আশাশুনির কুল্যায় ইউএনও পরিচয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ


167 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির কুল্যায় ইউএনও পরিচয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগ
জুন ১৭, ২০২১ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস কে হাসান ::

আশাশুনির কুল্যায় করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউনে দোকান খোলা রাখা নিয়ে ভীতি সৃষ্টি করে মিষ্টি ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ইউএনও পরিচয় দিয়ে মোবাইলে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
কুল্যা ইউনিয়নের গুনাকরকাটি বাজারে অর্ঘ্য মিষ্টান্ন ভান্ডার, সততা সুইটস, জগবন্ধু সুইটস ও ইয়াছিন হোটেলের মালিকরা করোনা কারনে লকডাউন ঘোষণার পর থেকে সরকারি নির্দেশ মেনে দোকান পরিচালনা করে আসছেন। বুধবার সকালে ০১৬১০৪৭৩১৮৮ নং মোবাইল সিম ব্যবহার করে নিজেকে ইউএনও পরিচয় দিয়ে মেম্বার আঃ মাজেদের কাছে রিং করে। এরপর মেম্বার ইব্রাহিমের নং নিয়ে রিং করলে না ধরলে আবার মেম্বার মাজেদকে বললে সে মেম্বারকে নং দেয়। মেম্বার ইব্রাহিম ঐ নম্বরে কথা বললে অপর প্রান্ত থেকে ইউএনও পরিচয় দিয়ে স্থানীয় হোটেল রেষ্টুরেন্টের সাথে কথা বলিয়ে দিতে বললে তিনি তাদের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেন।
পরে ইউএনও পরিচয়দানকারী প্রতারক নানা ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা দাবী করে। টাকা দিলে তারা নির্বিঘেœ দোকান খুলে ব্যবসা করতে পারবে অন্যথায় মোবাইল কোর্ট করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ভয় দেখানোর পর অমল (অর্ঘ্য মিষ্টান্ন ভান্ডার) ৩০০০ টাকা ও চিত্ত বিশ্বাস (সততা সুইটস) ৭০০০ টাকা তাদের বিকাশ একাইন্টে পাঠায়। বিষয়টি এককান দুকান হতে হতে জানাজানি হয়ে গেলে ভুয়া ইউএনও সেজে চাঁদাবাজীর বিষয়টি প্রকাশ হয়ে পড়ে। সাথে সাথে ইউএনও আশাশুনি ও আশাশুনি থানাকে অবহিত করা হয়। এব্যাপারে ব্যবসায়ীরা থানায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগ করেছেন।
ইউপি সদস্য ইব্রাহিম হোসেন জানান, আমি খুবই অসুস্থ। মেম্বার আঃ মাজেদের কাছ থেকে নাম্বার পেয়ে ইউএনও স্যার ভেবে কথা বলি এবং ব্যবসায়ীদের সাথে যোগাযোগ করিয়ে দেই। ভূয়া ইউএনও সেজে প্রতারনা করা হয়েছে জানার সাথে সাথে ইউএনও স্যারকে অবহিত করি। ব্যবসায়ীরা ইউএনও সেজে টাকা দাবীর ঘটনার কথা সাংবাদিকদের কাছে স্বীকার করেছেন। বিষয়টি ওসি আশাশুনিকে জানানো হেয়েছে বলে তারা জানান।
উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবহিত করলে তিনি মোবাইল নং নেন এবং ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সাংবাদিকদের জানান।

#