আশাশুনিতে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন : দল থেকে মোস্তাকিমের বহিস্কার দাবি


553 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনিতে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন : দল থেকে মোস্তাকিমের বহিস্কার দাবি
মার্চ ২৫, ২০১৬ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার  :
নৌকায় ভোট দেয়ায় সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলার ঠাকুরাবাদ, গাইয়াখালি, হাসখালী ও বলাবাড়িয়া এলাকার সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা-নির্যাতনের প্রতিবাদে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Exif_JPEG_420

শুক্রবার দুপুরে এক জনার্কীন সংবাদ সম্মেলনে এলাবাবাসীর পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন পিন্টু লাল মন্ডল। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আগে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান সম সেলিম রেজা  মিলনের লোকজন মিছিল করে স্লোগান দেয় উপজেলা চেয়ারম্যান মুস্তাকিমের মার্কা চশমা মার্কা। ভোটের আগে আমাদের হুমকি দেয়া হয়েছিল চশমায় ভোট না দিলে এলাকা ছাড়া হবে। এখন করাও হচ্ছে তাই। তিনি বলেন, আমরা যারা নৌকার পক্ষে কাজ করেছি তাদের বাড়ি-ঘর ভাঙচুর, মারপিট, মহিলা ও শিশুদের লাঞ্ছিত ও ঘেরের মাছ লুটপাটসহ এলাকা ছাড়তে বাধ্য করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে বলবাড়িয়া গ্রামের ডা. সুশীল চন্দ্র মন্ডল মৃত্যু ভয়ে ভারতে চলে গেছেন।

941074_591496567671191_7905075188368039424_n
তিনি আরও বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিমের নির্দেশে ও নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মিলনের নেতৃত্বে মঙ্গল চন্দ্র মন্ডল, সমরেশ সানা, রবীন্দ্রসাথ সানা, জনার্দন সানা, কার্তিক সরদার, উপজেলা চেয়ারম্যান মুস্তাকিমের ঘেরের কর্মচারী মনিরুল, আছাদুল, সুকৃতি সানা, প্রিয়ব্রত সরদার, বিশ্বজিৎ সানা, সঞ্জয় মন্ডল, তারক চন্দ্র মন্ডল, সঞ্জিত সানাসহ ৪০/৫০জন তাদের উপর হামলা অব্যাহত রয়েছে।

Exif_JPEG_420

Exif_JPEG_420

সংবাদ সম্মেলনে তাদের উপর হামলা-নির্যাতনের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করে বিচার, প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বরাষ্ট মন্ত্রী ও প্রশাসনের দৃষ্ঠি আকর্ষন এবং এবিএম মুস্তাকিমকে আশাশৃুন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে ওই এলাকায় কয়েকশ’ নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।
###