ইরানের ওপর সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করলো যুক্তরাষ্ট্র


159 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ইরানের ওপর সব নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করলো যুক্তরাষ্ট্র
নভেম্বর ৫, ২০১৮ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

পরমাণু চুক্তির আওতায় ২০১৫ সালে ইরানের ওপর থেকে যে নিষেধাজ্ঞাগুলো প্রত্যাহার করেছিল যুক্তরাষ্ট্র তার সবগুলোই নতুন করে আবারও আরোপ করা হয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের তেলসমৃদ্ধ দেশটির ওপর।

সোমবার ট্রাম্প প্রশাসন ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞাগুলো পুনর্বহালের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ইরানের ওপর যুক্তরাষ্ট্র নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে— এমন খবরে রোববার তেহরানে মার্কিন দূতাবাসের সামনে তীব্র বিক্ষোভ হয়। বিক্ষোভকারী ‘আমেরিকা নিপাত যাক’ বলে স্লোগান দেয়ার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রে পতাকা পুড়িয়ে দেয়। এমন বিক্ষোভের পর সোমবার যুক্তরাষ্ট্রে পক্ষ থেকে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের বিষয়টি নিশ্চিত করা হলো।

নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল হওয়ায় ইরানের অর্থনীতির মূল চালিকা শক্তি জ্বালানি তেল রফতানি, সমুদ্র পথে পণ্য পরিবহন বা শিপিং এবং অন্য দেশের সঙ্গে ব্যাংকি বন্ধ হয়ে যাবে।

ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালের বিষয়টিকে ‘ষড়যন্ত্র’ আখ্যায়িত করে দেশটির প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছেন, ‘এতে কোনো সন্দেহ নেই যে ইরানের বিরুদ্ধে নতুন এ‌ই ষড়যন্ত্র করে যুক্তরাষ্ট্র কোনো সাফল্য অর্জন করতে পারবে না।’

 

ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের করা পরমাণু চুক্তি থেকে চলতি বছরের শুরুতে বেরিয়ে আসেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

ইরান বিশেষ করে তেল রফতানির ওপর অতিমাত্রায় নির্ভরশীল এবং নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল হওয়ায় দেশটির অর্থনীতিতে তা মারাত্মক প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

ইরানের সঙ্গে ২০১৫ সালে করা এক বহুপাক্ষিক চুক্তিকে ‘ভয়ঙ্কর’ আখ্যা দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প চলতি বছরের শুরুর দিকে সেই চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসেন। ওই চুক্তির ফলে ইরানের পরমাণু কর্মসূচির ওপর সরাসরি নজরদারি প্রতিষ্ঠা হয়েছিল, যার বিনিময়ে দেশটির ওপর থেকে বড় পরিসরে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা। কিন্তু সেই চুক্তি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার বেশ কয়েক মাস পর যুক্তরাষ্ট্র ইরানের ওপর নিষেধাজ্ঞাগুলো পুনর্বহাল করলো।

নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল হওয়ায় ইরানের সঙ্গে কোনো দেশ বাণিজ্যিক সম্পর্ক রাখলে তাকেও নিষেধাজ্ঞার শিকার হতে হবে। অর্থাৎ কেউ ইরানের সঙ্গে ব্যবসা করলে যুক্তরাষ্ট্রের দরজা তাদের জন্য বন্ধ হয়ে যাবে। একইসঙ্গে এই নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানে ব্যবসা করে এমন কোম্পানির সঙ্গে কোনো মার্কিন কোম্পানি ব্যবসা করলে সেই মার্কিন কোম্পানিকেও শাস্তির মুখে পড়তে হবে।

এর আগে গত আগস্টে ইরানের স্বর্ণ, মূল্যবান ধাতু এবং অটোমোবাইল সেক্টরসহ বেশকিছু শিল্পখাতে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল।