কলাপাড়ায় শিক্ষকের পা কেটে ফেলল সন্ত্রাসীরা


292 বার দেখা হয়েছে
Print Friendly, PDF & Email
কলাপাড়ায় শিক্ষকের পা কেটে ফেলল সন্ত্রাসীরা
আগস্ট ২৬, ২০১৮ জাতীয় ফটো গ্যালারি
Print Friendly, PDF & Email

অনলাইন ডেস্ক ::

পূর্ববিরোধের জেরে বরিশাল শেরেবাংলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষককে উপর্যুপরি কোপানোর পর পায়ের গোড়ালি কেটে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা।

শনিবার সকালে ১০-১২ জন সন্ত্রাসী কলাপাড়ার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের মোস্তফাপুর গ্রামে দরবেশবাড়ির সামনের সড়কে শিক্ষক শাহ আলম হাওলাদারকে কুপিয়ে জখম করে।

আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়।

হামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তারা হলো- সাইদ হাওলাদার, হোসেন হাওলাদার, তাইফুল হাওলাদার, হাসান খাঁ ও আব্দুর রহিম খোকন। এ সময় হামলাকারীদের বিচার চেয়ে বিক্ষোভ করে শাহ আলমের পক্ষের লোকজন। পাল্টা হামলার আশঙ্কায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

পুলিশ ও আহতের স্বজনরা জানান, শনিবার সকালে ছোট ছেলেকে নিয়ে মোস্তফাপুর গ্রামে বেড়াতে যান শাহ আলম। ফেরার পথে ওঁৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা ধারালো অস্ত্র নিয়ে অতর্কিতে হামলা চালায় তার ওপর। শিশুপুত্রের সামনেই তারা শাহ আলমের বাঁ পায়ের গোড়ালি কেটে ফেলে। ডান পা, দুই হাত ও মাথায় কুপিয়ে জখম করে। ১০-১২ মিনিট ধরে এ তাণ্ডব চালায় তারা। শাহ আলম ও তার ছেলের চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তাৎক্ষণিক তাকে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কলাপাড়া হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শংকর কুমার পাল জানান, আহত শাহ আলমের বাঁ পা গোড়ালি থেকে আলাদা হয়ে গেছে ৯০ ভাগ। এ কারণে পা-টি রক্ষা করা অসম্ভব। তার শরীরেও অসংখ্য গভীর ক্ষত রয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, স্থানীয় বাদশা মেম্বার-আইয়ুব আলী গ্রুপের সঙ্গে শাহ আলম মাস্টার গ্রুপের বিরোধ চলছে প্রায় ১৫ বছর ধরে। এর আগে অন্তত ১২-১৩ বার এ দুটি পক্ষের মধ্যে সশস্ত্র হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটে।

নীলগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নাসির মাহমুদ জানান, দুটি পক্ষই বিএনপির নেতাকর্মী। বছরের পর বছর ধরে এদের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে নীলগঞ্জের মানুষ আতঙ্কে রয়েছে।

কলাপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) আলী আহম্মেদ জানান, এ ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।