আশাশুনি সংবাদ ॥ নওয়াপাড়ায় ফুটবল টুর্ণামেন্ট ১ম সেমিফাইনাল


379 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ নওয়াপাড়ায় ফুটবল টুর্ণামেন্ট ১ম সেমিফাইনাল
নভেম্বর ১৪, ২০১৮ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

 

এস,কে হাসান,নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের নওয়াপাড়ায় ৮ দলীয় ফুটবল টুর্ণামেন্ট এর ১ম সেমি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বিকালে জগদ্ধাত্রী পূজা মন্ডপ মাঠে এ খেলা অনুষ্ঠিত হয়।
নওয়াপাড়া পূজা উদযাপন পরিষদের আয়োজনে ১ম সেমিতে মহাজনপুর ফুটবল একাদশ ও গাভা ফুটবল একাদশ মুখোমুখি হয়। খেলার নির্ধারিত সময়ে কোন দল গোল করতে না পারায় খেলা টাইব্রেকারে গড়ায়। টাইব্রেকারে গাভা দল ৫-৪ গোলের ব্যবধানে মহাজনপুরকে পরাজিত করে ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন মহাজনপুর দলের কৌশিক সরকার। রেফারী ছিলেন বাবলুর রহমান। সহকারী রেফারী ছিলেন ইয়ামিন হোসেন ও শিমুল হোসাইন। ধারাভাষ্যে ছিলেন আবু মুছা ও প্রভাষক সুমঙ্গল। খেলায় প্রধান অতিথি ছিলেন, পাঠ ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের পার্সোনাল অফিসার জসিম উদ্দিন। অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য (দাদপুর) আঃ রশিদ, গাভা তরুন সংঘ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি শেখ আজাদ হোসেন, সেক্রেটারী অবঃ সেনা সদস্য আঃ মোত্তালেব ও মেম্বার মোঃ রবিউল ইসলাম। শনিবার ২য় সেমি ফাইনালে টিকেট ও উঃ নওয়ূাপাড়া ফুটবল একাদশ মুখোমুখি হবে।

###

আশাশুনির দাঁদপুরে মৎস্য ঘেরের বাঁধ
কেটে ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ

আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের দাঁদপুর বিলে মৎস্য ঘেরের বাঁধ কেটে ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে।
দাঁদপুর গ্রামের মৃত আপ্তাপ বিশ^াসের পুত্র আনারুল বিশ^াস জানান, তারা দীর্ঘ কয়েক বছর যাবৎ দাঁদপুর মৌজায় ১ নং খাস খতিয়ানে ১৩২৭ নং দাগে ১ একর জমি একসনা ইজারা গ্রহন করে মৎস্য ঘের করে মাছ চাষ করে আসছেন।

চলতি ১৪২৫ সনের জন্য ইজারা পেতে আবেদন করেছেন। যা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। বর্তমানে ঐ জমিতে মাছ রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে একই গ্রামের জগদীশ ও গোবিন্দসহ তাদের লোকজন তাদেরকে (আনারুল দিংকে) কিছু না জানিয়ে তাদের দখলীয় জমির ঘেরের বাঁধ কেটে একাকার করে দেয়। এসময় ঘেরে থাকা ২০/৩০ হাজার টাকার মাছ ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। বাঁধ কাটতে স্থানীয়সহ বহিরাগত লাঠিয়াল বাহিনী নিয়ে যাওয়া হয় অভিযোগ করে আনারুল ও তার স্ত্রী সাবেক মহিলা মেম্বার নাজমিন নাহার জানান, অবৈধ জবরদখলে বাধা দিলে তারা হত্যার হুমকী দিচ্ছে। ফলে অসহায় পরিবারটি চরম বিপাকে পড়েছেন। একই গ্রামের মৃত নরেন্দ্র মন্ডলের পুত্র জগদীশ ও মনিন্দ্র মন্ডলের পুত্র সঞ্জয়সহ তাদের লোকজন জানান, উক্ত একই দাগে বাকী ২১ শতক জমি তারা গত বছর ইজারা নিয়েছিলেন। চলতি ১৪২৫ সনের জন্যও ইজারা নিয়েছেন। তাদের ইজারা পাওয়া জমিতে তারা দখল নিয়েছেন। বাঁধ কেটে নিজেদের রেকর্ডীয় জমির সাথে ইজারা পাওয়া ২১ শতক জমি একসাথে করে নেওয়া হয়েছে, লুটপাট করা হয়নি বলে তারা জানান।

###

আশাশুনি মাদারবাড়িয়ায় কেরামত
হোসেনের দাফন সম্পন্ন

নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের মাদারবাড়িয়া গ্রামের মৃত নওশের আলী সরদারের পুত্র কেরামত হোসেন সরদার (৫৭) এর দাফন কাফন সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার পারিবরিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।
ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ আশাশুনি এপি’র কর্মী কেরামত হোসেন মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টার দিকে স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। দ্রুত তাকে মটর সাইকেলে কুল্যার মোড়ে এনে মাইক্রোতে উঠানোর সময় তিনি ইন্তেকাল করেন। বুধবার বাদ জোহর মাদারবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মরহুমের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। ইমামতি করেন মাওঃ আঃ মান্নান। আলোচনা রাখেন হাফেজ মেহদী হাসান। এসময় আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, অর্থ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, উপজেলা আ’লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক ফিরোজ খান মধু, ইউনিয়ন সেক্রেটারী আবু সাইদ ঢালী, প্যানেল চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম পান্না, মেম্বার আলহাজ¦ আঃ মাজেদ, ইব্রাহিম গাজী, প্রধান শিক্ষক সাফিউল্লাহ বাদশা, অবঃ সেনা সদস্য রবিউল ইসলাম বাদশাসহ এলাকার সর্বস্তরের মানুষ উপস্থিত ছিলেন। মৃতকালে তিনি ২ স্ত্রী, ৪ কন্যা ও ২ পুত্রসহ বহু আত্মীয়-স্বজন রেখে গেছেন। আগামী সোমবার মরহুমের রূহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়ানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।