ওবামা-জাকারবার্গ-মোদিদের ঘুম ভাঙে কখন?


268 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ওবামা-জাকারবার্গ-মোদিদের ঘুম ভাঙে কখন?
এপ্রিল ১৩, ২০১৬ প্রবাস ভাবনা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক
বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিদের জীবন যাপন পদ্ধতি নিয়ে জানার আগ্রহের শেষ নেই সাধারণ মানুষের। ২৪ ঘণ্টার একটি দিনে প্রচণ্ড রকমের ব্যস্ত থাকতে হয় সবাইকেই। তারপরও কিছু নিয়ম আছে যা প্রতিদিন প্রায় একইভাবে মেনে চলেন এইসব মানুষ।

বলা হয়ে থাকে, সফলতার কোনও সংক্ষিপ্ত পথ নেই। সফলতার চূড়ায় পৌঁছাতে পরিশ্রমের বিকল্প নেই। বিশ্বের পরিশ্রমী আর শীর্ষ প্রভাবশালীদের মধ্যে কয়েকজনের সকালের রুটিন এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

বারাক ওবামা

বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশের প্রেসিডেন্ট হওয়া অতি সহজ ব্যাপার নয়। ক্ষমতাধর এই মর্কিন প্রেসিডেন্ট প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠেন সকাল ৬টা ৪৫মিনিটে। এরপর প্রাকৃতিক কর্ম সেরে জিমে পৌঁছে যান তিনি। ব্যায়ামের পর ফ্রেশ হয়ে স্ত্রী আর সন্তানদের নিয়ে নাস্তার টেবিলে বসেন প্রেসিডেন্ট ওবামা। পরে অন্যসব দাফতরিক কাজ করেন তিনি।

মার্ক জাকারবার্গ

দেরি করে ঘুম ভাঙার কারণে যেসব সন্তানদের বাবা-মায়ের বকুনি সইতে হয় প্রায়ই, তাদের সঙ্গে এই জায়গাটিতে মিল আছে ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের। জাকারবার্গের সকাল শুরু হয় আটটায়।

অতি সাধারণ জীবন যাপনে অভ্যস্ত ৩১ বছর বয়সী এই তরুণ যুবক। পায় প্রতিদিনই ধূসর রংয়ের যে টি-শার্ট আর জিন্স পরিহিত অবস্থায় দেখা যায় মার্ক জাকারবার্গকে, তা থাকে তার বিছানার কাছেই ওয়ারড্রোবে।

প্রতিদিনই একই সময় ঘুম থেকে উঠেন ফেসবুক প্রতিষ্ঠাতা তা কিন্তু নয়। মাঝে মাঝে অনুষ্ঠানে জুকারবার্গকে বলতে শোনা যায়, সকাল ৬টা পর্যন্ত পোগ্রামারদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন তিনি। এরপর আর সারাদিনে ঘুমের কোনও প্রশ্নই উঠেনি।

নরেন্দ্র মোদি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে একজন সুশৃঙ্খল মানুষ হিসেবেই ধরা হয়। বেশ সকালে ঘুম থেকে উঠেন তিনি। এরপর ধর্মীয় কিছু রীতিনীতি আর যোগব্যায়াম সেরে সকাল ৮টার দিকে নাস্তা খান মোদি।

নাস্তা খাওয়ার ফাকে বন্ধু-বান্ধব, পরিচিত স্বজনদের ফোনে খোঁজ-খবর নেন এই প্রধানমন্ত্রী। এরপর সকাল সাড়ে ৯টা নাগাদ দফতরে পৌঁছান তিনি।

উইনস্টোন চার্চিল

যুক্তরাজ্যে সাবেক প্রধানমন্ত্রী চার্চিল অতি ভোরে ঘুম থেকে উঠতে মোটেও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন না। সকাল সাড়ে ৭টা নাগাদ ঘুম ভাঙে তার। এরপর বেশ ডিম, টোস্ট, মাংস, ফল এবং অবশ্যই হুস্কি দিয়ে নাস্তা সারেন চার্চিল। নাস্তার সাথে সাথে দৈনিক পত্রিকার পাতায় চোখ বুলিয়ে নেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী।

লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও

পুরুষেরা তার মতো হতে চান আর নারীরা তার সাথে চলতে চান- এই কথাটি যার সর্ম্পকে বলা হয়ে থাকে তিনি মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেতা এবং চলচ্চিত্র প্রযোজক লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও। অনেকটা দেরি করেই ঘুম থেকে উঠেন ডিক্যাপ্রিও। তার সকালের শুরু ৯টায়। শারীরিক ব্যায়ামের পর নাস্তায় বসেন তিনি। এরপর শুরু হয় তার নিত্যদিনের কাজকর্ম।