  ডিএস রেকর্ডীয় মালিক গয়রাতুল্লার কাছ থেকে কোবলা মূলে দ্বারিক মন্ডল, বাজারী মন্ডল ও কার্তিক সরদারের কাছ থেকে ফকরাবাদ মৌজার জেএল-৯৮ ডিএস ২০৩, ২১৫ ও ২১৬ খতিয়ানের ৯২৩, ৯২৪, ৯৩২, ৯২৫, ৯২৮ ও ৯৩০ দাগে ২৯ একর জমি কট কোবলা মূলে ক্রয় করেন রজব আলী মোল্ল্যার পিতা মৃত তফিল উদ্দিন মোল্ল্যা। সেই থেকে শতাধিক বছর ধরে ওই জমি খাজনা পরিশোধসহ ভোগ দখল করে আসছেন তফিল উদ্দিন মোল্ল্যাসহ তার ওয়ারেশগণ। যেখানে তারা ১০ ঘর প্রজা বসিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলন বলা হয়, বিগত সেটেলমেন্ট জরিপে ৩০ ও ৩১ ধারায় ওই জমি রজব আলী মোল্ল্যাসহ শরীকদের নামে রেকর্ড হয়। সম্প্রতি ৩১ ধারায় রায়ের বিরুদ্ধে তুয়ারডাঙ্গা গ্রামের কলিমউদ্দিন মোল্লার ছেলে সামছুল হুদাসহ কয়েকজন ওই জমি তাদের দাবি করে খুলনা জোনাল অফিসে রিভিউ আবেদন করেন। কিন্তু জোনাল অফিসার আইন কানুনের তোয়াক্কা না করে রিভিউ আবেদনটি মঞ্জুর করে। এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে ১৩৫৮২ নং রিট পিটিশন করা হয়। হাইকোর্ট ওই জমিতে স্থিতিবস্থা ও বিবাদীদের বিরুদ্ধে রুল জারি করেন। তারপরও সামছুল হুদা ও তার সহযোগী জাকির হোসেনের সহযোগিতায় ওই জমি জবরদখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছে। এতে বাধা দেওয়ায় রজব আলী মোল্ল্যাসহ তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা ও মামলায় জড়ানোর হুমকি দিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি জবরদখলের চেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। #