কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন কূলে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন : ভয়াবহ ভাঙ্গনের আশংখা


267 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন কূলে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন : ভয়াবহ ভাঙ্গনের আশংখা
ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৯ খুলনা বিভাগ দুুর্যোগ ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

এস,এম, আলাউদ্দিন সোহাগ ::

খুলনার পাইকগাছায় কপোতাক্ষ নদের ভাঙ্গন কূলে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের কারণে আবারো ভয়াবহ ভাঙ্গনের আশংখা দেখা দিয়েছে। মৌখিকভাবে বার বার বন্ধের নির্দেশ দিলেও তা না মানায় লিখিতভাবে বালি উত্তোলন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে পাইকগাছা পওর শাখা-১।

অভিযোগে জানা যায়, জেলার পাইকগাছা উপজেলার ১৬নং পোল্ডারে কপোতাক্ষ নদ অবস্থিত। ২০১৭ সালের মে মাসে ওয়াপদার প্রচন্ড ভাঙ্গনে ১৬শ বিঘার চিংড়ি ঘের তলিয়ে কোটি টাকার ক্ষতি হয়। উক্ত ভাঙ্গনরোধে ৭০ বিঘা জমি বাইরে রেখে বেড়ি বাঁধ দেয়া হয়। প্রথম দফায় ভাঙ্গন প্রতিরোধ না হওয়ায় দু’দফায় কাজ শেষ করতে ৬/৭ মাস সময় লাগে। যাতে প্রায় অর্ধকোটি টাকা খরচ হয় বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। সেই ভাঙ্গনকূলে সম্প্রতি মেসার্স সরদার ট্রেনিং-এর স্বত্ত্বাধিকারী মনির উদ্দীন সরদার, মোঃ ইজাজুল ইসলাম ৩টি নৌকার মাধ্যমে অবাধে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করছে। এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে পানি উন্নয়ন বোর্ড পাইকগাছা কর্তৃপক্ষ মৌখিকভাবে কয়েকবার বালি উত্তোলন বন্ধের নির্দেশ দিলেও তা বন্ধ করা হয়নি। বাধ্য হয়ে উপ-প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দীন লিখিতভাবে গত ১২ ফেব্রুয়ারি’১৯ তারিখে ২৮০(৭) স্মারকে বালি উত্তোলন বন্ধের জন্য নির্দেশ দেন। যার অনুলিপি নির্বাহী প্রকৌশলী, খুলনা পওর বিভাগ-২, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ ৭টি দপ্তরে পাঠিয়েছে বলে অভিযোগে দেখা যায়। এ ব্যাপারে পাইকগাছা পওর শাখা-১ এর উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দীন জানান, ২০১৭ সালের ভাঙ্গনে প্রায় কোটি টাকা খরচ হয়েছে। সেখানে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করায় আবারো ভাঙ্গনের আশংকা করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

#