করোনা আতঙ্কে স্থবির চলচ্চিত্রাঙ্গন


128 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
করোনা আতঙ্কে স্থবির চলচ্চিত্রাঙ্গন
মার্চ ১২, ২০২০ ফটো গ্যালারি বিনোদন
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। সম্প্রতি বাংলাদেশেও ধরা পড়েছে এই ভাইরাস। করোনোভাইরাসে আক্রান্ত তিনজনকে শনাক্ত করা হয়েছে। ফলে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে আতঙ্ক। এর প্রভাবও পড়েছে চলচ্চিত্রাঙ্গনে। জনসমাগমে করোনাভাইরাস ছড়ায় বলে গত সপ্তাহে মুক্তি পাওয়া চলচ্চিত্র দেখতে প্রেক্ষাগৃহে কোনো দর্শক নেই। সে কারণেই নতুন ছবি মুক্তির তারিখ পরিবর্তন করেছেন পরিচালক ও প্রযোজকরা। পিছিয়ে যাচ্ছে নতুন সিনেমার চিত্রায়ণের কাজও।

আগামীকাল সারাদেশের বেশ কয়েকটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির কথা ছিল মাসুম হাসান উজ্জ্বলের প্রথম চলচ্চিত্র ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’। করোনার আতঙ্কে ছবিটির মুক্তি না দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন পরিচালক। একই সঙ্গে আগামী ২০ মার্চ মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল দেবাশীষ বিশ্বাস পরিচালিত ‘শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ টু’। বাপ্পী চৌধুরী ও অপু বিশ্বাস অভিনীত এই ছবিটির মুক্তিও পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়া শাহরিয়ার নাজিম জয় পরিচালিত ‘আমার মা’ ও সুজন বড়ূয়ার ‘বান্ধব’ ২০ মার্চ মুক্তির ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। এই ছবিগুলোর মুক্তিও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে, আগামী ২৭ মার্চ মুক্তির কথা রয়েছে চয়নিকা চৌধুরী পরিচালিত ‘বিশ্বসুন্দরী’। সিয়াম আহমেদ ও পরীমনি অভিনীত এই ছবিটির মুক্তির তারিখ এখনও ঠিক আছে। তবে এমন পরিস্থিতি বিদ্যমান থাকলে মুক্তি না দেওয়ারই সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন ছবির সঙ্গে যুক্ত অনেকেই।

এদিকে করোনাভাইরাসের প্রভাবে প্রেক্ষাগৃহে নতুন সিনেমা মুক্তি না দেওয়াই ভালো বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম। তিনি বলেন, ‘দেশের সিনেমা বাজার এমনিতেই খুব ভালো না। তার ওপর করোনা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ায় হলগুলোয় দর্শকরা যাচ্ছেন না। ফলে আমি মনে করি, পরিস্থিতি একটু স্বাভাবিক না হলে নতুন ছবি মুক্তি দেওয়া ঠিক হবে না। এতে করে প্রযোজককে বেশ মোটা অঙ্কের লোকসান গুনতে হবে। তবে কোনো প্রযোজক যদি এই পরিস্থিতিতে মুক্তি দিতে চান, সেটা নিয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক-পরিবেশক সমিতি থেকে কোনো বাধা থাকবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ছবি মুক্তি পেছানো ছাড়াও করোনার কারণে তিন মাসের মতো জাতির পিতার বায়োপিক ‘বঙ্গবন্ধু’ ছবিটির দৃশ্যধারণও পেছানো হয়েছে। এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিনেমাটির কাস্টিং ডিরেক্টর বাহারউদ্দিন। একই কারণে শিহাব শাহিনের পরিচালনা এবং অপূর্ব ও নুসরাত ফারিয়া জুটির ‘যদি … কিন্তু … তবুও’-এর দৃশ্যধারণ আগামী ১৫ দিনের জন্য বাতিল করা হয়েছে। এ ছাড়া অনেক পরিচালক যারা মার্চে নতুন ছবির কাজ শুরু করতে চেয়েছিলেন, তারা প্রত্যেকেই তাদের ছবির দৃশ্যধারণের কাজ বন্ধ রেখেছেন।

শুধু বাংলাদেশেই নয়, করোনাভাইরাসের কারণে পিছিয়ে গেছে জেমস বন্ড সিরিজের ছবি ‘নো টাইম নো ডাই’। ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান এমজিএম, ইউনিভার্সাল এবং প্রযোজক মাইকেল জি উইলসন ও বারবারা ব্রকলি টুইটারে এক যৌথ বিবৃতিতে সম্প্রতি এ ঘোষণা দেন। এ ছাড়া সামনে দর্শকশঙ্কায় ‘ব্ল্যাক উইন্ডো’ ও ‘ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস’ পিছিয়ে যেতে পারে। চলচ্চিত্র বিশ্নেষক ও ব্রিটিশ ম্যাগাজিন স্ট্ক্রিন ইন্টারন্যাশনালের উপসম্পাদক লুইস টাট বলেন, ‘প্রযোজক-পরিবেশকরা প্রতি মুহূর্তে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন। দুটি ছবিই পিছিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।’ এ ছাড়া বন্ধ রয়েছে বিশ্বখ্যাত আরও একটি সিরিজ চলচ্চিত্র ‘মিশন ইম্পসিবল’। তাদের নতুন কিস্তি ‘মিশন ইম্পসিবল ৭’-এর কাজ চলছিল ইতালিতে। সেখানে করোনাভাইরাসের ব্যাপক বিস্তারের কারণে শুটিং পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে টম ক্রুজ অভিনীত এ চলচ্চিত্রটির।