আশাশুনি সংবাদ ॥ বাল্য বিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রী


398 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ বাল্য বিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির এক ছাত্রী
অক্টোবর ২৯, ২০১৫ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি ব্যুরোঃ আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগরে ৭ম শ্রেণী ছাত্রী বাল্য বিয়ের অভিশাপ থেকে রক্ষা পেয়েছে।  প্রতাপনগর ইউনিয়নের নাংলা দাখিল মাদরাসার ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ও গোকুলনগর গ্রামের আব্দুল গফফার সানার কন্যাকে বিয়ের জন্য সকল আয়োজন করেন তার পিতা। ৩০ অক্টোবর বিয়ের দিন ধার্য করা হয়। এখবর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মাৎ মমতাজ বেগমের কাছে পৌছলে তিনি মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তাকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে বলেন। মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা জোহরা ইউপি চেয়ারম্যান শেখ জাকির হোসেনের মাধ্যমে বিয়ে অনুষ্ঠান বন্ধ করে দিয়েছেন। অভিভাবকরা তার মেয়েকে ১৮ বছর বয়স পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দেবেনা মর্মে অঙ্গীকার করেছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানাগেছে।
##

 

আশাশুনিতে আইন শৃংখলা কমিটির সভা
গোপাল কুমার, আশাশুনি ব্যুরোঃ আশাশুনি উপজেলা আইন শৃংখলা কমিটির ও উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাম্মাৎ মমতাজ বেগমের সভাপতিত্বে সভায় ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আঃ হান্নান, মফিজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নান, প্রেসক্লাব সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, সাবেক চেয়ারমান স ম সেলিম রেজা, অধ্যাপক তৃপ্তিরঞ্জন সাহা, প্রভাষক মোনায়েম হোসেন, প্রদর্শক ইয়াহিয়া ইকবাল, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ প্রভাস চন্দ্র সরদার, কৃষি অফিসার শামিউর রহমান, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা জোহরা, প্রকৌশলী শামিম মুরাদ, আরডিও আবু বিল্লাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভায় উপজেলার সার্বিক আইন শৃংখলা নিয়ে আলোচনা করা হয়। অপরদিকে আশাশুনি উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা ৃহস্পতিবার সাড়ে ১১টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সভায় উপরোক্ত ব্যক্তিবর্গ সহ উপজেলা পরিষদের কর্মকর্তা ও ও ইউপি চেয়ারম্যান গণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্পের কার্যক্রম নিয়ে আলোচনা করা হয়।