আশাশুনি সংবাদ : আশাশুনি প্রেসক্লাবে জেলা পরিষদের সদস্য দেলোয়ারকে সংবর্ধনা


342 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ : আশাশুনি প্রেসক্লাবে জেলা পরিষদের সদস্য দেলোয়ারকে সংবর্ধনা
এপ্রিল ১০, ২০১৭ আশাশুনি
Print Friendly, PDF & Email

আশাশুনি প্রতিনিধি ::

সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের ১৩ নং ওয়ার্ড সদস্য এবং জেলা পরিষদের স্থায়ী কমিটির (শিক্ষা বিভাগ) সভাপতি এস এম দেলোয়ার হোসাইনেকে আশাশুনি প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে।  সোমবার সকালে আশাশুনি সাংবাদিক কার্যালয়ে এ সংবর্ধনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি এস এম দেলোয়ার হোসাইন। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসক্লাব উপদেষ্টা একেএম এমদাদুল হক ও আশাশুনি উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান জি এম মতিয়ার রহমান।

এন এম বি রাশেদ সরোয়ার শেলীর সঞ্চালনায় সভায় অন্যদের মধ্যে প্রেসক্লাব সহ-সভাপতি আঃ আলিম, সাধারণ সম্পাদক জি এম আল-ফারুক, দপ্তর সম্পাদক আলী নেওয়াজ, অর্থ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, ক্রীড়া সম্পাদক এস কে হাসান, এম হাবিবুল্লাহ বিলালী, আকাশ হোসেন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সংবর্ধিত অতিথি বলেন, জনসেবার লক্ষ্যে রাজনীতিতে এসেছি। জনসেবা করে দায়িত্ব পালন করতে চাই। জেলা পরিষদের মত একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানের সদস্য হিসাবে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি, এসুযোগের সদ্ব্যবহার করতে চাই।

আশাশুনি প্রেসক্লাবের উন্নয়নে নগদ ৫ হাজার টাকা ব্যক্তিগত অনুদানের ঘোষণা দিয়ে প্রেসক্লাবের সার্বিক সহযোগিতা দানের পাশাপাশি সাংবাদিকদের পাশে থাকতে তিনি আশ্বাস প্রদান করেন।

এলাকার সমস্যা তুলে ধরার সাথে সাথে উন্নয়নের জন্য নিষ্ঠার সাথে সংবাদ প্রকাশের আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা সাবই আশাশুনির মানুষের কল্যাণে কাজ করলে আশাশুনিকে আধুনিক উপজেলায় পরিণত করা সম্ভব হবে।
##

সাংবাদিক নজরুল ইসলামের নামে মিথ্যা মামলার নিন্দা জ্ঞাপন

দৈনিক পূর্বাঞ্চল তালা উপজেলা প্রতিনিধি ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামের নামে মিথ্যা চাঁদাবাজী মামলার প্রতিবাদ জানিয়েছেন আশাশুনি প্রেসক্লাব নেতবৃন্দ। অবিলম্বে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবী জনিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন, প্রেসক্লাব উপদেষ্টা একেএম এমদাদুল হক, অধ্যাপক সুবোধ

চক্রবর্তী, রমেশ চন্দ্র বসাক, সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান, সহ-সভাপতি আব্দুল আলিম, সাধারণ সম্পাদক জি এম আল-ফারুক, যুগ্ম সম্পাদক প্রভাষক মাসুদুর রহমান, সংগঠনিক সম্পাদক  সমীর রায়, দপ্তর সম্পাদক, আলী নেওয়াজ, অর্থ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা, প্রকাশনা সম্পাদক প্রভাষক

শাহাদাৎ হোসেন টিটল, সহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক সচ্চিদানন্দদে সদয়, প্রচার সম্পাদক, বাহবুল হাসনাইন বাবুল, ক্রীড়া সম্পাদক এস কে হাসান, কার্য নির্বাহী সদস্য ও সাবেক সেক্রেটারী এস এম আহসান হাবিব, এম হাবিবুল্লাহ বিলালী, সদস্য গোপাল কুমার মন্ডল, হাসান ইকবাল মামুন, বোরহান উদ্দিন বুলু, আকাশ হোসেন, সাংবাদিক এস এম শাহিন রেজা, শেখ আরাফাত প্রমুখ।

##

বুধহাটায় শ্মশান সমাধিতে বাধা প্রদানের প্রতিবাদে মানববন্ধন

আশাশুনি বুধহাটায় রিশি সম্প্রদায়ের শ্মশান ঘাটে সমাধিতে বাধা প্রদান এবং হুমকী ধামকীর প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকেলে বুধহাটা গীর্জার সামনের সড়কে রিশি সম্প্রদায়ের নারী-পুরুষ-শিশুরা মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেন।

মানবন্ধনে কেনাদাশ, রঞ্জন দাশ, বিশ্বনাথ দাশ, সন্তোষ দাশ ও মনো দাশসহ উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ জানায়, কুল্যা-বেনাডাঙ্গা মৌজায় ১ নং খাস খতিয়ানে ১৭৫২ দাগে ১৬ শতক জমি শ্মশানের জন্য বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরার নামে রেকর্ড হয়েছে।

প্রায় ৩শ’ বছর পূর্ব থেকে রিশি সম্প্রদায়ের লোক শ্মশাস ঘাট হিসাবে মৃত ব্যক্তিদের সমাধি দিয়ে আসছে। ২০১২ সালে এই জমিতে বুধহাটা গ্রামের সুরাত সরদারের পুত্র আনিছ, ইসমাইল সরদারের পুত্র হচেন, পরশ সরদারের পুত্র ছোট নুনু অবৈধ দখল নিতে গেলে সম্প্রদায়ের পক্ষ থেকে ইউএনও বরাবর প্রতিকার প্রার্থনা করে আবেদন করে।

তখন উপজেলা চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিমের পক্ষে আবম মোছাদ্দেক ও মৃত বোধন সরকার সরেজমিন পরিদর্শন করে শ্মশানের সীমানা নির্দ্ধারন করে দখল বুৃঝিয়ে দেন। সেই থেকে তারা সেখানে শান্তিপূর্ণ দখলে আছে।

মানববন্ধনকারীরা জানায়, গত শনিবার বিকালে তারা শ্মশানে লাশ নিয়ে গেলে আনিছ ও আবু বাধা প্রদান করে। তারা বাধা উপেক্ষা করে সমাধি দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এদিন রাত্র ৮টার দিকে তারা দলবল নিয়ে রিশি পল্লীতে ঢুকে হাত পা ভেঙ্গে দেবে, শ্মশানে গেলে মজা দেখিয়ে দেবে ইত্যাদি হুমকী দিয়ে আসে। এব্যাপারে প্রতিকার প্রার্থনা ও অবৈধ দখলমুক্ত করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে।
##