আশাশুনির বড়দল-হেতাইলবুনিয়া রাস্তার বেহালদশা


562 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির বড়দল-হেতাইলবুনিয়া রাস্তার বেহালদশা
অক্টোবর ৫, ২০১৫ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি :
আশাশুনির বড়দল ইউনিয়নের বড়দল বাজার হইতে  হেতাইলবুনিয়াগামী রাস্তা চলাচলের অনুপোযোগী হয়েছে পড়েছে। সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে দীর্ঘদিন যাবৎ ওই রাস্তা দিয়ে স্কুল, কলেজ, বাজার ও সাধারণ মানুষ জীবনের ঝুকি নিয়ে চলাফেরা করছে। ফলে যাত্রীদের ভোগান্তির সীমা নেই।

জানাগেছে, হেতাইলবুনিয়া-বড়দল বাজার পর্যন্ত প্রায় ৪ কি.মি. রাস্তা। যার শুরু বড়দল কলেজিয়েট স্কুল থেকে শুরু হয়ে জেলপাতুয়া ব্রীজ পর্যন্ত প্রায় ২ কি.মি রাস্ত ওয়াল্ডভিশন বাংলাদেশ ও স্থানীয় লোকজনেরর আর্থিক সহায়তায় ইটের সোলিং করা হয়। পরবর্তীতে কালভাট হইতে হেতাইলবুনিয়া পর্যন্ত ডাবল ইটের রাস্তা নির্মাণ করা হয়। নির্মাণের পর হইতে রাস্তাটি আর সংস্কার করা হয়নি। কিন্তু স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকে জেলপাতুয়া ব্রীজ পর্যন্ত রাস্তাটি মেরামতের বাজেট করেন। কিন্তু স্থানীয় সাবেক মেম্বর ও ইউনিয়ন আ’লীগ সভাপতি মাধ্যমে দায়সারা কাজ করে। যার ১০% ও কাজ হয়নি বলে এলাকার মানুষ অভিযোগ করেছেন।

জেলপাতুয়া ব্রীজটি ও ভেঙ্গে পড়ার উপক্রম হয়েছে। ব্রীজের দুইধারে কোন মাটি বা ইট না থাকায় স্বাভাবিকভাবে কোন যানবান চলাচল করে পারে না। যাহা যানবাহন চলাচলের একেবারে অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে। উক্ত রাস্তাটির ইট উঠে যাওয়ায় বড় বড় খাদে পরিনত হয়েছে। যার ফলে উক্ত রাস্তাটি দিয়ে প্রাইমারি /হাইস্কুলের স্কুলের কমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা পায়ে হেটে চলাফেরা করার একেবারে অনুপোযোগী হয়ে পড়েছে।

সামান্য বৃষ্টি হলে রাস্তায় পানি জমে যায়। রাস্তাটি অত্যান্ত জনবনহুল হলে রাস্তাটি বাস চলাচাল না করলেও ভ্যান, মোটর সাইকেল, ইঞ্জিন চালিত ভ্যান ও চলাচলের অক্ষম হয়ে পড়েছে। ফলে মানুষের চলাচলে ভোগান্তির সীমা থাকে না। রাস্তাটি সংস্কার করা একান্ত আবশ্যক বলে পথচারীরা  ও স্কুলের শিক্ষকগণ আমাদের এ প্রতিবেদককে জানান। সাধারণ মানুষের সাথে কথা বললে তাহা জানান রাস্তাটি  অভিভাবক হীন রাস্তাপরিনত হয়েছে যা দেখা শুনার কেহ নাই। তাই কমলমতি ছাত্র/ছাত্রী ও মানুষের ভোগান্তি কথা বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সুধী ও সচেতন মহল।