কপিলমুনি বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সচেতনতামূলক সভা


332 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপিলমুনি বাল্যবিবাহ ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সচেতনতামূলক সভা
অক্টোবর ২৪, ২০১৬ খুলনা বিভাগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

পলাশ কর্মকার (কপিলমুনি) :
বাল্য বিবাহ ও যৌন হয়রানিকে লাল কার্ড প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে সোমবার বিকেলে কপিলমুনি মেহেরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যলয়ে বাল্য বিবাহ ও ইভটিজিং প্রতিরোধে সচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পাইকগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাহিদ উল মোস্তাকের সভাপতিত্বে কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পাইকগাছা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান স.ম. বাবর আলী।

বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কামাল হোসেন, শাহানারা খাতুন, কপিলমুনি সহচরী বিদ্যামন্দির স্কুল এন্ড কলেজ অধ্যক্ষ হরেকৃষ্ণ দাশ, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) জাবিদ হোসাইন, কপিলমুনি ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ কওছার আলী জোয়ার্দ্দার, মেহেরুন্নেছা বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রহিমা আক্তার শম্পা, কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের সভাপতি এম. আজাদ হোসেন।

এছাড়া বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মোঃ মনিরুজ্জামান, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি শেখ আছাদুর রহমান পিয়ারুল, বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি নির্ম্মল মজুমদার,সিটি প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জিবিএ সভাপতি মোঃ সোহরাব হোসেন প্রমুখ।

অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইউপি সদস্য কুমকুম দাশ, সাবেক সদস্য ফজিলাতুন্নেছা বেগম সহ সকল সদস্য, বিদ্যালয়ের ছাত্রী ও অভিভাবক, স্থানীয় সাংবাদিক ও সূধী সমাজের নেতৃবৃন্দ।

সভায় বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বাল্য বিবাহ ও যৌণ হয়রানি একটি সামাজিক ব্যাধি। সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে বর্তমান অবস্থা থেকে উত্তোরনে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। ইভটিজিং বা যৌন হয়রানি বাংলাদেশের আলোচিত বিষয়। যা এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। ইভটিজিং বন্ধ করতে সমাজের সকল শ্রেণী পেশার নাগরিকদের সচেতন হয়ে সামাজিক আনন্দলন গড়ে তুলতে হবে।
অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তার বক্তৃতায় বলেন, প্রতিটি বিদ্যালয়ে এব্যাপারে একটি করে অভিযোগ বক্স স্থাপন করা হবে।
##