একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কেশবপুর আসনে জামানত হারালেন যারা


311 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কেশবপুর আসনে জামানত হারালেন যারা
জানুয়ারি ৭, ২০১৯ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আব্দুল্লাহ আল ফুয়াদ ::

সদ্য সমাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যশোর-৬ নির্বাচনী এলাকা (কেশবপুর) আসনে মোট ৫ জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করেন। তাদের মধ্যে মহাজোট প্রার্থী ইসমাত আরা সাদেক বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করেছেন। অপরদিকে বাকিরা জামানত হারিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনের রীতি অনুসারে মোট কাষ্টিং ভোটের শতকরা ৮ ভাগ ভোট না পেলে জামানত বাজেয়াপ্ত হওয়ার নিয়ম রয়েছে।
কেশবপুর উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১টি পৌরসভা ও কেশবপুর উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন নিয়ে যশোর -৬ আসনটি গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার ১ লাখ ৯৩ হাজার ৫’শ ৩৪ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৯৭ হাজার ১’শ ১ জন এবং নারী ৯৬ হাজার ৪’শ ৩৩ জন।
সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, এ আসনের মোট ১ লাখ ৯৩ হাজার ৫’শ ৩৪ ভোটের মধ্যে মোট ১ লাখ ৬৫ হাজার ২’শ ৮৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে ১ হাজার ২’শ ১১ ভোট বাতিল হয়েছে। নির্বাচনে ৫ জন প্রার্থী অংশগ্রহন করেন। তাদের মধ্যে মহাজোট মনোনীত বর্তমান এমপি নৌকা প্রতিকের প্রার্থী ইসমাত আরা সাদেক সর্বোচ্চ ১ লাখ ৫৬ হাজার ৫’শ ৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। অন্যান্যের মধ্যে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত ধানের শীষ প্রতিকের আবুল হোসেন আজাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ৬’শ ৭৩ ভোট, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ হাত পাখার প্রার্থী আবু ইউসুফ পেয়েছেন ১১’শ ৭০ ভোট, জাকের পার্টির গোলাপফুল প্রতিকের সাইদুজ্জামান পেয়েছেন ৩’শ ৮০ ভোট, জাতীয় পার্টির প্রার্থী মাহবুব আলম লাঙ্গল প্রতিকে পেয়েছেন মাত্র ৩’শ ৫১ ভোট।
কেশবপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা বজলুর রশিদ জানান, এ আসনটিতে মোট যে ভোট কাস্ট হয়েছে তার মধ্যে শতকরা কমপক্ষে ৮ ভাগ ভোট না পেলে না পাওয়া প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। এ আসনে মোট ১ লাখ ৬৪ হাজার ৭৭ ভোট কাষ্ট হয়েছে। এ ভোটের শতকরা ৮ ভাগ অর্থাৎ ১৩ হাজার ১’শ ২৬ ভোট না পেলে জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। নির্বাচনের নিয়মানুসারে এ আসনের বিজয়ী প্রার্থী ইসমাত আরা সাদেক ছাড়া কোন প্রার্থীই জামানত বাঁচানোর মত ভোট পাননি। ফলে বিধিমোতাবেক তাদের জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

##