আশাশুনি সংবাদ ॥ নৈকাটি কমিউিনিটি ক্লিনিকের বেহাল দশা


344 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ নৈকাটি কমিউিনিটি ক্লিনিকের বেহাল দশা
আগস্ট ২৭, ২০১৬ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান,আশাশুনি :
আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা ইউনিয়নের নৈকাটি কমিউনিটি ক্লিনিকের বেহাল দশায় চিকিৎসা সেবা প্রদান দুর্বিসহ হয়ে উঠেছে। মূল্যবান ঔষুধপত্রসহ সরঞ্জামাদি ঝুঁকির মধ্যে রেখে ক্লিনিক পরিচালনা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সদিচ্ছার প্রতিফলন স্বাস্থ্য সেবা মানুষের দোড় গোড়ায় পৌছে দেওয়ার হাতিয়ার ‘কমিউনিটি ক্লিনিক’। প্রতিষ্ঠার পর থেকে নানা প্রতিবন্ধকতার পরও অসহায় ও চিকিৎসা বঞ্চিত মানুষের প্রিয় ও খুবই প্রয়োজনীয় প্রতিষ্ঠান হিসাবে এটি ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। ক্লিনিকের সিএইচসিপি সাইফুজ্জামান সাগর জানান, এই ক্লিনিকে প্রতিদিন গড় ৫০ জন রোগির চিকিৎসা সেবা ও ঔষধ প্রদান করা হয়। ২৯ প্রকার ঔষধ রোগিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়ে থাকে। ডায়বেটিস পরীক্ষা, ওয়েট মেশিন, প্রেসার মাপা যন্ত্র, শিশু ও গর্ভবতী মায়েদের চিকিৎসাসহ বিভিন্ন রোগের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়ে থাকে।

কিন্তু ক্লিনিকটি নির্মানের পর থেকে সংস্কারের অভাবে ব্যবহার অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। ভবনের প্লাষ্টার ও ছাদের বড় বড় অংশ খসে ও ভেঙ্গে পড়ছে। মেঝেতে দুই ফুট মত পানি ভরে থাকায় বর্তমানে বেঞ্চ ও উচু কিছুর উপর ঔষধপত্রসহ অন্য জিনিসপত্র রেখে ঝুঁকিপূর্ণ পরিবেশে ক্লিনিক চালান হচ্ছে। বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য ওয়ারিংসহ অন্যান্য কাজ করার পর মিটার আসলেও তা না লাগিয়ে অজ্ঞাত কারনে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হচ্ছেনা। ফলে রোগিরা চিকিৎসা নিতে এসে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে নাকানি চুপানি খাচ্ছে। সেবাদানকারীরাও পানির মধ্যে বসে কাজ করতে বাধ্য হচ্ছে। ভবনটি পুনঃ নির্মানের প্রয়োজন থাকলেও আপাততঃ প্লাষ্টার কাজ করা, মেঝে একটু উচু করাসহ অন্য প্রয়োজনীয় কিছু কাজ করে ক্লিনিকটি ব্যবহার উপযোগি করার ব্যবস্থা নেওয়া জরুরী হয়ে পড়েছে।

এব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসকসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

###

আশাশুনিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা হামিদের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

এস,কে হাসান আশাশুনি :
আশাশুনিতে বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ সরদারকে (৭২) পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়েছে। শনিবার বেলা ১১ টায় মরহুমের বাসভবনে গার্ড অব অনার ও জানাযা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

ASSASUNI PHOTO---(1)--- 27  AUGUST
আশাশুনি গ্রামের মরহুম অমেদ আলি সরদারের পুত্র আঃ হামিদ পাকিস্তান পিরিয়ডে ইউপিআর এর ওয়ারলেস অপারেটর হিসাবে কর্মরত থাকা অবস্থায় মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশ নেন এবং যুদ্ধকালীন কমান্ডার হিসাবে সুনামের সাথে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। দেশ স্বাধীনের পর তিনি বিডিআর এর সুবিদার হিসাবে চাকরী শুরু করে একই পদে চাকরী জীবন শেষ করেন। তিনি সাতক্ষীরার বাসায় বসবাসকালীন বার্ধক্য জনিত কারনে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি হন এবং চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার বিকাল ৪.৪০ টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মৃতকালে তিনি স্ত্রী মনোয়ারা খাতুন, ৩ পুত্র হারুন উর রশিদ জাকারিয়া, মামুন উর রশিদ কিবরিয়া, নূর ইলাহি, কন্যা মুর্শিদা পারভিন হেনাসহ বহু আত্মীয় স্বজন রেখে গেছেন। এসআই পিযুষ দাশ, এসআই আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে চৌকশ পুলিশ দল তার মৃতদেহকে সামনে রেখে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। জানাযা নামাজে ইমামতি করেন হাফেজ আবুযর গিফারী।

এসময় ইউএনও প্রতিনিধি সহকারী শিক্ষা অফিসার শাহাজাহান আলি, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আঃ হান্নান, আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান সেলিম রেজা সেলিম, আ’লীগ নেতা ঢালী মোঃ সামছুল আলম, মেম্বার তারিকুল আওয়াল, জাপা নেতা আজাদ হোসেন টুটুল, সাবেক মেম্বার ইয়াকুব আলি, আলহাজ্ব মাওঃ আবুল কাশেম, ক্বারী আঃ বারী, মরহুমের পুত্রত্রয়সহ এলাকার বহু আলেম, বীর মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষক, জন প্রতিনিধি ও সর্বস্তরের মানুষ অংশ নেন। আজ (রবিবার) বাদ জোহর কলেজ জামে মসজিদে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়ানুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।