আশাশুনি সংবাদ : আশাশুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মনভরে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনলেন শিক্ষার্থীরা


362 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
আশাশুনি সংবাদ : আশাশুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মনভরে মুক্তিযুদ্ধের গল্প শুনলেন শিক্ষার্থীরা
জানুয়ারি ৯, ২০১৬ আশাশুনি ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,কে হাসান ঃ
আশাশুনি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল (শনিবার) দুপুর ১ টায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
স্কুলের সহ¯্রাধিক ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে বিদ্যালয়ের পুকুর কাননে আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি চারণ করেন এবং সঠিক ইতিহাস তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, আশাশুনি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মোঃ আব্দুল হান্নান। স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশরাফুন নাহার নার্গিসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার সরদার মোঃ নাজিম উদ্দিন, সহকারী কমান্ডার মোঃ লিয়াকত আলি ও আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি জি এম মুজিবুর রহমান। সহকারী শিক্ষক আনিছুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আশাশুনি প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক জি এম আল-ফারুক ও সকল শিক্ষকমন্ডলী উপস্থিত ছিলেন। নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তোলা ও দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চলচিত্র প্রদর্শন ও মুক্তিযোদ্ধা কর্তৃক স্বাধীনতা যুদ্ধের গল্প শোনানো অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা স্বাধীনতা যুদ্ধের সঠিক ইতিহাসের ধারনা পেয়ে অনেক উপকৃত হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
##
আশাশুনিতে সড়ক দুর্ঘটনায়
আহত-২

আশাশুনি টু সাতক্ষীরা সড়কে মটর সাইকেলের উপর ট্রাক উঠে যাওয়ায় দুই জন আহত হয়েছে। ঘটনা ঘটেছে গতকাল (শনিবার) বিকাল সাড়ে ৩ টার দিকে সড়কের কুলতিয়া নামক স্থানে।
কয়রা গ্রামের সন্তোষ কুমার মন্ডলের পুত্র বিধান মন্ডল মটর সাইকেলে সাতক্ষীরা যাচ্ছিলেন। তার পিছনে একই গ্রামের মধু সুদন মন্ডলের পুত্র শংকর মটর সাইকেলে ছিলেন। কুলতিয়া নামক স্থানে পৌছলে পিছন থেকে মাছ নিয়ে দ্রুত গতিতে যাওয়া একটি ট্রাক মটর সাইকেলকে ধাক্কা দিলে মটর সাইকেলটি রাস্তার পাশে ছিটকে পড়ে। পিছনের যাত্রী রাস্তার উপর পড়লে সৌভাগ্যক্রমে সে বেঁচে যায়। গুরুতর আহত বিধান ও শংকরকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। ট্রাকটি দ্রুত পালিয়ে যায়।
##

নওয়াপাড়ার মটর শ্রমিক
শহিদুল আহত

আশাশুনি উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের আঃ জফফার সরদারের পুত্র বাস শ্রমিক শহিদুল ইসলাম গুরুতর আহত হয়েছেন।
গতকাল (শনিবার) সকালে তিনি সাতক্ষীরা বাস টার্মিনালে বাসের চাকা মেরামতের কাজ করছিলেন। চাকা লাগানোর সময় অসর্তকতা বশত চাকা ছিটকে তার মুখে আঘাত করলে তার মুখমন্ডল থেতলে যায়। তাকে প্রথমে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে এবং পরে খুলনা হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।
##

টাকার অভাবে জীবন দিতে হলো
৭ বছরের রাহুলকে

শনিবার সকাল ৯ টায় চাম্পাফুলে ভাড়াটিয়া হযরত আলীর ৭ বছরের ছেলে অসুস্থতার কারণে রক্ত পায়খানা করতে করতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। জানা যায় রাহুলের দীর্ঘ দিন শ্বাস নালীতে ইনফেকশান ছিলো। তার শ্বাস নালীতে একবার অস্ত্রপাচারও করা হয়। একদিন খেলতে যেয়ে রাহুল হঠাৎ পড়ে যায়। সেখান থেকে সে অসুস্থ ছিল। টাকার অভাবে তাকে ভালোভাবে চিকিৎসাও করাতে পারেনি পিতা হযরত আলী। তার ফল স্বরূপ রাহুলের জীবনের বিনিময়ে খেসারত দিতে হলো হযরত আলীকে। তার গ্রামের বাড়ি যশোর নাভারনের বুরুজতলায়।