আশাশুনি সংবাদ ॥ সার্টিফিকেট মামলার আসামী গ্রেফতার


492 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ ॥ সার্টিফিকেট মামলার আসামী গ্রেফতার
মে ২৬, ২০১৮ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে কৃষি ব্যাংকের দায়েরকৃত সার্টিফিকেট মামলার এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে। শনিবার আসামীকে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।
উপজেলার পারিশামারী গ্রামের মৃত সৃধীর কৃষ্ণ বাছাড়ের পুত্র প্রাণেশ^র বাছাড় আশাশুনি কৃষি ব্যাংক থেকে ২০১১ সালে ৭৫০০০ হাজার টাকা ঋণ গ্রহন করেন। ঋণ ফোলিও ৪৬১ (১৪৫)। কিন্তু তিনি ঋণের টাকা পরিশোধ না করায় দীর্ঘদিন ১ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা ঋণ খেলাপী আছেন। বারবার তাগাদার পরও ঋণ পরিশোধ না করায় তার বিরুদ্ধে সিসি- ২২/১৭ নং মামলা রুজু করা হয়। মামলায় আসামীর বিরুদ্ধে ওয়ারেন্ট ইস্যু হলে পুলিশ শুক্রবার দিবাগত রাতে আসামীকে গ্রেফতার করেন। উল্লেখ্য ব্যাংকের আরও ১৮ জন ঋণ খেলাপীর বিরুদ্ধে ওয়ান্টে ইস্যু হয়েছে।
##
বুধহাটা মালেক মার্কেট থেকে সাইকেল চুরি
এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা বাজারের মালেক সুপার মার্কেট থেকে প্রকাশ্য দিবালোকে একটি বাইসাইকেল চুরি গেছে।
শে^তপুর গ্রামের আলাউল ইসলামের পুত্র বুধহাটা বিবিএম কলেজিয়েট স্কুলের ৯ম শ্রেণির ছাত্র ইমরান শনিবার সকাল ৮ টার দিকে মার্কেটের দোকানের পাশে সাইকেলে চাবি আটকে রেখে পাশে কাজ পড়ছিল। পড়াশেষে ফিরে দেখে তার হারকুইলেস ক্যাপ্টেন বাই সাইকেলটি নেই।
##


কাদাকাটি হলদেপোতা মোড়ে সরকারি জমিতে ঘর নির্মান চলছে

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার কাদাকাটি হলদেপোতা টু তেঁতুলিয়া সড়কের মোড়ে সরকারি খাস জমি দখল নিয়ে ঘর নির্মান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
হলদেপোতা মোড়ের পূর্বপাশে সড়কের জমি দখল নিয়ে কাদাকাটি গ্রামের মৃত উপেন্দ্র মন্ডলের পুত্র সুকুমার মন্ডল দীর্ঘ ১৫/২০ দিন ধরে পিলার করে পাকা ঘর নির্মানের কাজ করে আসছেন। প্রকাশ্যে সরকারি জমি দখল নিয়ে ঘর নির্মানের ঘটনায় এলাবাসীর মনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। সুকুমার মন্ডল সাংবাদিকদের জানান, তার রেকর্ডীয় জমি খাস করে নয়নজোল হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সেই জমিতে ঘর নির্মান করায় কোন অপরাধ হতে পারেনা। কাদাকাটি ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মোঃ মুকিত জানান, বিষয়টি আমার জানানেই। খোজ খবর নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
##

বড়দল ব্রীজ উদ্বোধনের আগেই এ্যাপ্রোজ সড়ক বসে গেছে

এস,কে হাসান ::
আশাশুনি উপজেলার বড়দল ব্রীজ উদ্বোধনের আগেই ব্রীজের এ্যাপ্রোজ সড়ক বসতে শুরু করেছে। ফলে সড়কের স্থায়িত্ব নিয়ে জনমনে সন্দেহের সৃষ্টি হয়েছে।
বড়দল ব্রীজটি নির্মান কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। বর্তমানে ব্রীজের দু’পাশে রং করার কাজ চলছে। বড়দলের পাড়ে এ্যাপ্রোজ সড়ক নির্মান কাজ শেষ হয় বেশ কয়েক মাস আগে। কিন্তু ১০/১৫ দিন আগে থেকে সড়কের দু’পার্শের বড় অংশ বসে যেতে শুরু করে। এবং কয়েক ইঞ্চি করে সড়ক ধ্বস নিয়ে বসে গেছে। ব্রীজের মুখের কাছে ঢালাইও ফেটে গেছে। ঠিকাদারের লোকজন কোন কোন স্থানে ইতিমধ্যে পুটিং এর ব্যবস্থা করেছেন। বাকী অংশ এখনো বসে আছে। কোন যানবাহন চলাচলের আগেই সড়ক বসে ফেটে যাওয়ায় জনমনে প্রশ্নের সৃষ্টি হয়েছে, যানবাহন চলাচল শুরু হলে কি অবস্থা হবে? বিষয়টি তদন্ত পূর্বক কার্যকর ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।
##