আশাশুনি সংবাদ ॥ মোবাইল কোর্টে ১৫০০ টাকা জরিমানা


113 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ মোবাইল কোর্টে ১৫০০ টাকা জরিমানা
জুলাই ২৬, ২০২১ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস কে হাসান ::

আশাশুনিতে করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ এর হাত থেকে জনগণকে রক্ষার লক্ষ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে ৩ ব্যবসায়ীকে ১৫০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার (২৬ জুলাই) উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এ মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।
বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর নির্দেশে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও বিজ্ঞ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহীন সুলতানা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা কালে লকডাউনের বিধি নিষেধ অমান্য করায় আশাশুনি সদরের চাম্পাফুল (কালিবাড়ি) বাজারে ব্যবসায়ী সুনীল বিশ্বাসের পুত্র সুব্রত বিশ্বাসকে ৫০০ টাকা, একই বাজারের শান্তিরঞ্জন দেবনাথের পুত্র উৎপল দেবনাথকে ৫০০ টাকা এবং বুধহাটা ইউনিয়নের পাইথালী বাজারের ইব্রাহিম হোসেনর পুত্র রিপনকে ৫০০ টাকা, সর্বমোট ১৫০০ টাকা জরিমানা করেন। এছাড়া গাজীরমাঠ, বুধহাটা বাজারসহ বিভিন্ন বাজার এবং বিভিন্ন সড়কে টহল ও অভিযান পরিচালনা করা হয়। সাথে সাথে ভবিষ্যতে স্বাস্থ্য বিধি অমান্য না করার জন্য ব্যবসায়ী ও জনসাধারণকে সচেনতন করা হয়।

#

আশাশুনিতে ৯ম দিনে ৩০৪ জনকে টিকা প্রদান

এস কে হাসান ::

সারাদেশের ন্যায় আশাশুনি উপজেলায় পুনরায় করোনা টিকাদান শুরুর ৯ম দিনে ৩০৪ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। সোমবার (২৬ জুলাই) আশাশুনি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকাদান কার্যক্রমে পরিচালনা করা হয়।
সকাল ১০টা থেকে দুপুর পর্যন্ত টিকা প্রদান করা হয়। পূর্বে নিবন্ধনকৃত ও চলতি নিবন্ধনকরা ব্যক্তিরা টিকা গ্রহন করেন। এনিয়ে ২য় দফায় ৯ম দিনে ৩০৪ জনসহ সর্বমোট ২১৪৬ জন টিকা গ্রহন করলো।

#

সাড়ে চার লক্ষ ম্যানগ্রোভ চারা রোপণ কর্মসূচী গ্রহণ ফ্রেন্ডশিপের

এস কে হাসান ::

জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের ফলে বাংলাদেশের উপকূলীয় আঞ্চল অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। এঅঞ্চলের জনগণ অধিকাংশ ক্ষেত্রে দরিদ্র। তাদের মধ্যে কিছু মানুষ ভূমিহীন এবং তারা কৃষিকাজ, মাছ শিকার, চিংড়ী চাষ ও দিনমজুরের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকে। এছাড়াও সুন্দরবন সংলগ্ন লোকজন সুন্দরবন থেকে মাছ, কাঁকড়া, মধু সংগ্রহ করে থাকে। এ ধরনের দরিদ্র শ্রেণির মানুষ জলবায়ু ও আপদ দ্বারা আক্রান্ত। ১৯৯১ সালের ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়, ২০০৭ সালে সিডর, ২০০৮ সালে নার্গিস, ২০০৯ সালে আইলার মত ঘূণিঝড় উপকূলীয় এলাকায় আঘাত হানে। যার ফলে লক্ষ লক্ষ লোক প্রাণ হারায় ও বসতবাড়ি, রাস্তাঘাট ক্ষাতগ্রস্থ হয়।
উপকূলীয় এলাকায় ম্যানগ্রোভ ও অন্যান্য বনায়নের মাধ্যমে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সৃষ্ট আপদ ও দুর্যোগ যেমন ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস এর মত প্রাকৃতিক দুর্যোগের হাত থেকে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা কমিয়ে আনা সম্ভব হবে। এই লক্ষ্যে ফ্রেন্ডশিপ ২০১৮ সাল থেকে সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর ও আশাশুনি উপজেলায় ১৫০ হেক্টর চর বনায়ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। ইতিমধ্যে ৫০ হেক্টর চর জমিতে ১,৫০,০০০ টি বিভিন্ন প্রজাতির ম্যানগ্রোভ চারা রোপণ করেছে এবং আরো ১০০ হেক্টর জমিতে চারা রোপণের কার্যক্রম বাস্তবায়নাধীন আছে। শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ও রমজাননগর ইউনিয়নে মাদার ও মরাগাং নদীর তীরবর্তী ২২ হেক্টর চরে এবং আশাশুনি উপজেলার প্রাতাপনগর ও আনুলিয়া ইউনিয়নে কপোতাক্ষ নদ ও খোলপেটুয়া নদীর তীরবর্তী চরে ২৮ হেক্টর জমিতে বনায়নের কার্যক্রম সম্পন্ন হয়েছে।
ফ্রেন্ডশিপ ৪টি নার্সারীতে চারা উৎপাদন করে বনায়ন কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। বর্তমানে উক্ত নার্সারীতে ১,১০,০০০ টি চারা মজুদ আছে, যা পরবর্তীতে বনায়ন কর্মসূচীতে ব্যবহার করা হবে। ম্যানগ্রোভ বনায়নের ফলে নতুনভাবে জীববৈচিত্র সৃষ্টি হচ্ছে যা পরিবেশের জন্য উপকারি। ম্যানগ্রোভ বনায়নের ফলে স্থানীয় জনগণ মাছ, কাঁকড়া সংগ্রহ, মধু আহরণ করাতে পারবে, ফলে সুন্দরবনের উপর চাপ কমবে। স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করে উপজেলা বন কর্মকর্তার মাধ্যমে তাদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করে নার্সারীতে চারা উৎপাদন, বৃক্ষরোপণ ও পরিচর্যায় সকলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হচ্ছে। এছাড়া উপজেলা কৃষি অফিসার ও উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসারের মাধ্যমে বসত ভিটায় সবজী চাষ, জৈবসার প্রস্তুত, হাঁসমুরগী পালনের উপর সক্ষমতা বৃদ্ধি প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এর ফলে স্থানীয় জনগনের বিকল্প জীবিকায়নের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ফলে তাদের জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন হবে।
শ্যামনগর উপজেলার মুন্সিগঞ্জ ইউনিয়নের মীরগাং কমিউনিটির সদস্য মোছাঃ রেশমা বেগম বলেন, “সুন্দরবন আমাদের মা”। সুন্দরবন আমাদের ঝড়, জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষা করে। এখান থেকে আমরা কেওড়া, জ্বালানী কাঠ ও গোলপাতা পাই, যা আমাদের অনেক উপকারে লাগে।
আশাশুনি উপজেলার প্রতাপনগর ইউনিয়নের সনাতনকাঠি গ্রামের বাসিন্দা মোঃ মজিবর সানা বলেন, আপনারা যে গাছ লাগিয়েছেন তা আমাদের অনেক উপকার করছে। দুটি ঝড়ে আমরা রাস্তায় ছিলাম। এই বনায়নের কারনে রাস্তাগুলো ভাল আছে। যেসব জায়গায় গাছ নেই সেখানে বেঁড়ি বাঁধ ভেঙ্গে অনেক এলাকা প্লাবিত হয়েছে। রাস্তাঘাট, ফসলী জমি, মাছের ঘের, বেঁড়িবাঁধ ও ঘরবাড়ির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এজন্য বেশি করে গাছ লাগানো উচিত বলে তিনি মনে করেন।

#

শেখ সোহেলের সুস্থতা কামনা

এস কে হাসান ::

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভ্রাতুষ্পুত্র প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার চাচাতো ভাই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ সোহেল ও তার সহধর্মিনী অসুস্থ হয়ে চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের আশু রোগমুক্তি কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন, আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিম। তিনি সদা হাস্যোজ্জ্বল, দক্ষ রাজনীতিবিদ, সময়ের সাহসী, ত্যাগী ও যোগ্য নেতা শেখ সোহেলের আশু সুস্থতা কামনা করেছেন। একই সাথে তিনি সকলের কাছে তাদের জন্য দোয়া চেয়েছেন।

#