এই নাট্য উৎসব সাতক্ষীরায় সাংস্কৃতিক জাগরণ ঘটাবে : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়


108 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
এই নাট্য উৎসব সাতক্ষীরায় সাংস্কৃতিক জাগরণ ঘটাবে : জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়
নভেম্বর ১, ২০১৯ ফটো গ্যালারি বিনোদন সাতক্ষীরা সদর
Print Friendly, PDF & Email

দুর্নীতিমুক্ত ‘ক্লিন সাতক্ষীরা, গ্রিন সাতক্ষীরা’ বাস্তবায়নে সকলকে শামিল হওয়ার আহবান

ডেস্ক রিপোর্ট ::

দুর্নীতিমুক্ত ‘ক্লিন সাতক্ষীরা, গ্রিন সাতক্ষীরা’ বাস্তবায়নে সকলকে শামিল হওয়ার আহবানের মধ্যদিয়ে শেষ হলো সপ্তাহব্যাপী নাট্য উৎসব ২০১৯।
বৃহস্পতিবার জেলা প্রশাসন ও জেলা শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত এই নাট্য উৎসবের সমাপনী দিনে শত শত দর্শক-শ্রোতার উপস্থিতিতে মঞ্চস্থ হয় নাটক ‘ডালিম কুমার’।
জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে নাটক ডালিম কুমার-এ দেখানো হয় অমরাবতীর রাজা বিক্রম প্রতাপ ধনধান্যে প্রজা-পাটে সুখি হলেও নিঃসন্তান ছিলেন। তার দুই রাণীর কেউই রাজ্যের ভবিষ্যৎ উত্তরাধিকারীর জন্ম দিতে পারেনি। কিন্তু হঠাৎ এক দৈবজ্ঞ দরবেশের আর্শিবাদে বড় রাণী গর্ভ ধারণ করেন এবং এক পুত্র সন্তান জন্ম দেন। ডালিম ফুলের রস খেয়ে পুত্র হওয়ায় রাণী খুশিতে তার নাম ডালিম কুমার রাখেন….. গদ্য রীতিতে সংলাপ ও গানে গানে বর্ণিত কাহিনিটিকে নাট্য রূপ দেন মঞ্চ অভিনেতারা।
সেই সাথে সংলাপে সংলাপে করতালিতে প্রাণের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন দর্শনার্থীরা।
পরে ভারত থেকে আগত সংগীত শিল্পী অরবিন্দু ঘোষ ও তার দলের সদস্য পরিবেশন করে সংগীত ও আবৃত্তি। যা নাট্য উৎসবে নতুন মাত্রা যোগ করে।
সবশেষে সপ্তাহব্যাপী নাট্য উৎসবে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ক্রেস্ট, সনদপত্র ও উত্তরীয় প্রদান করা হয়।
জেলা প্রশাসক এস.এম মোস্তফা কামালের সভাপতিত্বে সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট নাট্যকার জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আসাদুজ্জামান বাবু, ভারতের সংগীত শিল্পী অরবিন্দু মুখার্জী প্রমুখ।
এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি রবি ‘ক্লিন সাতক্ষীরা, গ্রিন সাতক্ষীরা’ বাস্তবায়নে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশিষ্ট নাট্যকার জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় বলেন, দীর্ঘদিন পরে এই নাট্য উৎসব সাতক্ষীরায় সাংস্কৃতিক জাগরণ ঘটাবে। এ জন্য এর ধারাবাহিকতা রক্ষা জরুরী।
সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামাল বলেন, নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় গড়ে তোলা এবং দুর্নীতিমুক্ত ‘ক্লিন সাতক্ষীরা, গ্রিন সাতক্ষীরা’ বাস্তবায়নে এই নাট্য উৎসব সবার মাঝে নতুন চেতনার জাগরণ ঘটাবে। যা সাতক্ষীরায় সাংস্কৃতিক বিপ্লব ঘটাতে সহায়ক হবে।