আশাশুনির খাজরা ও তালার মাদরায় চলছেউলঙ্গ নৃত্য : জেলা প্রশাসক ব্যবস্থা নিন


1156 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির খাজরা ও তালার মাদরায় চলছেউলঙ্গ নৃত্য : জেলা প্রশাসক ব্যবস্থা নিন
মার্চ ১৬, ২০১৭ আশাশুনি তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার  ::
আশাশুনির খাজরায় যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য ও রাত ভর জুয়ার আসর চলায় আইন শৃংঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে উঠটি বয়সের যুবকরা এসে এসব নৃত্যের পাশাপাশি  জুয়ার আসরে অংশ গ্রহন করছে।

ফলে জুয়ার টাকা যোগাড় করতে এলাকায় চুরিসহ বিভিন্ন আপরাধ মূলক কর্মকান্ডের  সংখ্যা বেড়েছে।  উলঙ্গ নৃত্যের ফলে যুব সমাজ ধ্বংস হচ্ছে।

এদিকে, তালা উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের মাদরায় একই ভাবে শুরু হয়েছে যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য। স্থানীয় বিষয়টি তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তালা থানার ওসিকে বিষয়টি জানিয়েছে। কিন্তু বন্ধ হয়নি যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য ও জুয়ার আসর।

সুত্রে জানা গেছে, খাজরা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের সোনা চৌকিদারের বাড়ির এলাকায় ১০দিনের অনুমতি নিয়ে চলছে দি চ্যালেঞ্জার যাত্রা। ১ম দুইদিন বৃষ্টিতে বন্ধ থাকলেও ১৩মার্চ থেকে চলছে নিয়মিত যাত্রা।

নাম প্রকাশ না করার সত্যে একাধিক ব্যক্তি জানায়, দি চ্যালেঞ্জার যাত্রা আয়োজন করেছে এলাকার কিছু দুর্ধর্ষ প্রকৃতির ছেলেরা আর সহযোগি হিসেবে সাথে প্রশাসনকে ম্যানেজ করতে রাখা হয়েছে একজন মুক্তিযোদ্ধাকেও। যার ফলে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছে না কেউ ।

তারা আরো জানায়, যাত্রার মেয়েরা নাচতে নাচতে উলঙ্গ হয়ে যাচ্ছে। এমনকি মেয়েদের শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ হাত দিয়ে ৫শত থেকে ১হাজার টাকার নোট দিচ্ছে দর্শকরা। আর এসব উলঙ্গ নৃত্য দেখতে কয়রা, পাইকগাছা আশাশুনি, শ্যামনগর সহ বিভিন্ন এলাকার উঠটি বয়সের শতশত যুবকরা ভীড় করছে। পাশাপশি রাত ভোর চলছে জুয়ার আসর।

যার ফলে এসব টাকা জোগার করতে  চুরিসহ বিভিন্ন আপরাধ মূলক কর্মকান্ডের সংঙ্কা বেড়েছে। এদিকে পুলিশ প্রশসনের সামনে এসব ঘটনা ঘটলেও কোন ভুমিকা না থাকায় সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

আশাশুনি থানার ওসি শাহিদুল রহমান শাহিন জানান, যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্যের  কথা আমার জানা নেই, কেউ কোন অভিযোগ করেনি। ওরা ডিসি অফিস থেকে পাশ নিয়ে চালাচ্ছে। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো: মহিউদ্দীন জানান, বিষয়টি আমরা তদন্ত করছি। অভিযোগ সত্য হলে যাত্রা বন্ধ করে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য গত বছর একই স্থানে যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য, জুয়ার আসরসহ টাকার  বিনিময়ে দেহ ব্যবসা করার অভিযোগে সাবেক এসপি মঞ্জুরুল কবিরের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ১৭জনকে আটকসহ যাত্রার মালামাল জব্দ করা হয় । পরদিন পুলিশ বাদি হয়ে ৯৪জনকে আসামী করে আশাশুনি থানায় মামলা হয়। যেটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

এদিকে, তালা উপজেলার মাগুরা ইউনিয়নের মাদরায় একই ভাবে শুরু হয়েছে যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য।  বিষয়টি তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও তালা থানার ওসিকে বিষয়টি জানিয়েছে। কিন্তু বন্ধ হয়নি যাত্রার নামে উলঙ্গ নৃত্য ও জুয়ার আসর।

স্থানীয়রা জানায় ওয়ার্কার্স পার্টির স্থানীয় এক নেতা উলঙ্গ নৃত্যের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

এ ব্যাপারে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

##