আশাশুনি সংবাদ ॥ গণ-মাধ্যমকর্মী ও সুধি সমাজের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা


196 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ গণ-মাধ্যমকর্মী ও সুধি সমাজের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা
জুন ২৫, ২০১৯ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস কে হাসান ::

আশাশুনিতে খাস জমি ও জলমহাল বন্দোবস্ত এবং সামাজিক সুরক্ষা নীতিমালা বাস্তবায়নে গণ-মাধ্যমকর্মী ও সুধি সমাজের ভূমিকা শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) উত্তরণ আশাশুনি কেন্দ্রে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।
ইউকে-এইড এর অর্থায়নে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় উত্তরণ অপ্রতিরোধ্য প্রকল্পের আয়োজনে কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন, আশাশুনি উপজেলা ভূমি কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম মোল্যা। মূল আলোচনা উপস্থাপন করেন, উত্তরণ অপ্রতিরোধ্য প্রকল্পের সমন্বয়কারী মনিরুজ্জামান জমাদ্দার। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাংবাদিক অসীম বরণ চক্রবর্তী। কর্মশালায় প্রকল্পের সহকারী সমন্বয়কারী বিলকিস খাতুন, সেন্ট্রাল ম্যানেজার সেলিম আহমেদ, আশাশুনি কেন্দ্র ব্যবস্থাপক মেহদী হাসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। কর্মশালায় সাংবাদিক ও সুধী সমাজের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রভাষক ইয়াহিয়া ইকবাল, জি এম মুজিবুর রহমান, এস এম আহসান হাবিব, সমীর রায়, গোপাল কুমার মন্ডল, এস কে হাসান, মাসুদুর রহমান, আব্দুস সামাদ বাচ্চু, এম এম সাহেব আলি, সোহরাব হোসেন, আকাশ হোসেন, ফায়জুল কবির প্রমুখ। সভায় উত্তরণ ও প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন কার্যক্রম ও আগামীতে করনীয়তা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। সাথে সাথে আশাশুনির খাস জমি চিহ্নিত করে ভূমিহীনদের মাঝে বন্দোবস্ত-চিরস্থায়ী বন্দোবস্ত এবং ভূমিহীনদের অধিকার আদায়সহ সর্বাবস্থায় তাদের পাশে থাকা নিয়ে উত্তরণের লক্ষ্য-উদ্দেশ্য সম্পর্কে অবহিত করা হয়।

#

বড়দলে ছাত্রীকে উত্যাক্তের অপরাধে জরিমানা

এস কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার বড়দল আফতাব উদ্দিন কলেজিয়েট স্কুলের এক ছাত্রীকে উত্যাক্তের অপরাধে মোবাইল কোর্টে ৩ জনকে জরিমানা ও মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে স্কুলে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
স্কুলের কলেজ শাখার দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র বড়দল গ্রামের আঃ গফফারের পুত্র হাসান ও তার বন্ধু খোকন সরদারের পুত্র একাদশ শ্রেণির ছাত্র নাইমুলসহ কয়েকজন তাদের এক সহপাঠি ছাত্রীকে উত্যাক্ত করে আসছিল। মঙ্গলবার ক্লাসে হাসান আবারও তাকে উত্যক্ত করলে উত্যাক্তের শিকার ছাত্রীটি অধ্যক্ষ বরাবর হাসান, নাইম, ধ্রুব ও আজিজের নামে লিখিত অভিযোগ করলে শিক্ষকবৃন্দ হাসানকে আটক করেন। অন্যরা চলে যায়। সহকারী কমিশনার (ভূমি) পাপিয়া আক্তার ঘটনাস্থানে পৌছে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ছাত্র বিধায় প্রথমবারের মত কারাদন্ড না দিয়ে উত্যক্তকারী হাসানকে ১০০০ টাকা জরিমানা এবং হাসান, নাইম ও মহিলা মেম্বার লহুমা খাতুনকে মুচলেকা নিয়ে মুক্তি দেওয়া হয়। এসময় অধ্যক্ষ ড. শিহাব উদ্দিন, দাতা সদস্য রফিকুল ইসলাম, পুলিশ কর্মকর্তাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

#

বড়দলে ৫ কৃতি ছাত্রীকে বাই-সাইকেল প্রদান

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার বড়দলে ৫ কৃতি ছাত্রীকে স্কুলে যাতয়াতের সুবিধার জন্য বাই সাইকেল প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকালে বড়দল আফতাব উদ্দিন কলেজিয়েট স্কুল চত্বরে এ বিতরণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
স্কুলের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী ও এসএসসিতে এ+ প্রাপ্ত সুরাইয়া খাতুন, একই শ্রেণির টুকটুকি মন্ডল, দ্বাদশ শ্রেণির বন্দনা মিস্ত্রী, পূর্ণিমা মন্ডল ও প্রিয়াংকা মন্ডলকে স্কুলে যাতয়াতের সুবিধার জন্য প্রত্যেককে একটি করে বাইসাইকেল প্রদান করা হয়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল আলিম মোল্যার উদ্যোগে সাইকেল প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে সাইকেল বিতরণ করেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম বরণ চক্রবর্তী। কলেজের অধ্যক্ষ ড. শিহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ও সহকারী প্রধান শিক্ষক তরুন কান্তি সানার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম, দাতা সদস্য রফিকুল ইসলাম সানা, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে যুগ্ম সম্পাদক আঃ সামাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন ও আলোচনা রাখেন।

#

আশাশুনিতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলে ১ম রাউন্ডের খেলা অনুষ্ঠিত

এস কে হাসান ::

আশাশুনিতে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্টের উপজেলা পর্যায়ের প্রথম রাউন্ডের খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) আশাশুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ফুটবল মাঠে এ খেলা অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে অনুষ্ঠিত খেলায় ইউনিয়ন চ্যাম্পিয়ন দলগুলো উপজেলা পর্যায়ের খেলায় অংশ নেয়। বঙ্গবন্ধু গ্রুপে (বালক) দরগাহপুর ইউনিয়ন চ্যাম্পিয়ন পঃ দরগাহপুর সরঃ প্রা/বি দল ৪-২ গোলে কাদাকাটি ইউনিয়নের কাদাকাটি স্কুল দলকে পরাজিত করে। ২য় খেলায় কুল্যা ইউনিয়নের বাহাদুরপুর স্কুল ১-০ গোলে প্রতাপনগরের সুভদ্রাকাঠিকে, ৩য় খেলায় শ্রীউলার শ্রীউলা ১-০ গোলে খাজরার ঘুঘুমারীকে, ৪র্থ খেলায় বড়দলের জামালনগর ২-১ গোলে শোভনালীর হাজীপুরকে পরাজিত করে। ৫ম খেলায় বুধহাটার শে^তপুর ৪-৩ গোলে আনুলিয়ার কাকবাসিয়া স্কুলকে পরাজিত করে। বঙ্গমাতা (বালিকা) গ্রুপে কাদাকাটির যদুয়ারডাঙ্গা ১-০ গোলে দরগাহপুরের উঃ খরিয়াটিকে, প্রতাপনগরের গোকুলনগর ১-০ গোলে কুল্যার আগরদাড়িকে, খাজরার ঘুঘুমারি ৩-১ গোলে শ্রীউলার শ্রীউলাকে, শোভনালীর গোদাড়া ১-০ গোলে বড়দলের জামালনগরকে এবং আনুলিয়ার বিছট সরঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় দল ৪-৩ গোলে বুধহাটা ইউনিয়নের বাউশুলী সরঃ প্রাথমিক বিদ্যালয় দলকে পরাজিত করে। খেলা উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা। এসময় উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অসীম চক্রবর্তী, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোসাঃ শামসুন্নাহার, সহকারী শিক্ষা অফিসারবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

#

বুধহাটায় মহেশ্বরকাটি স্লুইচ পানি ব্যবস্থাপনা এসোঃ বার্ষিক সভা

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের মহেশ^রকাটি স্লুইচ পানি ব্যবস্থাপনা এসোসিয়েশনের বার্ষিক সাধারণ সভা-২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২৫ জুন) বিকাল ৩ টায় বেউলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
পোল্ডার নং-২, এন্ড এক্সটেনশান পার্ট সাতক্ষীরার আওতায় ডব্লিউএমএ বুধহাটার আয়োজনে সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, বাপাউবো কুষ্টিয়ার মূখ্য সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মোঃ আইয়ুব আলি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাপাউবো যশোরের উপ প্রধান সম্প্রসারণ কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান ও বুধহাটা ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ আ ব ম মোসাদ্দেক। ডব্লিউএমএ বুধহাটা সভাপতি ভবেন্দ্র নাথ সরকারের সভাপতিত্বে সভায় সেক্রেটারী মোনায়েম হোসেন, কোষাধ্যক্ষ নাজমুল হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সভায় ২০১৮-১৯ অর্থ বছরের আয়-ব্যয়ের হিসাব প্রদান এবং ২০১৯-২০ বছরের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়।

#

বুধহাটার শিল্পী আক্তারের সংবাদ সম্মেলন

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা গ্রামের শিল্পী আক্তার তার স্বামীর অত্যাচার নির্যাতন, মামলা, হামলা ও হুমকী ধামকীর হাত থেকে রক্ষা পেতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। সোমবার (২৪ জুন) বিকালে বুধহাটা বাজারে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।
বুধহাটা গ্রামের মৃত খবির আলি সরদারের পুত্র দাউদ সরদার তার ১ম স্ত্রী অসুস্থ বলে একই গ্রামের লোকমান সরদারের কন্যা শিল্পী আক্তারকে বিয়ের প্রস্তাব দেয়। রাজি না হলে প্রতাপশালী দাউদ তাকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখিয়েও লাভ না হওয়ায় তার ঘরে ঢুকে জোরপূর্বক ধর্ষন করে। এনিয়ে থানায় জিআর- ১২৪/১১ মামলা রুজু করলে আসামী জামিন নিয়ে মামলা থেকে বাঁচতে তার সাথে আপোষ মিমাংসায় ১ম স্ত্রীকে স্বাক্ষী রেখে ৪ লক্ষ টাকা দেনমোহর ধার্য্যে ২৫/৭/১১ তাং রেজিস্ট্রী কাবিনে বিয়ে করলে বাদী মামলা নিস্পত্তি করে দেয়। কিছুদিন ঘর সংসার করার পর দাউদ তাকে তালাক দেয়। কিন্তু তাতে নিস্তার পায়নি, বরং পথেঘাটে বাজে কথা বলাসহ পিছু লেগে থাকে। থানায় জিডি করলে লিখিত অঙ্গীকারনামা দিয়ে নিস্কৃতি পায়। তবে তাকে হাতপা ধরে ভুল বুঝিয়ে ২৩/১/১২ তাং পুনরায় বিয়ে করে। এরপর যৌতুকের দাবীতে অন্তঃস্বত্তা স্ত্রীকে নির্যাতন করলে শিল্পী নারী ও শিশু ২৮৮/১২ নং মামলা করেন। মামলা চলাকালে স্বামীর ঔরষজাত পুত্র সন্তানের মা হন তিনি। মামলা চলাকালে আবার তিনি স্ত্রীকে তালাক প্রদান করেন। তবে আবারও তিনি খোলস পাল্টে মামলা থেকে বাঁচতে ২১/৫/১৮ তারিখে দেড় লক্ষ টাকা দেনমোহরে তাকে রেজিস্ট্রী বিয়ে করলে শিল্পী মামলা তুলে নেয়। আসামী এবার ভিন্ন রূপ ধারণ করে শ^াশুড়ির নিকট থেকে ৭৫ হাজার, তার নিকট থেকে ৩০ হাজার ও আশা সমিতি থেকে স্ত্রীর কাছ থেকে আরও ৭০ হাজার টাকা উঠিয়ে নেয়। এরপর থেকে আবার একই রূপ। দীর্ঘদিন কোন খোজখবর নেইনি। তাদের সন্তান ১০/২/১৯ তাং আগুনে পুড়ে গেলে তাকে জানালেও কর্ণপাত করেনি। বরং উল্টে ১ লক্ষ টাকা যৌতুক দাবী করতে থাকে। বাড়ির সামনে স্বামীকে পেয়ে তিনি বাড়িতে ডেকে নিয়ে বাচ্চার ঔষধ কিনে দিতে বললে গালিগালাজ করে আবার যৌতুকের টাকা দাবী করে। এক পর্যায়ে মারপিট ও গলায় রশিদিয়ে স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টা করে। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ পাশের লোকজন সেখানে গিয়ে গঠনা প্রত্যক্ষ করেন। থানায় মামলা না নিলে বিজ্ঞ আদালতে জিআর ৭২/১৯ (আশাঃ) মামলা রুজু করেন। আসামী জামিনে মুক্ত হয়ে মামলা তুলে নিতে চাপ প্রয়োগসহ ভয়ভীতি দেখাতে থাকে। বাদীর মা গ্রাম আদালতে মামলা করলে অভিযোগ প্রমানিত হওয়ায় তার টাকা পরিশোধের রায় প্রদান করলে ২০ হাজার টাকা দিয়ে আর দেইনি। এছাড়া তার বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গণশুনানীতে ১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা আদায়ের জন্য আবেদন করলে ইউএনও আশাশুনিকে দায়িত্ব প্রদান করেন। তিনি আরও বলেন, সুদ খোর দাউদ, মইদুলসহ তার ভায়েরা এলাকায় সুদের ব্যবসার নামে বহু মানুষকে সর্বশান্ত করেছে। করিম মেম্বার, মন্টু, পলাশ, মইনদ্দীসহ অসংখ্য মানুষ সুদের ফাঁদে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছেন। দাউদ অরুন মার্ডার মামলা, বৈদ্যিকে জখম করা মামলা, ছিনতাইসহ অনেক মামলার আসামী। সে প্রতিবাদ নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে অঙ্গীকারনামা দিয়ে বিয়ে ও মিমাংসা করলেও কথা রক্ষা করেনি। বরং তাকে নির্যাতন, হয়রানি ও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করে চলেছে। তিনি দু’টি সন্তান নিয়ে একা বসবাস করেন, তাকে যে ভাবে হুমকী ধামকী ও মামলা তুলে নিতে শাসাচ্ছে তাতে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন দাবী করে জেলা প্রশাসক, এসপি মহোদয় সহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন।

#