ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে শেষ চারে অস্ট্রেলিয়া


164 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে শেষ চারে অস্ট্রেলিয়া
জুন ২৫, ২০১৯ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

ইংল্যান্ডকে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে উঠল অস্ট্রেলিয়া। লর্ডসে ইংলিশদের ৬৪ রানে হারিয়েছে অজিরা। এই হারে ইংল্যান্ডের সেমিফাইনালের স্বপ্ন কিছুটা হলেও বিবর্ণ হয়ে উঠল। শেষ চারে উঠতে হলে ভারত ও নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ দুটি ম্যাচেই জিততে হবে বিশ্বকাপের আয়োজক দেশটিকে।

হোম অব ক্রিকেট গ্রাউন্ড লর্ডসে শুরুতে ব্যাট করে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২৮৫ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে জেসন বেহারেনড্রফ ও মিচেল স্টার্কের আগুনে বোলিংয়ের সামনে ৩২ বল বাকি থাকতে মাত্র ২২১ রানে অলআউট হয় ইংল্যান্ড।

লর্ডসে ২৮৬ রান অনেক বড় লক্ষ্য ইংল্যান্ড সেটা জানত। জিততে হলে শুরুটা ভালো করতে হবে সেটা জানা ছিল মরগানের। সেই লক্ষ্যেই মাঠে নেমেছিলেন জেমস ভিঞ্চ ও জনি বেয়ারস্টো।

বিধিবাম! প্রথম ওভারেই ইংল্যান্ডের জয়ের স্বপ্নে জোরেসোরে একটা ধাক্কা দেন বেহারেনড্রফ। ম্যাচের দ্বিতীয় বলেই ভিঞ্চের উইকেট ছিন্নভিন্ন করে দেন এই পেসার। শোকের ছায়াটা চেহারা থেকে যেতে না যেতেই জো রুটকে ফিরিয়ে দেন মিচেল স্টার্ক। ইংল্যান্ডের রান তখন মাত্র ১৫!

রুটের পর ইংল্যান্ডকে হতাশ করেন ইয়ন মরগানও। স্টার্কের বলে প্যাট কামিন্সকে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি। ইংল্যান্ডের স্কোরে তখন ২৬ রান! দলীয় ৫৩ রানে বেয়ারস্টোকে ফিরিয়ে দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে জয়ের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে আসেন বেহারেনড্রফ।

চার উইকেট হারানোর পর ইংল্যান্ড ম্যাচে ফিরবে এটা কেউই আশা করেনি। তবে একেবারে হাল ছেড়ে দিতে নারাজ ছিলেন বেন স্টোকস ও জস বাটলার। এই জুটিতে আসে ৭১ রান। ইংল্যান্ড যখন ম্যাচে ফিরব..ফিরছি করছিল ঠিক তখনই জস বাটলারকে ফিরিয়ে দিয়ে কাজের কাজটি করেন মার্কাস স্টয়নিস। ২৭ বলে ২৫ রান করেন বাটলার।

বাটলার ফিরে যাওয়ার পরই মূলত ইংল্যান্ডের বড় হার নিশ্চিত হয়। বাকি সময়টুকু কেবল ব্যবধান কমানোর চেষ্টা করেছেন বেন স্টোকস, ক্রিস ওকসরা। স্টোকস ৮৯, ওকস ২৬, আদিল রশিদ ২৫ রান করেন।

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে জেসন বেহারেনড্রফ পাঁচটি ও মিচেল স্টার্ক নেন চারটি উইকেট।

অস্ট্রেলিয়ার রানটা তিনশ’ ছাড়ানো হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু শেষ দিকের ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় অস্ট্রেলিয়া সেটা পারেনি। এর আগে অস্ট্রেলিয়া শুরুতে ব্যাট করতে নেমে প্রথম উইকেট হারায় ১২৩ রানে। ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার ৫৩ রান করে আউট হন। অন্য ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ করেন ১০০ রান। শেষ দিকে অ্যালেক্স কেরি ৩৮ রান করেন। তার আগে স্টিভ স্মিথ ৩৮ এবং উসমান খাজা করেন ২৩ রান।