আশাশুনি সংবাদ ॥ বড়দল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলেন : মাহফুজ সভাপতি, মাছুম সম্পাদক


1586 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ বড়দল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলেন : মাহফুজ সভাপতি, মাছুম সম্পাদক
অক্টোবর ১৩, ২০১৫ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি :  আশাশুনি বড়দল ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সম্মেলেন অনুষ্ঠিত। মাহফুজ গাজী সভাপতি, মাছুম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত। মঙ্গলবার বিকালে বড়দল ইউনিয়ন ছাত্রলীগের অফিসে কক্ষে সাবেক ছাত্র নেতা সাইফুল ইহলাম লিপুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি একেএম কামরুজ্জামান মিঠু।
বিশেষ অতিথে হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা সাংবাদিক গোপাল কুমার মন্ডল, আ’লীগ নেতা শফিকুল ইসলাম,। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা টিটু সানা, সাধারণ সম্পাদক দীপক সানা, সাংগঠনিক সম্পাদক মইন সানা সহ ছাত্রলীগের সকল নেতাকর্মী। উক্ত সম্মেলেন সভাপতি পদে দুই জন প্রার্থীর নাম প্রস্তাব  হওয়ায় মৌনভোটে মাহফুজুর সভাপতি নির্বাচিত হন।
অন্যকোন পদের বিপরীতে কোন প্রার্থী না থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সাধারণ সম্পাদক মোঃ মাছুম, সাংগঠনিক সম্পাদক মশি আচারী নির্বাচিত। সম্মেলন শেষে ৭নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের ৫১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষনা করা হয়। অপরদিকে ৫নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে দেবব্রত সরকার ও সাধারণ সম্পাদক হিসাবে প্রসেনজিৎ নির্বাচিত হয়েছেন।
##

 

OLYMPUS DIGITAL CAMERA

OLYMPUS DIGITAL CAMERA

আশাশুনি প্রেসক্লাবে আনুলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগ নেতৃবৃন্দের সংবাদ সম্মেলন
আশাশুনি ব্যুরো ঃ
আশাশুনি প্রেসক্লাবে আনুলিয়া ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দ ইউপি সচিব আবু হেনা মুজিবুর রহমানের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুকুজ্জামান লিখিত বক্তব্যে ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জাবাবে জানান, খাজরা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মুজিবুর রহমান একজন নিরিহ ব্যক্তি। তিনি আওয়ামী পরিবারের সদস্য। জীবনে কখনো বিএনপি রাজনীতির সমর্থক বা কর্মী ছিলেন না বা নেই। স্থানীয় বিএনপি দলীয় কুচক্রী মহল তাকে হয়রানী ও মিথ্যা মামলায় ফাসানোর জন্য দীর্ঘদিন ধরে পায়তারা চালিয়ে আসছিল। এমনকি সরকারি চাকুরীর ক্ষতি করতে পরিকল্পনা নিয়েছিল। সাতক্ষীরায় মৎস্যজীবি দলের নেতা আমান হত্যাকান্ডের ঘটনার পর ঐ ষড়যন্ত্রকারী চক্র তাকে (মুজিবর) ঐ হত্যা মামলায় (মামলা নং জিআর-৭১৭/১৩) আসামী হিসাবে ঢুকিয়ে দেয়। পত্রপত্রিকা ও মিডিয়ায় যতদূর জানাযায়, হত্যাকান্ডের সাথে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা জড়িত ছিলেন। অথচ তাকে বিএনপি না করা স্বত্বেও ষড়যন্ত্র করে মামলার আসামী করা হয়েছে। আরও আশ্চার্যের বিষয় হলো, হত্যাকান্ডের দিন তিনি (ইউপি সচিব) খাজরা ইউনিয়ন পরিষদে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন। যেখানে ইউপি চেয়ারম্যান, ইউপি সদস্যবৃন্দসহ স্থানীয় অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। তা সত্বেও তাকে একই সময়ে সাতক্ষীরার হত্যাকান্ডে উপস্থিত দেখিয়ে আসামী করা হয়। ৬/৭/১৫ তাং পুলিশ তাকে গ্রেফতার করলে তিনি বিষয়টি জানতে পারেন। বর্তমানে ষড়যন্ত্রকারী চক্রটি তাকে আরও মিথ্যা মামলায় ঢুকিয়ে দেয়াসহ নানান হুমকী দিয়ে চলেছে। এব্যাপারে যথাযথ তদন্ত করে নিরিহ ও নিরাপরাধ ইউপি সচিবকে মিথ্যা অভিযোগ থেকে মুক্তি দানের জন্য অনুরোধ জানান হয়েছে। এসময় স্থানীয় আ’লীগ নেতা শাহাবুদ্দিন সানা, শহিদুল ইসলাম, শরিফুল, গৌরপদ হালদার, আশরাফ উদ্দিন, শাহাবুদ্দিন গাজী, ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম এবং খাজরা ইউনিয়ন পরিষদের কয়েকজন মেম্বার সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।