আশাশুনির শ্রীউলায় কালিপূজার অন্তরালে চলছে জুয়ার আসর !


341 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনির শ্রীউলায় কালিপূজার অন্তরালে চলছে জুয়ার আসর !
নভেম্বর ১২, ২০১৮ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

*পুলিশ সুপারে হস্তক্ষেপ কামনা

স্টাফ রিপোর্টার ::
সবাই যখন নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত ঠিক সেই সময় আশাশুনি বিভিন্ন এলাকায় জুয়ার আসর নিয়ে ব্যস্ত থাকার অভিযোগ উঠেছে একাধিক জুয়াড়িদের বিরুদ্ধে। এক জায়গায় বন্ধ হলে চলে অন্য জায়গায়। ঠিক তেমনি আশাশুনির শ্রীউলায় কালিপূজার অন্তরালে চলছে লঙ্গ নৃত্য ও রাত ভোর জমজমাট জুয়ার আসর। ফলে প্রতিদিন কালিগঞ্জ, আশাশুনি ও শ্যামনগর উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে হাজার হাজার দর্শকের কাছ থেকে জুয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে জুয়া আয়োজক চক্র।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আশাশুনির শ্রীউলা ইউনিয়নের বুড়িকার আটি গ্রামের শ্যামা কালিপূজার আয়োজন করেন গ্রামবাসি। আর পূজার অন্তরালে শ্রীউলা বালির মাঠে বসানো হয়েছে অবৈধ্য জমজমাট জুয়ার আসর ।
কাটাকাটি, নিপুণ, চড়াচড়ি, ডায়েস, ওয়ান-টেন, ওয়ান-এইট, তিন তাস, নয় তাস, রেমিসহ নানা নামে, নানা ভাবে অবাধে চলছে এ জুয়ার আসর। জুয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে জুয়া আয়োজক চক্র। আর এ জুয়ার আসর বসায় সর্বশান্ত হচ্ছে এলাকার কৃষকসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ।
আইনানুসারে জুয়া খেলা দ্বন্ডনীয় অপরাধ হলেও প্রসাশনকে ম্যানেজ করে আশাশুনির শহিদুল ও রজব সহ কয়েক জন জুয়াড়ী জমজমাট জুয়ার আসর চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাড়া মহল্লায় এ ধরনের উন্মুক্ত জুয়ার আসর বসায় এসব আসরে তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী থেকে শুরু করে ছিনতাইকারী, ছিঁচকে চোর, পকেটমার, মলমপাটির সদস্য, কৃষকসহ ঝুঁকে পড়েছে উঠতি বয়সী কলেজের যুবকরা। একারনে এলাকায় চুরি, ছিনতাই দিন দিন বেড়েই চলেছে।
নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি প্রতিনিধিকে জানান, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের জে এসসি ও জেড এসসি পরীক্ষা চলা কালিন সময়ে কিভাবে প্রশাসনকে ম্যানেজ করে এই ধরণের অবৈধ্য জমজমাট জুয়ার বসানো হয়েছে তা নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে আতংক বিরাজ করছে।
শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল জানান, লঙ্গ নৃত্য ও জুয়ার আসরের প্রস্তুত্তি কালে আমার লোক দিয়ে সেটা ভেঙ্গে দিয়েছি।
আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার নাথ রবিবার রাতে মোবাইল ফোনে বলেন, জুয়ার আসরের কথা আমার জানা নেই। তবে শ্রীউলায় পুলিশ পাঠিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে। অভিযোগ সত্য হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
এদিকে সমাজ তথা পরিবার ধ্বংশকারী এ জুয়ার আসর বন্ধের জন্য পুলিশ সুপার মো: সাজ্জাদুর রহমানের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সচেতন মহল।
##