আশাশুনি সংবাদ ॥ মানিকখালী সেতুর সংযোগ সড়কে কালভার্ট নির্মানে অনিয়মের অভিযোগ


723 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ মানিকখালী সেতুর সংযোগ সড়কে কালভার্ট নির্মানে অনিয়মের অভিযোগ
জানুয়ারি ২৫, ২০১৭ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

গোপাল কুমার, আশাশুনি ::
আশাশুনিতে মানিকখালী সেতুর সংযোগ সড়কে কালভার্ট নির্মানে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। রোডস্ এন্ড হাইওয়ের বা কনক্ট্রাশনের কোন ইঞ্জিনিয়ার বা প্রতিনিধি ছাড়াই চলছে নির্মাণ কার্যক্রম। সরেজমিনে ঘুরে ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায় রড জুড়ে কাঠামো তৈরি করতে না করতে চারিদিকে ধ্বসে পড়ে। এতে অল্পের জন্য শ্রমিকেরা ক্ষয়-ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে বলে জানিয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে আশাশুনি সদরে জেলা পরিষদের সদস্য মহিতুর রহমানের মৎস্য ঘের সংলগ্ন নির্মানাধীন কার্লভাটটিতে। প্রাপ্ততথ্যে জানা গেছে, মানিকখালী সেতুর সংযোগ সড়কের ৯টি কালভার্ট নির্মানের জন্য বরাদ্দ পেয়েছে যশোরের দিশারী কনক্ট্রাশন। কাজের শুরু থেকেই তাদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উঠেছে। বিলের মধ্যে ফাঁকা জায়গায় কাজ হওয়ায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কেউ সেখানে যাননা বলে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি ইচ্ছামত কাজ করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার সকালে কার্লভাটের জন্য সরু তার দিয়ে কিছু বেধে আর কিছু না বেধে রডের খাঁচা তৈরী করে। ঢালাই শুরুর কিছুক্ষনের মধ্যে সমস্ত রডের খাঁচা ধ্বসে পড়ে। এ সময় সেখানে এলাকার অনেক শ্রমিক কাজ করছিল। ভাগ্য ভাল থাকায় তারা ওই রড পতনে আঘাত প্রাপ্ত হয়নি। এদিকে এতবড় কাজে তদারকির জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন প্রতিনিধি না থাকায় ঠিকাদারের লোকজন তাদের ইচ্ছামত কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। পূর্বপাশে কাদা-পানির উপর ঢালাই দেখা যাচ্ছে। চারিদিক থেকে কাদামাটি ধ্বসে রডের খাঁচার উপর পড়ার উপক্রম হয়েছে। নিচের রডের খাঁচার উপর হাঁটু পানি জমে আছে। এরমধ্যেই চলছে কোটি কোটি টাকার প্রজেক্টের কাজ। কিছু অনভিজ্ঞ মিস্ত্রি সাথে নিয়ে সুপার ভাইজার মিলন এসব কাজ দেখাশোনা করছেন। তার সাথে নেই কোন সরকারি প্রকৌশলি বা তাদের নিজেদের কোন প্রকৌশলি। রড ধ্বসে যাওয়ার ব্যপারে তার কাছে জিজ্ঞাসা করলে তিনি বিজ্ঞের মত উত্তর দিয়ে বলেন ‘এটা একটা এ্যাক্সিডেন্ট, এতে ভাবার কিছু নেই, আমরা সব ঠিক-ঠাক করে করব। নিন্মমানের বালি ও রড ব্যবহারের কথা বললে তিনি বলেন না-না সব ঠিক আছে। এব্যাপারে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা সুষমা সুলতানার কাছে কার্লভাটটির নির্মানের বর্তমান ছবি ও ঘটনা বর্ননা করলে তিনি জেলা নির্বাহি প্রোকৌশলীর সাথে কথা বলেন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।#

 

 

 

 

 

 

আশাশুনি বালিকা বিদ্যালয় ও চাপড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে
পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও ষষ্ঠ শ্রেনির শিক্ষার্থীদের নবীনবরন
গোপাল কুমার, আশাশুনি::
আশাশুনি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় ও চাপড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও ষষ্ঠ শ্রেনির শিক্ষার্থীদের নবীনবরন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বালিকা বিদ্যালয় চত্বরে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রধান শিক্ষক কামরুন্নাহার কচি। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা সুষমা সুলতানা। সহকারি শিক্ষক আলমগীর কবীরের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- থানা অফিসার ইনচার্জ গোলাম রহমান, একাডেমিক সুপারভাইজার হাসানুজ্জামান প্রমুখ। অপরদিকে চাপড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আবুল হাসেম। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ আ.ব.ম মোসাদ্দেক। প্রধান শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুলের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ও স্বাশিপ’র জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমানের উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ইউপি সদস্য শফিউল ইসলাম, বিউটি খাতুন, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আছাদুল হক, সাজ্জাদুল হক, হারুন অর রশীদ, সাবেক সদস্য বাহাউদ্দীন, সাংবাদিক এমএম সাহেব আলী,আব্দুল খালেক সরদার, সহকারি প্রধান শিক্ষক বিমলেন্দু দাশ, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ।