কপিলমুনি সংবাদ ॥ সাংবাদিক মনি’র মৃত্যুতে কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের শোক


585 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপিলমুনি সংবাদ ॥ সাংবাদিক মনি’র মৃত্যুতে কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের শোক
অক্টোবর ২৮, ২০১৫ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি :
তালা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক এম এম ফজলুল হক মনি’র অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন কপিলমুনি সিটি প্রেসক্লাবের সাংবাদিকবৃন্দ। বিবৃতিদাতারা হলেন সভাপতি এম আজাদ হোসেন, সহ-সভাপতি এইচ এম এ হাসেম, সাধারণ সম্পাদক পলাশ কর্মকার, সহ-সাধারণ সম্পাদক এইচ এম জিয়াউর রহমান, কোষাধ্যক্ষ জগদীশ দে, সাংগঠনিক সম্পাদক মজুমদার পলাশ, দপ্তর সম্পাদক এম আজিজুর রহমান, ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক স ম নজরুল ইসলাম, প্রচার সম্পাদক এম এম কামরুল ইসলাম, কার্যকরী সদস্য বদরুল আলম প্রমুখ।
###

কাজিমূছা সমাজ কল্যাণ যুব সংঘ
১৭ বছর ধরে সমাজ উন্নয়নে কাজ চলেছে
পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি (খুলনা) ঃ
দু-১টি বছর নয়, ১৭ টি বছর  ধরে কপিলমুনির কাজিমূছা সমাজ কল্যাণ যুব সংঘ সমাজ উন্নয়নে ভূমিকা রেখে চলেছে। দুস্থ সেবা, বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ, ধর্মীয় সভা, ফুটবল টুর্ণামেন্ট, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও রাস্তা সংস্কার করে সংগঠনটি এলাকার মানুষের কাছে সমাদৃত হয়েছে।

জানাযায়, খুলনা জেলার কপিলমুনির কাজিমুছা গ্রামে ১৯৯৮ সালের কোন এক শুভক্ষণে এলাকার কিছু প্রগতিশীল যুবকের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় প্রতিষ্ঠিত হয় ‘কাজিমুছা সমাজ কল্যাণ যুব সংঘ’। সংগঠনটি হাটি হাটি পা পা করে আজ ১৭ বছরে পদার্পণ করেছে। শুধু সংগঠনের অভ্যান্তরীন কাজ করেই ক্ষ্যান্ত নন যুব সংঘের কর্তরা। তারা এলাকার দুস্থদের পাশে দাঁড়িয়েছেন, দুস্থ-দরিদ্রদের মাঝে ঈদ সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানে সেমাই-চিনি বিতরণ করে আসছেন। বন্যার সময় বন্যার্তদের সাহায্য করেছেন, বন্যা কবলিত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে ত্রান সামগী বিতরণ করেছেন। এলাকায় বিভিন্ন সময় ওয়াজ মাহফিল ও সাংস্কৃতিক, অনুষ্ঠান, অইলায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রান বিতরণ ও বিভিন্ন সময় পাকা রাস্তা সংস্কার করে সংগঠনটি  সমাজ উন্নয়নে ভূমিকা রেখে চলেছে। যা বর্তমানে এলাকার মানুষের কাছে বেশ সমাদৃত হয়েছে। ইতোপূর্বে নাবা পূজা মন্ডপ থেকে শুরু করে কাজিমূছা পূর্বপাড়া মসজিদ পর্যন্ত পাকা রাস্তা সংস্কার করেছে। যুব সংঘের সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম খান এ প্রতিবেদককে বলেন, যুব সংঘটি রেজিষ্ট্রেশন করার পরিকল্পনা গ্রহন করেছি। পূর্বের ধারা অব্যাহত রেখে সামাজ উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখতে চাই। যুব-সমাজে ঝরে পড়াদের প্রতিভার বিকাশ ঘটিয়ে কুসংস্কার দুর করে এলাকাটি মাদক ও জুয়ামুক্ত রাখতে যা যা করার দরকার সেগুলো করতে চাই। গণমাধ্যমের মাধ্যমে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে সরকারী সহায়তা পেয়ে আরো গনমানুষের পাশে দাঁড়াতে চাই।
##