কপোতাক্ষ নদের ভেড়িবাঁধ কেটে নেয়ায় তীরবর্তী মানুষের মধ্যে জলদ্ধতা আতঙ্ক


326 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কপোতাক্ষ নদের ভেড়িবাঁধ কেটে নেয়ায় তীরবর্তী মানুষের মধ্যে জলদ্ধতা আতঙ্ক
মে ৪, ২০১৬ তালা ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

কামরুজ্জামান মোড়ল , পাটকেলঘাটা :
পাটকেলঘাটায় প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দু®কৃতকারীরা কপোতাক্ষ নদের ভেড়িবাধের মাটি কর্তন করা অব্যাহত রাখায় তীরবর্তী মানুষের মধ্যে আবারও জলাবদ্ধতার আতঙ্ক বিরাজ করছে।
সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, কুমিরা গ্রামের দুলাল দে’র ছেলে নদী খেকো সজল দে ১৫/২০ জন শ্রমিক নিয়ে দে পাড়া শ্মশান ঘাট সংলগ্ন কপোতাক্ষ ভেড়িবাধের মাটি কেটে টলি প্রতি ১ শ টাকা চুক্তিতে প্রতিদিন ৪/৫ টি টলি ভর্তি করে বিক্রি করে দিচ্ছে। এলাকাবাসী জানান, গত ২০-২৫ দিন ধরে ভেড়ি বাধের মাটি কর্তন করা অব্যাহত রেখেছে। গতকাল বেলা ১১ টার দিকে পাটকেলঘাটা ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা তারক চন্দ্র মন্ডল ঘটনাস্থলে গেলে  ভেড়িবাধ কর্তন সাময়িক বন্ধ রাখে এবং উর্দ্ধতন কর্র্তৃপক্ষ বরাবর ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কর্তনকারীদের বিরুদ্ধে জেল জরিমানার জন্য সুপারিশ করে পত্র প্রেরণ করেন।
দু®কৃতকারীদের মাটি ভেড়িবাধের মাটি কাটা বন্ধ না হলে বর্ষা মৌসুমে কর্তনে ক্ষতিগ্রস্থ ভেড়িবাধ ভেঙ্গে আবারও জলাবদ্ধতায় তীরবর্তী বসবাসরত মানুষের চরম দূর্ভোগের স্বীকার হতে হবে। ফলে কপোতাক্ষ তীরবর্তী লাখ লাখ মানুষের দূর্ভোগ লাঘবে সরকারের নেয়া ২৬২ কোটি টাকা পূনঃখনন প্রকল্প ভেস্তে যেতে বসেছে। এনিয়ে উপজেলা প্রশাসনকে বারবার জানিয়েও আইনগত কোনো প্রতিকার না নেয়ায় ভেড়িবাধের মাটি কর্তনকারী দুষ্কৃতরা আরও বেপরোয়া হয়ে ভেড়িবাধ কাটার প্রতিযোগিতায় নেমেছে। কপোতাক্ষ নদের নাব্যতা ফিরিয়ে আনতে পূনঃখনন প্রকল্পের জেলা মনিটরিং কমিটির সভায় টেকসই ভেড়িবাধ জনসাধারণের চলাচল ও বনায়ন কর্মসূচি বাস্তবায়নে উপজেলা প্রশাসনের রক্ষনাবেক্ষণ করার কথা। তালা উপজেলার কপোতাক্ষ নদের ভেড়িবাধের বিভিন্ন স্থানে যে যেভাবে পারছে সেভাবে মাটি কেটে নিচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনকে একাধিকবার বিষয়টি জানিয়েও দেখছি দেখব বলে আশ্বস্থ করলেও আইনগত কোনো ব্যবস্থা না নেয়ায় ভূক্তভোগী জনসাধারণ জরুরি ভিত্তিতে জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।