“ওমফ্যালোসিল” নবজাতকের জন্মগত ত্রুটি যা চিকিৎসায় ভালো হয় : ডাঃ আবু সাঈদ শুভ


517 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
“ওমফ্যালোসিল” নবজাতকের জন্মগত ত্রুটি যা চিকিৎসায় ভালো হয় : ডাঃ আবু সাঈদ শুভ
নভেম্বর ১, ২০১৫ ফটো গ্যালারি স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

ওমফ্যালোসিল একটি নিরাময়যোগ্য জন্মগত ত্রুটি। এখানে নবজাতকের নাড়ীর একটি অংশ, এমনকি অনেক ক্ষেত্রে লিভার ও পেটের ভেতরের অন্যান্য অংশ নাভীর মধ্য দিয়ে বাইরে চলে আসে এবং এটি একটি থলির মধ্যে থাকে। থলিটি অত্যন্ত পাতলা পর্দা দ্বারা তৈরী এবং এই পর্দার ভেতর দিয়ে নাড়ীগুলি স্পষ্ট দেখা যায়।

কারনঃ মাতৃগর্ভে থাকাকলীন ১০ সপ্তাহ পর্যন্ত বাচ্চার নাড়ী পেটের বাইরে অবস্থান করে। এর পর থেকে নাড়ীর এ অংশ পেটের ভেতরে প্রবেশ করে। কিন্তু কারো কারো পেটের দুপাশের মাংসপেশী মাঝখানে মিলিত না হবার কারনে নাড়ীর এ অংশ পেটের বাইরেই অবস্থান করে।

প্রকারভেদঃ ওমফ্যালোসিল ২ রকম হতে পারেঃ ওমফ্যালোসিল মেজর (বড় আকারের) এবং ওমফ্যালোসিল  মাইনর (ছোট আকারের)। ছোট ওমফ্যালোসিলে সাধারনতঃ নাড়ীর অংশবিশেষ ও বড় ওমফ্যালোসিলে নাড়ীর সাথে লিভার বা প্লীহা পেটের বাইরে থাকে। বড় ওমফ্যালোসিলের সাথে হার্টের জন্মগত ত্রুটি থাকার সম্ভাবনা বেশী থাকে।

প্রতি ১০০০০ শিশুর মধ্যে ২৫ জন এই ত্রুটি নিয়ে জন্মগ্রহন করে। এই রোগে আক্রান্ত শিশুর ২৫% ই মারা যায়। এদের মধ্যে অনেক বাচ্চার হার্ট, ব্রেন ও স্পাইনাল কর্ডে জন্মগত ত্রুটি থাকতে পারে।
রোগ নির্নয়ঃ কোন পরীক্ষা ছাড়াই এ রোগ খুব সহজেই চেনা যায়। তবে আল্ট্রাসনোগ্রাফীর সাহায্যে মাতৃগর্ভে থাকাকালীন বাচ্চা জন্ম নেবার আগেই বোঝা যায়।

Untitled-12

চিকিৎসাঃ এ রোগের চিকিৎসা পদ্ধতি কয়েক রকমের হতে পারে।  ছোট ওমফ্যালোসিল সাধারনতঃ একবার অপারেশনেই ভালো করা যায়।।  বড় ওমফ্যালোসিলে সাধারনত: বিভিন্ন রকমের রাসায়নিক পদার্থ ব্যবহার করে উপরের পাতলা পর্দাকে পুরু করে ভেন্ট্রাল হার্নিয়া তৈরী করে পরবর্তীতে বাচ্চা একটু বড় হলে অপারেশান করা হয়। কিন্তু যদি নাড়ীর বাইরের পর্দা ফাটা থাকে বা নন অপারেটিভ চিকিৎসা চলাকালীন সময়ে ফেটে যায় তবে জরুরী ভিত্তিতে অপারেশন প্রয়োজন হয়। বড় ওমফ্যালোসিল অপারেশানের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো বাইরে অবস্থানরত নাড়ী ভেতরে ঢোকানো। কারন এক্ষেত্রে পেটের ভেতরে যায়গার পরিমান খুব কম থাকে। এক্ষেত্রে বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করা হয়। অন্যান্য জন্মগত ত্রুটি বিশেষতঃ হার্টের ত্রুটি না থাকলে এ রোগ সহজেই নিরাময়যোগ্য। গর্ভস্থ বাচ্চার এ ত্রুটি ধরা পড়লে গর্ভবতী মাকে যত দ্রুত সম্ভব একজন অভিজ্ঞ নবজাতক-শিশু-কিশোর সার্জনের পরামর্শ নেয়া উচিত। এক্ষত্রে বাচ্চার ডেলিভারী এমন স্থানে করানো উচিত যেখানে একজন শিশু সার্জন ও এ জাতীয় অপারেশনের জন্য প্রয়োজনীয় সব ধরনের সুযোগ সুবিধা বিদ্যমান। কারন অপারেশন করতে দেরী হলে সফলতার সম্ভাবনা কমে যায়।

এ ধরনের অপারেশনের জন্য প্রয়োজনীয় বিশেষজ্ঞ ডাক্তার ও বিশেষ সুযোগ সুবিধা সমৃদ্ধ ক্লিনিক বা হাসপাতাল না থাকায় সাতক্ষীরাতে  ওমফ্যালোসিল রিপেয়ার অপারেশন আগে সম্ভব ছিলোনা। কিন্তু বর্তমানে এ ধরনের অপারেশন এখানে প্রতিনিয়ত হচ্ছে। গত মাসে সাতক্ষীরা শহরের বুশরা হাসপাতালে ওমফ্যালোসিল রিপেয়ার অপারেশন করেছি। শ্যামনগরে জন্ম হওয়া এ বাচ্চাটির অপারেশনে রোগীকে অজ্ঞান করেন ডাঃ সুদীপ্ত দেবনাথ ও ডাক্তারকে সহায়তা করেন হাফিজুল। অপারেশান থিয়েটারে সার্বিক সহায়তা দেন বুশরা হাসপাতালের ওটি ইনচার্জ রমজান। বর্তমানে বাচ্চাটি সুস্থ আছে।
###

ডাঃ আবু সাঈদ শুভ
নবজাতক, শিশু-কিশোর বিশেষজ্ঞ সার্জন
সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, সাতক্ষীরা
মোবাইল- ০১৭২৯-৫৭৬ ৫৭৬