উন্নয়নের জন্য ও নিপীড়িত মানুষের পক্ষে কাজ করব : মেয়র প্রার্থী আজহার হোসেন


424 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
উন্নয়নের জন্য ও নিপীড়িত মানুষের পক্ষে কাজ করব : মেয়র প্রার্থী আজহার হোসেন
অক্টোবর ১৮, ২০১৫ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

নাজমুল হক:
সফল ব্যবসায়ী, সাতক্ষীরা চেম্বার অব কমার্সের প্রাক্তন সভাপতি, জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি ও দলের একক প্রার্থী শেখ আজহার হোসেন সাতক্ষীরা পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন।

আসন্ন নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী এই প্রার্থী একান্ত সাক্ষাতকারে বলেছেন, প্রথম শ্রেণির নাগরিক অধিকার সংরক্ষণে নিবেদিত প্রাণ হিসেবে কাজ করবেন তিনি। পৌরবাসীর স্থানীয় সমস্যাগুলো চি‎িহ্নত করে দ্রুত সমাধানের উদ্যোগ নিবেন।
তিনি আরো বলেন, সাতক্ষীরা পৌরসভা প্রথম শ্রেণির হলেও নাগরিকরা কোন রকম প্রথম শ্রেণির সুযোগ-সুবিধা পায়নি। রাস্তা-ঘাট সংস্কার হয়নি দীর্ঘদিন। ফলে রাস্তা জরাজীর্ণ অবস্থায় আছে। তিনি আরো বলেন, শহরের একটি বড় অংশ বর্ষায় জলাবদ্ধতা থাকে। ফলে মানুষের নিত্য দিনের কাজ ব্যহত হয়।

জলাবদ্ধতার কারণে মানুষ শহরে বসবাসের সুবিধে পায়না। জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী আজহার হোসেন বলেন, তিনি নির্বাচিত হলে রাস্তাঘাটের উন্নয়নসহ জলাবদ্ধতা দূর করার জন্য স্থায়ী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। পৌরসভার ট্রিটমেন্ট প্লান্টের সাথে গভীর নলকূপের সংযোগ দেওয়ায় পৌর সরবরাহের পানি পানের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। কিন্তু এ সংমিশ্রণ দূর করতে হবে।
তিনি নির্বাচিত হলে শহরের পরিবহন ব্যবস্থার মান উন্নয়ন করবেন জানিয়ে দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত এ রাজনীতিবিধ আরো বলেন, মানুষ পৌরসভায় গত ৫ বছরে কাঙ্খিত কোন উন্নয়ন দেখতে পায়নি। তারা শুধু আশার কথা শুনেছেন। কিন্তু নির্বাচিত কোন মেয়র ক্ষমতায় গিয়ে জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রুতি রাখেন নি। তিনি আরো বলেন, এবার দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হবে। অন্যদলে বিভেদ থাকলেও জাতীয় পার্টিতে কোন বিভেদ নেই। পার্টির একক প্রার্থী দাবী করে তিনি আরো বলেন, শহরে বিনোদনের কোন স্থান নেই। বিনোদনের স্থান দিনে দিনে সংকুচিত হচ্ছে। কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ছে না। তিনি নির্বাচিত হলে শহরে শিশুদের জন্য চিত্ত বিনোদনের জন্য পৃথক স্থান নির্ধারণ করবেন। শহরের ভিতর দিয়ে বয়ে যায় প্রাণ সায়েরের খাল ডাস্টবিনে পরিণত হয়েছে। ময়লা ফেলার কারণে খালটি এখন ধুকে ধুকে মরছে। তিনি খালের প্রাণ ফিরিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহন করবেন।

পৌর নির্বাচনে অন্যতম শক্তিশালী এ প্রার্থী আরো বলেন, পৌরসভাকে একটি মডেল ও আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর পৌরসভা গড়ার জন্য সকল ধরণের উদ্যোগ গ্রহণ করবেন । বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী শেখ আহজার হোসেন ছাত্র ইউনিয়ন দিয়ে রাজনীতি শুরু করেন। তিনি পরবর্তীতে বিপ্লবী ছাত্র ইউনিয়ন, ভাসানী ন্যাপ, ইউনাইটেড পিপলস পার্টির সাথেও যুক্ত হন। তবে ১৯৮৪ সাল থেকে তিনি জাতীয় পার্টির রাজনীতি শুরু করেন। ২০১২ সাল থেকে জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। পৌরসভা নিয়ে, মানুষের সুখে-দুঃখে পাশে দাঁড়িয়ে তাদের কাঁধে কাঁধ রেখে উন্নয়নের জন্য ও নিপীড়িত মানুষের পক্ষে কাজ করার জন্য সকলের সাহয্য, সহযোগিতা ও সমার্থন কামনা করেছেন।