করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ভোমরা স্থলবন্দরে মেডিকেল টিম নিয়োগ


425 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ভোমরা স্থলবন্দরে মেডিকেল টিম নিয়োগ
জানুয়ারি ২৫, ২০২০ ফটো গ্যালারি সাতক্ষীরা সদর স্বাস্থ্য
Print Friendly, PDF & Email

এম কামরুজ্জামান :
করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থলবন্দরে মেডিকেল টিম নিয়োগ করা হয়েছ। সংশ্লিষ্ট মহলের নির্দেশে আজ শনিবার সকাল থেকে ওই মেডিকেল টিম কাজ কাজ শুরু করেছে।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা: মো: হোসাইন শাফায়েত ভয়েস অব সাতক্ষীরা ডটকমকে জানান, শনিবার সকালে সংশ্লিষ্ট মহলের নির্দেশ আসে দেশের প্রতিটি স্থল,নৌ,বিমান বন্দরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে মেডিকেল টিম নিয়োগ করতে। উপরের নির্দেশে সাতক্ষীরার ভোমরা স্থল বন্দরে মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে।শনিবার সকাল থেকে ওই মেডিকেল টিম কাজ শুরু করেছে।

তিনি আরো বলেন, ভারত থেকে যেসব রোগী জ্বর,সর্দি, কাশি নিয়ে প্রবেশ করবে তারা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কি-না তা পরীক্ষা করা হবে। প্রবেশকারী চীন, ভারত বা বাংলাদেশী যেদেশের হোক না কেনো সিমটম পাওয়া গেলে তাকে পরীক্ষা করার জন্য ইতোমধ্যে ওই মেডিকেল টিমকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, চীনে প্রথমে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে রোগি সনাক্ত হয়।
চীনে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। এক দিনের ব্যবধানে সেখানে মৃতের সংখ্যা দ্বিগুণ বেড়ে ২৬ থেকে প্রায় অর্ধশতে দাঁড়িয়েছে। দেশটির সীমান্ত ছাড়িয়ে এশিয়ার অন্য দেশ, ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া ও আমেরিকা মহাদেশের ১২টি দেশে এরই মধ্যে আক্রান্তরোগী শনাক্ত হয়েছে।

চীনেই আক্রান্তের সংখ্যা এক হাজার দুইশ ছাড়িয়ে গেছে। সব দেশ মিলে এ সংখ্যা এক হাজার ৩০০ ছাড়িয়েছে। তবে চীন বাদে অন্য দেশে শনাক্ত রোগী কম হওয়ায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এখন বিশ্বজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করছে না। প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বিভিন্ন দেশ যার যার মতো উদ্যোগ নিয়েছে। চীন সারাদেশে আক্রান্ত রোগী শনাক্তে বাস, ট্রেনে তল্লাশি শুরু করেছে। আক্রান্ত কাউকে পেলে সঙ্গে সঙ্গে আলাদা করে ফেলা হচ্ছে। চীনজুড়ে সাড়ে ৪০০ সামরিক মেডিক্যাল কর্মী নিয়োগ করা হয়েছে।

এদিকে চীনের স্বায়ত্তশাসিত গোলযোগপূর্ণ এলাকা হংকং জারি করেছে জরুরি অবস্থা। হুবেই প্রদেশের উহানে সিনহুয়া হাসপাতালের ৬২ বছর বয়সী চিকিৎসক লিয়াং উডংয়ের মৃত্যুর খবর জানিয়ে টুইট করেছে চীনের গ্লোবাল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক। উহান শহর থেকেই এই ভাইরাস ছড়ানো শুরু হওয়ায় এ শহরের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে। ফলে সেখানে ৫০০ জনেরও বেশি বাংলাদেশি আটকা পড়েছেন।
(খবর এএফপি, রয়টার্স ও বিবিসির)