আশাশুনির পল্লীতে আবারও হামলা চালিয়ে লুটপাট ও ভাংচুর


146 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির পল্লীতে আবারও হামলা চালিয়ে লুটপাট ও ভাংচুর
এপ্রিল ২৫, ২০২১ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

স্টাফ রিপোর্টার ::

আশাশুনির তুয়ারডাঙ্গায় আবারও গভীর রাতে হামলা চালিয়ে এক মহিলাকে মারপিট, মৎস্য ঘেরে লুটপাট ও ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। হামলাকারীদের ভয়ে রাত হলেই এলাকার লোকজনের মধ্যে ত্রাসের সৃষ্টি ও দেশীয় অস্ত্র হাতে হুংকারে আতংকিত হয়ে পড়ে। শুক্রবার (২৩ এপ্রিল) দিবাগত রাত্র সাড়ে ১২ টার দিকে খাজরা ইউনিয়নের তুয়ারডাঙ্গা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এসময় শ্লীলতাহানী ঘটনাঘটে গৃহবধুর সাথে। এঘটনায় আশাশুনি থানায় একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে।
এজাহার মারফাত ও ভুক্তভোগি গৃহবধু তুয়ারডাঙ্গা গ্রামের সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী মীনা নুন্নাহার জানান, আমার স্বামীর তুয়ারডাঙ্গা মৌজায় ৬বিঘা মৎস্য ঘের রয়েছে। সেখানে একটি বাসা বেঁধে মৎস্য ঘের পরিচালনা করা হয়। কিন্তু গত শুক্রবার রাতে একাধিক মামলার আসামী আনারুল মোল্যার নেতৃত্বে শাহাজান,আলম,মনু,ফারুক,ছবুর,কাজল সহ ১০/১৫জন সন্ত্রাসীরা স্বশস্ত্র অবস্থায় মৎস্য ঘেরে আক্রমন করে। এসময় ঘের ঘেরে থাকা গৃহবধু মীনা নুন্নাহারকে মারপিট করে শ্লীলতাহানী ঘটায়। ঘেরের আটন ঝেড়ে ও বাসার সামনে ঝেনায় রাখা নগদ টাকার মাছ লুট করে নেয় তারা। পরে মৎস্য ঘেরের বাসা সম্পুর্ণ ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয় সস্ত্রাসীরা। এঘটনায় আশাশুনি থানায় সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী মীনা নুন্নাহার বাদি হয়ে আনারুল মোল্যা সহ ১০/১৫ নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাতনামা ৭/৮ নামে একটি এজাহার দায়ের করেছে।
উল্লেখ্য এঘটনার মাত্র চার দিন আগে একই ঘেরে হামলা চালিয়ে মীনা নুন্নাহারের স্বামী সিরাজুল ইসলামকে মারপিট করে হাত-পা ভেঙ্গে দেয় সন্ত্রাসীরা। বর্তমান সিরাজুল মোল্যা সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এদিকে মানুষের শান্তি ও নিশ্চিন্তে বসবাসের স্বার্থে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন খাজরা ইউনিয়নের সাধারণ জনগন।

#