কপিলমুনিতে ভারতীয় পণ্য প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে


325 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপিলমুনিতে ভারতীয় পণ্য প্রকাশ্যে বিক্রি হচ্ছে
ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০১৭ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি ::
কপিলমুনি বাজারে ভারতীয় পোশাক সহ বিভিন্ন পণ্য ও মাদক দ্রব্যে সয়লাব হয়ে গেছে। দেখলে মনে হয় কপিলমুনি সম্পূর্ন ভারতের বাজারে পরিনত হয়েছে।

জানাযায়, আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর নিরবতার ফলে কপিলমুনি বাজারটি এক প্রকার যেন ভারতীয় পণ্যের বাজারে রুপ নিয়েছে। এ বিষয়ে কিছু দিন আগে দৈনিক খুলনাঞ্চলে তথ্য বহুল একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলেও কর্তৃপক্ষের উদাসিনতার কারণে চোরাকারবারীরা বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

প্রায় ডর্জন খানেক চোরাকারবারী সপ্তাহে দুই বার ভারতীয় চোরাই পণ্যের বড় বড় চালান কপিলমুনিতে নিয়ে আসে। কপিলমুনি নিরাপদ রুট হওয়ায় স্থানীয় অসাধু ব্যবসায়ীদের চাহিদা মিটিয়ে অবশিষ্ট পণ্য কপলিমুনির বিস্তিৃর্ণ এলাকার হাট বাজারে সরবরাহ করা হয়।

কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা ভারতীয় শাড়ী, থ্রী পিচ সহ অন্যান্য মালামাল তাদের বাড়ীতে একটি গোপন জায়গায় রেখে ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী বাড়ী থেকে মালগুলি সরবরাহ করে থাকে। পুলিশের নামে কালো বাজারীদের নিকট থেকে বড় অংকের মাসোয়ারা আদায়েও লোক নিয়োগ রয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যবসায়ী জানান, ‘জেলা ও উপজেলায় নিয়মিত সমন্বয় সভায় কালো বাজারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা সহ মাদক দ্রব্যের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থার কথা প্রাধান্য পেলেও বাস্তবে তার প্রতিফলন ঘটছে না। আর এ কারণেই কালো বাজারীরা বিপদজনক হয়ে উঠছে।

কপিলমুনি বাজার দক্ষিণ খুলনার ভারতীয় পন্য আমদানীর অন্যতম জোন হিসাবে কালো বাজারীরা ব্যবহার করছে। ফলে এমন কোন ভারতীয় পন্য নেই যা কপিলমুনিতে পাওয়া যায় না।

আর এর প্রভাব পড়ছে দেশীয় পন্যের উপর। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বস্ত্র ও পোশাক ব্যবসায়ীরা। তারা জানান, রকমারী মনোলোভা ভারতীয় পোশাক কেনাকাটায় ক্রেতারা ঝুকে পড়ছে। ফলে তাদের ব্যবসা দারুন মন্দা যাচ্ছে।

এ অবস্থা চলতে থাকলে তাদের ব্যবসা লাটে ওঠার পাশাপাশি শতশত ব্যক্তি বেকার হয়ে পড়বে। দেশের পোশাক ও বস্ত্র শিল্পে মারাত্বক ক্ষতি হবে। বিষয়টি আমলে এনে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার জন্য আইনশৃংঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন স্থানীয় সুধি মহল।
##