এবার লড়াই ফাইনালে ওঠার


114 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
এবার লড়াই ফাইনালে ওঠার
জুলাই ৮, ২০১৯ খেলা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

ম্যানইউ আর ম্যান সিটি- দুটি বড় ক্লাব নিয়ে ম্যানচেস্টারের গর্বের যেন শেষ নেই। ফুটবলই এই শহরের প্রাণস্পন্দন, এখানকার লোকেরা নাকি সপ্তাহের হাতে আসা বেতনের একটা অংশ ওই দুই স্টেডিয়ামে খেলা দেখার জন্যই জমিয়ে রাখে! তা ফুটবলের এই আবেগী শহরেই প্রথম সেমিফাইনালের ম্যাচ পড়েছে ভারত আর নিউজিল্যান্ডের। বার্মিংহামে পড়েছে ইংল্যান্ড আর অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ- আসলে হিসাবটা একটু এদিক-ওদিক করে দিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। শেষ ম্যাচে তারা অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর কারণেই দ্বিতীয় হয়েছে অ্যারন ফিঞ্চরা, কোহলির ভারত লংকাকে হারিয়ে শীর্ষে।

প্রোটিয়াদের শেষবেলায় জ্বলে ওঠার কারণে বাংলাদেশকেও আট নম্বরে নামতে হয়েছে। এক বনাম চার, দুই বনাম তিনের এই সেমির লড়াইয়ে দু’দিনের বিশ্রাম নিয়েছে বিশ্বকাপ। বাকি ছয় দলকে বিমানে উঠিয়ে এখন এই চার দলের জন্যই মঞ্চ ঠিক করা হয়েছে। লড়াই এখন ফোরটিন জুলাই লর্ডসের ফাইনালের জন্য।

ওই দিন আবার উইম্বলডন টেনিসেরও ফাইনাল, ব্রিটিশদের আগ্রহের পারদটা টেনিসেই বেশি। বিশ্বকাপ আয়োজকরা মনেপ্রাণে চাইছে কোহলিরা যেন ফাইনালে উঠতে পারে, তাহলে অন্তত শেষ দিন পর্যন্ত উন্মাদনা টিকে থাকবে। এমনিতেই বাংলাদেশ এবং পাকিস্তান, ক্রিকেট নিয়ে যে দুই দেশের লোকেরা সবচেয়ে বেশি উৎসবমুখর ছিল গোটা আসরে। সমর্থকদের উপস্থিতিতে গমগম করত যে শহরগুলো, সেখানেই এখন ক্রিকেট উৎসবের ভাটা। ম্যানচেস্টারের বেটিং সাইটগুলো কালকের ভারত- নিউজিল্যান্ড ম্যাচ নিয়ে কোহলিদের পক্ষেই বাজির দর বেশি রেখেছে। সেই সঙ্গে রোহিত শর্মা সেঞ্চুরি করবে কি-না- তা নিয়েও বেটিং সাইটগুলোতে একেক ধরনের রেট দিচ্ছে। এই মুহূর্তে কোহলি কিংবা ধোনি নন, ভারতের তারকা মুখ এই রোহিত শর্মাই। পাঁচ সেঞ্চুরি করে এক বিশ্বকাপে সর্বাধিক সেঞ্চুরির রেকর্ড তিনি শচীনের সঙ্গে ভাগ বসিয়েছেন। টুইটারে শচীনও লিখেছেন, তিনি রোহিতের রেকর্ড ভাঙা দেখতে চান। তবে রোহিত নিজে জানিয়েছেন, তিনি নিজে বিশ্বকাপটি জিততে চান। কেবল তাহলেই তার ব্যক্তিগত এই অর্জনগুলোকে তিনি মনে রাখবেন। এই বিশ্বকাপে আসার আগে নাকি রোহিত কথা বলেছিলেন যুবরাজ সিংহের সঙ্গে। জানতে চেয়েছিলেন আইপিএলে কুড়ি-ত্রিশের মধ্যে আউট হয়েছি, বিশ্বকাপে কি ভালো করতে পারব। ‘যুবি ভাই আমাকে বলেছে পুরনো কথা মনে রাখবি না। কাল কি করেছিলি সেটা ভালো কি মন্দ সেটাও মাথায় রাখবি না। প্রতিটি ম্যাচকেই নতুন কোনো ম্যাচ ধরে মাঠে নামবি।’ গতকাল ভারতীয় দৈনিকগুলোতে রোহিতকে দেওয়া যুবরাজের এই টিপস নিয়ে বড় বড় সব রিপোর্ট হয়েছে।

দিল্লি-মুম্বাই থেকে আসা সাংবাদিকদের কেউ কেউ মনে করছেন, সে-ই এবার টুর্নামেন্ট সেরা হবেন। ৯ ম্যাচের পর তার স্কোর এখন ৬৪৭। যদি ফাইনালে উঠতে পারেন, তাহলে হাতে আরও দুটি ম্যাচ থাকবে রোহিতের। কিন্তু সাকিবের করা ৮ ইনিংসের ৬০৬ রান আর ১১ উইকেট কি বিবেচনায় আসবে না? টুর্নামেন্টের এই সেরা হওয়ার বিষয়টি নির্বাচিত করে থাকেন আইসিসির ম্যাচ রেফারি আর ধারাভাষ্যকাররা। সাকিবের প্রশংসা করলেও এ মুহূর্তে তারা কিন্তু বুঁদ রোহিত শর্মাকে নিয়ে। রোহিতের পিছু নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড ওয়ার্নারও। তিন সেঞ্চুরি নিয়ে নয় ম্যাচে তার মোট রান ৬৩৮। তারও ফাইনাল খেলার সুযোগ রয়েছে। বার্মিংহামে অবশ্য অসিদের চেয়ে ইংল্যান্ডকেই অনেকে ফেভারিট মনে করছেন। কিছুদিন আগে ওই শহরেই ভারতকে হারিয়েছিল তারা। এখনকার ক্রিকেট নিয়ে খোঁজ-খবর রাখা ব্রিটিশরাও মনে করছেন, এবারই সুযোগ প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপ জেতা। তাই অপেক্ষা এখন দুই ফাইনালিস্টকে লর্ডসে দেখার।