ইয়াবাতে সয়লাব সাতক্ষীরা !


1734 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ইয়াবাতে সয়লাব সাতক্ষীরা !
জুন ১৮, ২০১৭ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

শেখ আরিফুল ইসলাম আশা ::
আবারও সাতক্ষীরার জনপদে ভয়ংকর মাদক ইয়াবাতে সয়লাব হয়ে গেছে। বৃদ্ধি পেয়েছে সেবন বিক্রি ও ব্যবসায়ী। ধরাছোঁয়ার বাইরে থেকে যাচ্ছে ইয়াবা চক্রের মূলে যারা রয়েছে,যারা ইয়াবার ডিলার। গোপন সূত্র জানায় জেলার কয়েকটি ইয়াবা চক্রের মূল হোতারা পুলিশ ও রাজনৈতিক দের সাথে যোগাযোগ রেখেই আন্ডার গ্রাউন্ডে থেকেই ব্যবসা পরিচালনা করছেন। কোন বাধা ছাড়াই পুরো জেলায় ইয়াবাতে সয়লাব করে ফেলেছে ইয়াবা চক্র গুলো।
অপ্রতিরোধ্য মরণঘাতী নেশা ইয়াবা এখন অপরাধের প্রধান নিয়ামক হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই ভয়াল মাদকাসক্তি তারুণ্য, মেধা, বিবেক, লেখাপড়া, মনুষ্যত্ব সবকিছু ধ্বংস করে দিচ্ছে। বিনষ্ট করে দিচ্ছে স্নেহ, মায়া, ভালোবাসা,পারিবারিক বন্ধন পর্যন্ত। ইয়াবায় আসক্ত সন্তানের হাতে অহরহ বাবা-মা, ঘনিষ্ঠ স্বজন নির্মম হত্যাকাণ্ডের শিকার হচ্ছেন। নেশাখোর বাবা মাদক সংগ্রহে ব্যর্থ হওয়ার ক্রোধে নিজ সন্তানকে খুন করছেন অবলীলায়। নেশার টাকা না পেয়ে স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে মারা, মাকে জবাই করা, আদরের সন্তানকে বিক্রি করে দেওয়ার মতো অমানবিক ঘটনাও ঘটেছে প্রতিনিয়ত।
সম্প্রতি সাতক্ষীরার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া কিছু উদ্বেগজনক ঘটনা যা জেলার সাধারণ মানুষদের ভাবিয়ে তুলছে বারবার। জেলার বিশিষ্ট জনেরা বলেছেন মাদকের প্রভাবেই এসব অমানবিক ঘটনার সূত্রপাত।
সম্প্রতি সাতক্ষীরায় ঘটে যাওয়া অমানবিক ঘটনা –
২১মে জেলার শ্যামনগরে টাকা চেয়ে নাপাওয়াই এক ইমাম কে গলা কেটে হত্যা করে মাদকাসক্ত শ্যালক।
এরপর ২৭ মে সদরের বকচারায় নাতি কে কুপিয়ে হত্যা করে দাদা।
৩জুন সাতক্ষীরার কলারোয়াই স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যার এক দিনের মাথায় স্ত্রীর কবরের পাশে যেয়ে বিষ পানে আত্মহত্যা করেন স্বামী।
এছাড়া ৬জুন উপজেলা কালীগঞ্জের জগন্নাথপুরে গ্রামে জামরুল গাছ থেকে স্বামী স্ত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।
৮জুন দ্বিতীয় বার মেয়ে হওয়ায় ১৫ দিন বয়সী কন্যা শিশুকে পুকুরে ছুড়ে ফেলে হত্যা করে পিতা। উপজেলা শ্যামনগরে নির্মম এ হত্যার ঘটনা ঘটে।
১০জুন আশাশুনি উপজেলায় দাহ পদার্থ দিয়ে স্ত্রীর শরীরে আগুনে ঝলসে দিলে ১৭ জুন স্ত্রীর মৃত্যু হয়।
১১জুন সাতক্ষীরার সদরে ছেলের লাঠির আঘাতে নিহত হন পিতা।
এছাড়া ১২ জুন তালা উপজেলায় স্ত্রীকে কুপিয়ে পরে গলায় ফাঁস দিয়ে স্বামীর আত্মহত্যা।
এসব ঘটনায় জেলা বাসি হতবাক,আতঙ্কগ্রস্থ হয়েছে, রয়েছে উদ্বেগে। আর জেলার বিভিন্ন জনের মন্তব্য এমনই মাদকের ভয়াবহতার কারণে এসব অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটছে।
এব্যাপারে বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও স্বদেশ এনজিও পরিচালক মাদব দত্ত বলেন দিন দিন সাতক্ষীরায় অপ্রতিরোধ্য ভাবে মাদকের অপব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। মাদকের প্রভাবে আজ সমাজে নানান অপরাধ মূলক ঘটনা ঘটছে। হত্যা, আত্মহত্যা,শিশু ধর্ষণ মতো ঘটনা ঘটছে প্রতিনিয়তই।
স্বদেশ পরিচালক আরো বলেন মাদকাসক্ত দের মধ্যে বড়ো অংশ যুবকদের। এসমাজে যুবকরা মাদকের প্রভাবে বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে পড়েছে,মেধা হীন পড়ছে । এই মুহূর্তে এর প্রতিকার না করলে আরো ভয়ংকর ঘটনা ঘটবে।
মাদকের ভয়াবহতা উল্লেখ করে স্বদেশ এনজিও পরিচালক মাদব দত্ত উদ্বেগ প্রকাশ করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা ও সমাজের সকলকে মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান।
খোঁজ নিয়ে জানাজায় জেলার সব উপজেলার মাদক ব্যাপক ভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। বিশেষ করে ইয়াবা চোরাচালান বিক্রি বহন সেবনে জড়িয়ে গেছে জেলার যুবক নারী শিশু ও ভিন্ন বয়সের অনেকেই।