আশাশুনির বৃক্ষপ্রেমী আনিছুর ৪৫ বছর ধরে সড়ক ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গাছ লাগিয়ে যাচ্ছেন


190 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির বৃক্ষপ্রেমী আনিছুর ৪৫ বছর ধরে সড়ক ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গাছ লাগিয়ে যাচ্ছেন
সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামের গ্রাম ডাক্তার আনিছুর রহমান ৪৫ বছর ধরে নিজ খরচে সড়কে ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানে গাছ লাগিয়ে যাচ্ছেন। তার লাগানো গাছের ছায়া ও সুশোভিত পরিবেশ এলাকার মানুষ উপভোগ করছেন।
কচুয়া গ্রামের মৃত আবু জাফর সরদারের ছেলে বৃক্ষপ্রেমী আনিছুর রহমান ১৯৪৭ সালের ১৩ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। এরপর তিনি বড় হয়ে গ্রাম ডাক্তার হিসাবে এলাকার মানুষের সেবা দিয়ে আসছেন। মানব সেবার পাশাপাশি এলাকার বিভিন্নস্থানে তার নিজ খরচে তিনি ফলজ, বনজ ও সৌন্দর্য্যবর্ধক বিভিন্ন গাছ লাগিয়ে চলেছেন। বিগত ৪৫ বছর ধরে তিনি আষাঢ়, শ্রাবণ ও ভাদ্র ৩ মাসে প্রতিদিন কমপক্ষে ২টি করে গাছ বিভিন্ন নিজ এলাকার পাশাপাশি বিভিন্ন হাট-বাজার, সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চত্বর এবং রাস্তার পাশে রোপণ করেন। এছাড়া বছরের যেকোন সময় সুযোগমত পছন্দনীয় স্থানে নিজ হাতে গাছ রোপণ করেন। কাদাকাটি বাজারের বিভিন্নস্থানে ছোট ও বড় যতগুলো গাছ লাগানো আছে তার অধিকাংশই বৃক্ষপ্রেমী ডাঃ আনিছুর রহমান নিজ খরচে নিজ হাতে লাগিয়েছেন। এছাড়া বুধহাটা বাজার, নওয়াপাড়া মসজিদ, নওয়াপাড়া সীমানা পয়েন্ট, কুল্যা ইউনিয়ন পরিষদ, জামালনগর এলাকা, সদর উপজেলার বাঁকাল এতিমখানা, খুলনার শিরোমনি এলাকায়, বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মন্দির, ঈদগাহ সহ অসংখ্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন অসহায় লোকদের বাড়ির আঙ্গিনায় ও রাস্তার পাশে তিনি হাজার হাজার গাছ লাগিয়েছেন। তার লাগানো গাছের মধ্যে আম, জাম, কাঠাল, লিচু, কদবেল, আমড়া, নারিকেল, কৃষ্ণচূড়া, কদম, বকুল, শিশু, মেহগনি, সুপারী, কেওড়া, সুন্দরী গাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির গাছ রয়েছে। এসব গাছ তিনি নিজ উদ্যোগে লাগিয়ে আসার পর গাছগুলো বড় হলে তা বিক্রিয় করে বিভিন্ন কাজে লাগিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা। আর যেগুলো এখনো বিক্রয় করা হয়নি সেগুলো আজও বিভিন্নস্থানে বড় হয়ে কালের স্বাক্ষী হিসাবে দাঁড়িয়ে আছে। এলাকার সচেতন মহল বলেন, বৃক্ষপ্রেমী গ্রাম ডাক্তার আনিছুর রহমান যেভাবে এলাকায় নিজ খরচে গাছ লাগিয়ে চলেছেন সত্যি তিনি বৃক্ষপ্রেমী হিসাবে আমাদের কাছে উজ্জল দৃষ্টান্ত। এব্যাপরে গ্রাম ডাক্তার আনিছুর রহমান জানান, আমি ডাক্তারী পেশার পাশাপাশি সমাজ ও রাষ্ট্রকে একটু অন্যভাবে সেবা করার ব্রত নিয়ে বিগত ৪৫ বছর ধরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্নস্থানে যেখানে যে গাছ মানায় সেখানে সে গাছ রোপণ করে এসেছি। গাছ লাগাতে আমার অনেক ভালো লাগে, আরও ভালো লাগে যখন আমার লাগানো গাছ থেকে কেউ কোন সুফল পেতে থাকে। তিনি বর্তমান যুব সমাজকে বেশী বেশী করে গাছ লাগানোর আহবান জানান।