আশাশুনি সংবাদ ॥ মোবাইল কোর্টে ৩ ডিলারকে জরিমানা


131 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ মোবাইল কোর্টে ৩ ডিলারকে জরিমানা
সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৯ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার ৩ সার ও কিটনাশক ডিলারকে নি¤œমানের সার রাখার দায়ে ৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার এবং বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) এ জরিমানা করেন।
উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর আশাশুনির পক্ষ থেকে উপজেলার বুধহাটা বাজারের সার ডিলার পঞ্চানন দেবনাথের পুত্র প্রতাপ কুমার দেবনাথ, ঠাকুর চরণ ঘোষের পুত্র নির্মল কুমার ঘোষ ও আলহাজ¦ আঃ মাজেদ গাজীর পুত্র আনোয়ার হোসেনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান থেকে মুক্তা জিংক, ব্র্যাক জিংক ও সুরমা জিংক সার জব্দ করে মান পরীক্ষার জন্য খুলনায় প্রেরন করা হয়েছিল। পরীক্ষা রিপোর্টে সারের মান সঠিক থাকার জন্য যেখানে সর্ব নি¤œ ৩৬% থাকার কথা সেখানে যথাক্রমে ২৬.৬%, ২০% ও ৫% রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। ফলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মীর আলিফ রেজা এবং সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পাপিয়া আক্তার সার ডিলারদের প্রত্যেককে সার ব্যবস্থাপনা আইন ২০০৬ এর ১৫/২ ধারায় ৩০০০ টাকা করে ৯০০০ টাকা জরিমানা করেন। এসময় উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ রাজিবুল হাসান উপস্থিত ছিলেন।

#

আশাশুনিতে ডলার ও ইয়াবা ব্যবসয়ীর আক্রমনে আহত-৫
এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার মহাজনপুরে চিহ্নিত ডরার ব্যবসায়ী ও কুখ্যাত ইয়াবা ব্যবসায়ী মহব্বত আলির নেতৃত্বে আক্রমন চালিয়ে ৫ জনতে আহত করা হয়েছে। বুধবার বিকাল ৫ টার দিকে মহাজনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

মহাজনপুর গ্রামের মৃত ইঞ্জিল সরদারের পুত্র কুখ্যাত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও চিহ্নিত ডলার বিক্রেতা মহব্বত আলি প্রায় ৩০ বছর যাবৎ এলাকার ডলার ব্যবসার সাথে জড়িত। তার নেতৃত্বে এলাকা সহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ডলার চক্রান্ত ও মাদকের ব্যবসা চলে আসছে। এলাকার মানুষ বাধা দিতে গেলে তার ও তার সহযোগিদেও হুমকী ধামকী ও আক্রমনে সবাই চরম ভীত হয়ে রয়েছে। ইতিমধ্যে তার নামে একাধিক ডলার বিক্রয়ের ফাদে ফেলে মানুষকে ঠকানো এবং মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকাসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে। তার পুত্র শাহিনও গাঁজা ব্যবসার সাথে জড়িত। তার কাজে বাধা দেওয়ায় এলাকার অনেকেই তার শত্রু হয়ে আছে। তাদেরকে দমন করতে তারা ষড়যন্ত্র কওে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার বিকাল ৫ টার দিকে স্থানিয় কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোজাম্মেল, ৮নং ওয়ার্ড কৃষকলীগের সাবেক সভাপতি আলমগীর, ছাত্রলীগ ইউয়িন সেক্রেটারী রায়হান, অজিহার রহমান, আজহারুল মোল্যা দাওয়াত খেয়ে বাড়ি ফেরার পথে মহাজনপুর স্কুলের সামনে পৌছলে রহমত, শাহিন, ইয়ারব, জুয়েল, নজরুলসহ তাদেও সহযোগিরা তাদেও উপর আক্রমন চালায়। লোহার রড, বাঁশ ও লাঠিশোটা নিয়ে হামলা চালিয়ে তাদেরকে জখম করে। আহতদেরকে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য আঃ রশিদ ও আলমগীর হোসেন আঙ্গুর এবং কৃষকলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলামকে জানানো হয়। উল্লেখ্য ইতিপূর্বে তারা ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মোশাররফ হোসেনকেও তাদেও কাজে বাধা দেওয়ায় মারপিট কর হয়েছিল।

আশাশুনির বিল্লালের মা ও বোনকে আড়াই মাসেও খোঁজ মেলেনি

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মা ও বোন ৩ ছেলেমেয়েকে নিয়ে প্রায় আড়াই মাস আগে উধাও হয়ে গেছে। অনেক খোজাখুঁজি করেও তাদের কোন সন্ধান পায়নি পরিবারের সদস্যরা।
আশাশুনির কচুয়া গ্রামের মোফাজ্জেল সরদারের কন্যা নুর নাহার খাতুন (৪০), তার কন্যা রাইমা খাতুন (২৫), রাইমার ২ পুত্র ও ১ কন্যাকে নিয়ে গত কোরবাণির ঈদের এক মাস আগে বাড়ি থেকে উধাও হয়ে যায়। তাদের মোবাইল নম্বর বন্ধ। তারা এ পর্যন্ত কারো সাথে যোগাযোগ করেনি। পরিবারের লোকজন তাদেরকে অনেক খোজাখুজি করেও কোন সন্ধান পায়নি। তারা বাড়ি থেকে উধাও হওয়ার পর থেকে বিল্লাল অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। ক্লিনিকে ১০ দিন ভর্তি ছিল। এখনো সে স্বাভাবিক নয়। কোন ব্যক্তি তাদের সন্ধান পেলে ০১৪০৬২৭১৯৫০ নম্বরে যোগাযোগ করতে পরিবারের পক্ষ থেকে অনুরোধ জানান হয়েছে।

আশাশুনিতে ইউপি সদস্য আবু বকরের ইন্তেকাল

এস কে হাসান ::

আশাশুনি উপজেলার শ্রীউলা ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রিয় ইউপি সদস্য আবু বকর সিদ্দিক ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি অইন্না ইলায়হি রাজেউন)।
শ্রীউলা ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ড থেকে একাধারে ৩বার নির্বাচিত ইউপি সদস্য আবু বকর সিদ্দিক (৫২) দীর্ঘদিন ধরে কিডনি রোগ জনিত জটিলতায় ভুগছিলেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১০.৪০ টার দিকে নিজ বাড়ীতে ইন্তেকাল করেন। তার মৃত্যুর সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। তাকে শেষবারের মত দেখার জন্য ও শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানাতে ছুটে আসেন, উপজেলা আ’লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, সকল ইউপি সদস্যসহ এলাকাবাসী। মৃতকালে তিনি স্ত্রী, ৩ কন্যা, মা ও ভাই-বোনসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। বুধবার বিকেল ৩ টায় নাছিমাবাদ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে বিপুল সংখ্যক মানুষের অংশ গ্রহণে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, মাও: নূরল আফছার, মাও: আবু বকর ছিদ্দিক, আলহাজ্ব মাও: সামছুর রহমান, মাও: সিদ্দিকুর রহমান ও মরহুমের ভাতিজা শাহিনুর রহমান বাবু আলোচনা রাখেন। জানাজা নামাজে ইমামতি করেন মরহুমের চাচাত ভাই হাফেজ বিল্লাল হোসেন ও দোয়া পরিচালনা করেন মাও: সিদ্দিকুর রহমান।

#