আশাশুনির চেয়ারম্যান লিটনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন


223 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির চেয়ারম্যান লিটনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির প্রতিবাদে মানববন্ধন
সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আসাদুজ্জামান :
অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারের কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে সম্পদের পাহাড় গড়ে তোলার অভিযোগে সাতক্ষীরার আশাশুনির আনুলিয়ার ইউপি চেয়ারম্যান আলমগীর আলম লিটনের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে ভুক্তভোগি এলাকাবাসী। বুধবার বেলা ১১টায় আনুলিয়া ইউনিয়নের একসরা বাজারে এই কর্মসূচি পালিত হয়। পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে প্রায় ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনে সহাস্রাধিক এলাকাবাসী অংশ গ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আশাশুনির বিছট গ্রামের রশিদুল আলমের ছেলে ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আলমগীর আলম লিটন ২০১১ ও ২০১৬ সালে ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সরকারের কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন। অবৈধভাবে উপার্জিত টাকা দিয়ে সাতক্ষীরা শহরের সুলতানপুরে গড়ে তুলেছেন আলিশান চারতলা বাড়ি। পাশেই কিনেছেন আরো একটি প্লট। বিছট গ্রামে পাউবো’র জায়গা দখল করে পিতার নামে বানিয়েছেন দোতালা বাড়ি। অবৈধভাবে উপার্জিত অর্থ ব্যয় করে এলাকায় গড়ে তুলেছেন একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। তার এই সন্ত্রাসী বাহিনীর ভয়ে এলাকার সাধারণ মানুষ সব সময় ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে থাকে। ফলে কেউ তার এসব অপরাধের প্রতিবাদ করতে সাহস পায়না। তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললে সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে তাকে মারপিট করে মিথ্যে মামলা দিয়ে হয়রানি করা হয়।

বক্তারা আরো বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের অধীনে কর্মসৃজন কর্মসূচি প্রকল্প, কাবিটা, কাবিখা, এলজি, এসপি, এডিপিসহ বিভিন্ন প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রামীণ জনগোষ্টির আত্মসামাজিক উন্নয়নের লক্ষে বর্তমান সরকার কোটি কোটি টাকা বরাদ্দ দিচ্ছেন। কিন্তু চেয়ারম্যান লিটন দায়িত্বপ্রাপ্ত অসাধু সরকারি কর্মচারীদের যোগসাজসে উল্লে¬খিত প্রকল্পের টাকা কাজ না করে নিজেই আত্মসাৎ করেছেন। ইউপি সদস্য জিয়ারুল, শওকত সানা, ভূয়া ইউপি সদস্য আলম হোসেন, সফিকুল ইসলাম মুকুল ও তার স্ত্রী ভূয়া ইউপি সদস্য নার্গিস সুলতানার সহযোগিতায় তিনি সরকারি বরাদ্দের এসব টাকা কাজ না করে নিজে আত্মসাৎ করেছেন। একই স্থানে ভিন্ন নামে একাধিকবার প্রকল্প দেখিয়ে, কখনো ভাল জায়গায় প্রকল্প দেখিয়ে বরাদ্দ নিয়ে টাকা তুলে নিয়েছেন।

কর্মসৃজনের শ্রমিক দিয়ে মাটির কাজ করে একই স্থানে এলজিএসপির প্রকল্প দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন তিনি। এভাবে সরকারি বরাদ্দের টাকা আত্মসাতের মাধ্যমে নিজে সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন লিটন। বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, চেয়াম্যান লিটন নিজে ব্যার্থ হয়ে জনগণের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহণের এই মানববন্ধন কর্মসুচি পুলিশ দিয়ে বানচাল করার চেষ্টা করেছিল। নিজের অপরাধ ঢাকতে সে পুলিশ দিয়ে জনগণের কন্ঠরোধ করা চেষ্টা করছে। কিন্তু সকল বাধা উপেক্ষা করে আনুলিয়ার সাধারণ জনগণ অত্যাচারী চেয়ারম্যান লিটনের বিরুদ্ধে এক হয়ে মানববন্ধনে অংশ গ্রহণ করেছে। বক্তারা দুর্নীতিবাজ আনুলিয়া ইউপি চেয়ারম্যান লিটন ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবিতে দুর্নীতি দমন কমিশন, সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। পরে তারা ডাকযোগে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারক লিপিও প্রদান করেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, আনুলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান, ইউপি সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সানা, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহবুবুর রহমান, ইউনিয়ন যুবলীগ সাবেক যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান প্রমুখ।

এ ব্যাপারে চেয়ারম্যান লিটন বলেন, আমার বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ করা হচ্ছে তা সবই মিথ্যে ও ষড়যন্ত্রমূলক। আমার সুনাম নষ্ট করার জন্য একটি মহল উঠেপড়ে লেগেছে।

#