কবে নতুন পে স্কলে পাচ্ছেন ৫ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী


607 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কবে নতুন পে স্কলে পাচ্ছেন ৫  লাখ শিক্ষক-কর্মচারী
জুন ২৭, ২০১৫ জাতীয় শিক্ষা
Print Friendly, PDF & Email

 

 

 

ভয়েস ডেস্ক : পহলো জুলাই থকেে সরকারি চাকরজিীবীদরে নতুন পে স্কলে র্কাযকর হলওে সারাদশেরে এমপওিভুক্ত শক্ষিক-র্কমচারীরা তা না-ও পতেে পারনে। এ জন্য তাদরে আরও ৬ মাস অপক্ষো করতে হতে পার।ে শক্ষিা ও র্অথ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ সময়রে মধ্যে এমপওিভুক্ত সব শক্ষিা প্রতষ্ঠিানরে মূল্যায়ন করা হব।ে র্বতমানে শক্ষিা প্রতষ্ঠিানে মান্থলি প-ের্অডার বা এমপওি দওেয়ার ক্ষত্রেে নানা অসঙ্গতি ও অনয়িম রয়ছে।ে তা দূর করতে শক্ষিকদরে বতেন কাঠামো র্পযালোচনা করা হব।ে এ জন্য এ বষিয়ে একটি নীতমিালা করা হচ্ছ।ে তা চূড়ান্ত করার পরই পে স্কলে র্কাযকর হবে শক্ষিকদরে। র্বতমানে সারাদশেে প্রায় ৫ লাখ শক্ষিক-র্কমচারী এমপওি সুবধিা পাচ্ছনে। নতুন বতেন স্কলেরে আশায় তারা চাতক পাখরি মতো প্রতীক্ষার প্রহর গুনছনে। জুলাই থকেে র্বধতি বতেন না পলেে বসেরকারি শক্ষিক-র্কমচারীরা ঈদরে পর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দয়িছেনে।

জানতে চাইলে র্অথ মন্ত্রণালয়রে সনিয়ির সচবি মাহবুব আহমদে সমকালকে বলনে, এমপওিভুক্ত শক্ষিকরা কবে থকেে ‘র্বধতি বতেন’ পাবনে তা সদ্ধিান্ত নবেে সরকার। এ বষিয়ে এখন র্পযন্ত কোনো নর্দিশেনা তাদরে কাছে আসনে।ি শক্ষিা সচবি নজরুল ইসলাম খান বলনে, ‘শক্ষিকরা নতুন পে স্কলে পাবনে না, এমন কোনো খবর আমার কাছে নইে। পাবনে বলইে জান।ি’ তাহলে কি বলা যাবে জুলাই থকেইে তারা নতুন স্কলেে বতেন পাচ্ছনে?

এমন প্রশ্নরে জবাবে সচবি বলনে, ‘আমরা তাই-ই জান।ি’ তবে শক্ষিা সচবি এ কথা বললওে র্অথ মন্ত্রণালয় থকেে জানা গছে,ে এ ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত সদ্ধিান্ত হয়ন।ি সদ্ধিান্তরে জন্য বষিয়টি মন্ত্রসিভার বঠৈকে তোলা হব।ে চূড়ান্ত সদ্ধিান্ত হবে সখোনইে।

সূত্র জানায়, সরকারি চাকরজিীবীদরে নতুন বতেন কাঠামো নর্ধিারণে ‘সচবি কমটি’ি যে সুপারশি করছে,ে তা অনুমোদনরে জন্য মন্ত্রসিভার বঠৈকে উপস্থাপন করা হব।ে একই সঙ্গে শক্ষিকদরে বষিয়টওি আলোচনা করা হব।ে মন্ত্রসিভার সদ্ধিান্তরে

আলোকইে শক্ষিকদরে জন্য নতুন প-েস্কলে র্কাযকর করা হব।ে আগামী মাসরে মাঝামাঝি সময় মন্ত্রসিভার বঠৈকে সরকারি চাকরজিীবীদরে জন্য প্রস্তাবতি নতুন বতেন কাঠামো অনুমোদনরে জন্য উঠতে পার।ে
জানা গছে,ে এমপওিভুক্ত শক্ষিকদরে নতুন পে স্কলেরে বষিয়ে আজ শনবিার জাতীয় সংসদে বক্তব্য রাখবনে র্অথমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহতি। আজ তনিি এ বষিয়ে সরকাররে অবস্থান সর্ম্পকে সংসদকে সুস্পষ্ট কছিু জানাতে পারনে। ৪ জুন নতুন র্অথবছররে (২০১৫-১৬) বাজটে ঘোষণাকালে র্অথমন্ত্রী ১ জুলাই থকেে সরকারি চাকরজিীবীদরে নতুন পে স্কলে র্কাযকররে কথা উল্লখে করছেলিনে। তবে বসেরকারি শক্ষিকদরে সর্ম্পকে তখন কছিু বলা হয়ন।ি পররে দনি বাজটে-উত্তর সংবাদ সম্মলেনে এ বষিয়ে সাংবাদকিদরে প্রশ্নরে জবাব এড়য়িে যান র্অথমন্ত্রী।

শক্ষিামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহদি র্বতমানে দশেরে বাইরে থাকায় এমপওিভুক্ত শক্ষিক-র্কমচারীদরে এ বষিয়ে তার বক্তব্য পাওয়া যায়ন।ি সরকারি চাকরজিীবীদরে পে স্কলে র্কাযকররে ৬ মাস পর এমপওিভুক্ত শক্ষিক-র্কমচারীদরে বতেন র্কাযকররে সুপারশি করনে বাংলাদশে ব্যাংকরে সাবকে গর্ভনর ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দনিরে নতেৃত্বে গঠতি পে কমশিন। গত বছররে ডসিম্বেরে র্অথমন্ত্রীর কাছে প্রতবিদেনটি জমা দওেয়া হয়। এর পর পে কমশিনরে মূল প্রতবিদেন র্পযালোচনার জন্য মন্ত্রপিরষিদ সচবি মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞার নতেৃত্বে গঠন করা হয় ‘সচবি কমটি’ি।

গত এপ্রলিে জমা দওেয়া এই কমটিি ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দনিরে মতোই এমপওিভুক্ত শক্ষিকদরে ‘র্বধতি বতেন’ ছয় মাস পর র্কাযকররে সুপারশি কর।ে এ প্রসঙ্গে র্অথ মন্ত্রণালয়রে দায়ত্বিশীল এক র্কমর্কতা জানান, শক্ষিকদরে ‘র্বধতি বতেন’ র্কাযকররে বষিয়ে সরকার এখনও তার আগরে অবস্থানইে রয়ছে।ে

নীতমিালা হচ্ছ:ে র্অথ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এমপওিভুক্তরি জন্য একটি যুগোপযোগী ও র্কাযকর নীতমিালা প্রণয়ন করতে শক্ষিা মন্ত্রণালয়কে বলা হয়ছে।ে ওই নীতমিালা প্রণীত হলে তার আলোকে এমপওিভুক্তরি র্কাযক্রম যৗেক্তকিভাবে ঢলেে সাজানো হব।ে এরপরই এমপওিভুক্ত শক্ষিক-র্কমচারীদরে জন্য নতুন পে স্কলে র্কাযকর করা হব।ে শক্ষিা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এরই মধ্যে এমপওিভুক্তরি নতুন নীতমিালার খসড়া প্রণয়ন করা হয়ছে।ে এ খসড়ার ওপর র্বতমানে সমেনিার-সম্পিোজয়িামরে আয়োজন করা হচ্ছ।ে নীতমিালার নানা র্শত নয়িে সংশ্লষ্টিদরে সঙ্গে আলাপ-আলোচনা চলছ।ে খসড়া নীতমিালাটি তরৈি করছে মাধ্যমকি ও উচ্চশক্ষিা অধদিপ্তর (মাউশ)ি।

মাউশরি মহাপরচিালক অধ্যাপক ফাহমিা খাতুন জানান, গত বছররে ৩১ আগস্ট শক্ষিা মন্ত্রণালয় পরর্দিশনকালে এমপওি প্রদানরে ব্যাপারে বশে কছিু নর্দিশেনা দয়িছেনে প্রধানমন্ত্রী শখে হাসনিা। তার নর্দিশেনা অনুযায়ী এমপওি নীতমিালায় সংশোধনী আনা হচ্ছ।ে জানা গছে,ে এমপওি নীতমিালা সংশোধন করতে গত ২১ জানুয়ারি শক্ষিা মন্ত্রণালয় থকেে মাউশকিে চঠিি পাঠানো হয়। এরপর ২৫ জানুয়ারি মাউশরি পরচিালক (কলজে ও প্রশাসন) অধ্যাপক ড. এসএম ওয়াহদিুজ্জামানকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্যরে একটি কমটিি গঠন করা হয়। গত বৃহস্পতবিার জানতে চাইলে ড. এসএম ওয়াহদিুজ্জামান জানান, এ নীতমিালাটি এখন চূড়ান্ত প্রায়।

বাড়তি কত টাকা লাগব:ে শক্ষিা মন্ত্রণালয় থকেে জানা গছে,ে এমপওিভুক্ত শক্ষিক-র্কমচারীদরে নতুন স্কলেে র্বধতি বতেন দতিে গলেে ২০১৫-২০১৬ র্অথবছরে এক হাজার ৭০০ কোটি টাকা অতরিক্তি লাগব।ে র্বতমানে এমপওিভুক্ত শক্ষিকদরে বতেন-ভাতা বাবদ বছরে যে পরমিাণ টাকা লাগ,ে এটি হবে তার চয়েে ২৯ শতাংশ বশে।ি র্বতমানে সারাদশেরে ২৬ হাজার ৭০টি বসেরকারি শক্ষিা প্রতষ্ঠিানরে ৪ লাখ ৭৭ হাজার ২২১ শক্ষিক-র্কমচারী এমপওিভুক্ত রয়ছেনে। ২০১৪-২০১৫ র্অথবছরে এমপওিভুক্তি খাতে সরকাররে বরাদ্দ ছলি ৭ হাজার ১৯৫ কোটি টাকা। র্অথবছররে শষেে এসে দখো যাচ্ছ,ে এ বরাদ্দরে পুরোটাই খরচ হয়ে যাচ্ছ।ে সংশোধতি বাজটেে বাড়তি আরও কছিু টাকা প্রয়োজন হয়ছে।ে

শক্ষিক সংগঠনগুলোর বক্তব্য: এ নয়িে সরকার সর্মথক সংগঠন জাতীয় শক্ষিক-র্কমচারী ফ্রন্টরে আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আসাদুল হক বলনে, ‘জাতীয় নতুন বতেন স্কলেে এর আগওে এমপওিভুক্ত শক্ষিকরা স্বয়ংক্রয়িভাবে অর্ন্তভুক্ত হয়ছেনে। এবারও হবনে বলইে তাদরে বশ্বিাস।’ পে কমশিন ও সচবি কমটিরি সুপারশি প্রত্যাখ্যান করে এ শক্ষিক নতো আরও বলনে, ‘শক্ষিকদরেও সরকারি র্কমর্কতা-র্কমচারীদরে মতো ১ জুলাই থকেে নতুন স্কলেরে সুবধিা দতিে হব।ে’ তনিি জানান, তারা শক্ষিা সচবি নজরুল ইসলাম খানরে সঙ্গে সাক্ষাৎ করছেনে।

সরকার সর্মথক অপর শক্ষিক সংগঠন শক্ষিক-র্কমচারী ঐক্য পরষিদরে আহ্বায়ক অধ্যক্ষ শাহজাহান আলী সাজু বলনে, ‘শখে হাসনিার আমলে ১৯৯৯ সালে বসেরকারি শক্ষিকরা স্বয়ংক্রয়িভাবে বতেন স্কলেে অর্ন্তভুক্ত হয়ছেলিনে। এবার ভন্নি সদ্ধিান্ত হওয়ার কোনো কারণ নইে।’

আন্দোলনরে প্রস্তুত:ি এদকিে বতেন স্কলে ইস্যুতে ঈদরে পর আন্দোলনে নামার প্রস্তুতি নচ্ছিনে শক্ষিক-র্কমচারীরা। সরকার সর্মথক ও বরিোধী উভয় শক্ষিক সংগঠনগুলো এক হয়ে এই আন্দোলনে নামছ।ে