ওয়ার্ল্ডফিস কর্তৃক রোগ মুক্ত বাগদা চিংড়ির স্টেক হোল্ডারদের পরামর্শ কর্মশালা


598 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
ওয়ার্ল্ডফিস কর্তৃক রোগ মুক্ত বাগদা চিংড়ির স্টেক হোল্ডারদের পরামর্শ কর্মশালা
ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

আর.কে.বাপ্পা :

ওয়ার্ল্ডফিস বাংলাদেশ কর্তৃক রোগ মুক্ত (এসপিএফ) বাগদা চিংড়ির স্টেক হোল্ডারদের সচেতনতা ও পরামর্শ কর্মশালা সাতক্ষীরার অগ্রগতি সংস্থার পিটিআরসি ট্রেনিং সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ইউএসএআইডি এর অর্থায়নে ওয়ার্ল্ডফিস- বাংলাদেশের বাস্তবায়নে এছাড়াও মৎস্য অধিদপ্তর, বিএসএফএফ এবং এমকেএ হ্যাচারি সহযোগিতায় উক্ত কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। কর্মশালার প্রধান বিষয় এসপিএফ চিংড়ির সুবিধা এবং বাংলাদেশে এর ভবিষ্যত সম্ভাবনা।

কর্মশালায় মৎস্য অধিপ্তরের পরিচালক (রিজার্ভ) এম আই গোলদার, উপপরিচালক (মৎস্য চাষ) মোঃ গোলজার হোসেন, উপ পরিচালক মোঃ মনিরুজ্জামান সহ সাতক্ষীরা, খুলনা ও বাগেরহাট জেলার জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ও সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা সহ ওয়ার্ল্ডফিস- বাংলাদেশের ইউএসএআইডি এ.আই.এন প্রকল্পের ডিসিওপি মোঃ নাসিম, ট্রেনিং ম্যানেজার মোঃ মাসুদুর রহমান, এসটিএস মোঃ সানি এবং সাতক্ষীরা ও খুলনার টিএস মোঃ আজহারুল হক ও মোঃ আশরাফুল হক এছাড়াও বিএসএফএফ এর কর্মকর্তা সহ চিংড়ি রেণু ব্যবসায়ী, চিংড়ি চাষী এবং সাংবাদিক গণ উপস্থিত ছিলেন। মৎস্য অধিদপ্তরের বিভিন্ন কর্মকর্তা, এমকেএ হ্যাচারীর পরিচালক, ওয়ার্ল্ডফিস-বাংলাদেশের ইউএসএআইডি এ.আই.এন প্রকল্পের বিভিন্ন কর্মকর্তাগণ রোগ মুক্ত (এসপিএফ) বাগদা চিংড়ির চাষের সুবিধা এবং সহজেই চাষীদের পৌছে যায় সেই বিষয়ে বক্তব্য রাখেন। এই কর্মশালা এটা চেষ্টা করে খুজে বের করা হয় বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারদের কি ধরণের সমস্যার সম্মুখীন হতে পারে এবং তা কিভাবে সমাধান করা যায়। অংশগ্রহনকারীরা ৫ টি দলে ভাগ হয়ে সমস্যা সমাধাণের পথ খুজে বের করে স্বার্থকতার সহিত কর্মশালাকে সম্পন্ন করে।